নিজেকে বাদ দিয়ে সরফরাজকে দলে নিতে বলেছিলেন রিজওয়ানই

রিজওয়ানের জায়গায় সুযোগ পেয়ে তা দারুণভাবে লুফে নেন সরফরাজ। কিউইদের বিপক্ষে দুই টেস্টে ৮৩.৭৪ এর অবিশ্বাস্য গড়ে ৩৩৫ রান করেছেন তিনি। নিউজিল্যান্ড সিরিজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ছিলেন এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটার। দ্বিতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরির পর প্লেয়ার অফ দ্য সিরিজ নির্বাচিত হন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সুযোগ পেয়েই নিজের ঝলক দেখিয়েছেন সরফরাজ আহমেদ। তাতে ফের দলে ফেরার পথটা বেশ কঠিন হয়ে গিয়েছে মোহাম্মদ রিজওয়ানের। অথচ পাকিস্তান দলে সরফরাজকে জায়গা ফের তৈরি করে দিয়েছিলেন এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটারই।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হতাশাজনক একটি সিরিজ শেষে নিজেই টিম ম্যানেজমেন্টকে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত হোম টেস্ট সিরিজ থেকে তাকে বাদ দিতে এবং তার জায়গায় সাবেক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে খেলতে বলেছিলেন রিজওয়ান।

২০২১ সালটা দুর্দান্ত কাটে রিজওয়ানের। তবে ২০২২ সালে সে ধারা ধরে রাখতে পারেননি। তবে একটি সিরিজের ব্যর্থতায় তাকে বাদ দেওয়া কঠিন হয়ে যেত দলটির। রিজওয়ানের অনুরোধেই সরফরাজ দলে ফেরেন বলে দাবি করেন তিনি। সম্প্রতি ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, 'আপনি প্রধান কোচ সাকলাইন মুশতাককে জিজ্ঞাসা করতে পারেন যে ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার পরে আমি তাকে কী বলেছিলাম।'

'কিছু খেলোয়াড় বলেছেন প্রতিটি খেলোয়াড় এই পর্যায়ে যায় এবং আপনি কয়েকটি ব্যর্থতার ভিত্তিতে বেঞ্চে বসতে পারবেন না। আমি নিজেই কোচ এবং অধিনায়কের কাছে গিয়েছিলাম এবং তাদের বলেছিলাম যে আপনি আমাকে বাদ দিতে পারেন কারণ আমি পারফর্ম করিনি। দুই খেলোয়াড় এই কথোপকথনের সাক্ষী,' যোগ করেন রিজওয়ান।

রিজওয়ানের জায়গায় সুযোগ পেয়ে তা দারুণভাবে লুফে নেন সরফরাজ। কিউইদের বিপক্ষে দুই টেস্টে ৮৩.৭৪ এর অবিশ্বাস্য গড়ে ৩৩৫ রান করেছেন তিনি। নিউজিল্যান্ড সিরিজে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ছিলেন এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটার। দ্বিতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরির পর প্লেয়ার অফ দ্য সিরিজ নির্বাচিত হন তিনি।

সরফরাজের পারফরম্যান্সে ভীষণ খুশি হয়েছেন বলেও জানান তিনি, 'সরফরাজ ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করে আসছেন এবং এখন সুযোগ তার প্রাপ্য। তাই আমি সরফরাজের পারফর্ম দেখে খুশি হয়েছিলাম কারণ আমি তাকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য বলেছিলাম। পাকিস্তানের হয়ে যারা সেরা পারফর্ম করবে তারাই খেলার যোগ্য।'

ইংলিশদের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার তিন ম্যাচের সিরিজে ছয় ইনিংসে ২৩.৫০ গড়ে ১৪১ রান করেন রিজওয়ান। যেখানে ছিল না একটি ফিফটিও। তাতে নিজেকে প্লেয়িং ইলেভেনে যোগ্য নন বলে মনে করেন রিজওয়ান, 'আমি ব্যক্তিগতভাবে ভেবেছিলাম যেহেতু আমি পারফর্ম করতে পারিনি, তাই আমি পরের সিরিজে খেলার যোগ্য নই।'

তবে এবারই নতুন নয়, এর আগে পিএসএলেও পারফর্ম করতে না পারায় বেঞ্চে বসেছিলেন রিজওয়ান। দলের প্রয়োজনে এমনটা করতে কোনো আপত্তি নেই এ ক্রিকেটারের, 'অতীতে পিএসএলের সময় যখন বেঞ্চে ছিলাম, তখন কখনও আঘাত পাইনি। আমি ভেবেছিলাম তারা দলের প্রতি সৎ ছিল এবং আমাকে বেঞ্চে রাখাটা সেই সময়ে দলের প্রয়োজন ছিল।'

Comments