বিসিএল

জাকেরের টানা তৃতীয় সেঞ্চুরি, মুমিনুলের প্রথম

এবারের বিসিএলের আগে প্রথম শ্রেণীতে জাকের আলি অনিকের কোন সেঞ্চুরি ছিল না। সেই খরা কাটানোর পর তিনি যেন ছুটছেন। প্রথম দুই রাউন্ডের পর তৃতীয় রাউন্ডে নেমেও সেঞ্চুরি পেয়েছেন তিনি। এদিকে ছন্দে ফেরার আভাস দেওয়া সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকও পেয়েছেন তিন অঙ্কের দেখা।
Jaker Ali Anik & Mominul Hoque

এবারের বিসিএলের আগে প্রথম শ্রেণীতে জাকের আলি অনিকের কোন সেঞ্চুরি ছিল না। সেই খরা কাটানোর পর তিনি যেন ছুটছেন। প্রথম দুই রাউন্ডের পর তৃতীয় রাউন্ডে নেমেও সেঞ্চুরি পেয়েছেন তিনি। এদিকে ছন্দে ফেরার আভাস দেওয়া সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকও পেয়েছেন তিন অঙ্কের দেখা।

বগুড়ায় রোববার দক্ষিণাঞ্চলের বিপক্ষে বাকিদের ব্যর্থতায় মধ্যাঞ্চলের হয়ে  ১৩৮ রানের ইনিংস খেলেন জাকের। প্রথম রাউন্ডে তিনি করেছিলেন ১২১ রান, পরের ম্যাচেও করেন ১৩৮ রান। বিপিএলের কারণে লম্বা বিরতির পর তৃতীয় রাউন্ডে নেমেও একই রূপে দেখা দিলেন তিনি।

জাকেরের ঝলকের পরও অবশ্য লিড নিতে পারেনি তার দল। দক্ষিণাঞ্চলের করা ৩১৩ রানের বদলে ২৮৩ রানে গুটিয়ে যায় মধ্যাঞ্চল। মধ্যাঞ্চলের ইনিংস আটকে রাখতে ৫৬ রানে ৩ উইকেট নেন সৈয়দ খালেদ আহমেদ, ৮৪ রানে ৩ উইকেট পান নাসুম আহমেদ।

আগের দিনের ২৮১ রানের সঙ্গে আরও ৩২ রান যোগ করে শেষ দিন উইকেট হারায় দক্ষিণাঞ্চল। জবাব দিতে নেমে ১০২ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। শরিফুল্লাহ করেন ১২, সৌম্য সরকার ও আব্দুল মজিদ আউট হন ৮ রান করে। আইচ মোল্লা আর শুভাগত হোম ফেরেন শূন্য রানে।

দলের চরম  বিপর্যয়ে বুক চিতিয়ে লড়েন পাঁচে নামা জাকের। আরিফুল হকের সঙ্গে ৪৬, আবু হায়দার নির সঙ্গে গড়েন ৩৮ রানের জুটি। রাকিবুল হাসানের সঙ্গে নবম উইকেটে যোগ করেন আরও ৪২ রান। সতীর্থদের সবার বিদায়েও ক্রিজে অপরাজিত থেকে যান এই কিপার ব্যাটার। ২১২ বলে ১৩৮ করতে ১৫ চার, ২ ছক্কা মেরেছেন জাকের।

২৯ ইনিংস পর মুমিনুলের সেঞ্চুরি

ব্যাটে চরম রান খরায় টেস্ট দলের নেতৃত্ব হারিয়েছিলেন মুমিনুল হক। এমনকি একাদশেও জায়গা খুইয়ে ফেলেছিলেন তিনি। গত বছরের শেষ দিকে ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে সুযোগ পেয়ে করেন ফিফটি। তবু তিন অঙ্কের দেখা পাওয়ার খরা কাটছিল না। এবার বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডে এসে হাসল এই বাঁহাতির ব্যাট।

কক্সবাজারে উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে অপরাজিত ১০৩ রানের ইনিংস খেলেছেন মুমিনুল। নাঈম ইসলামের সেঞ্চুরিতে উত্তরাঞ্চলের ৩৭৮ রানের জবাবে শক্ত অবস্থানে মুমিনুলদের পূর্বাঞ্চল। মুমিনুলের সেঞ্চুরিতে দিনশেষে ২ উইকেটে ২১৭ রান তুলেছে তারা।

রনি তালুকদারের আগ্রাসী শুরুর পর দলের ৪৪ রানে মোহাম্মদ আশরাফুল ফেরেন ৭ রান করে। রনিও বেশি টেকেননি। ৬১ বলে তিনি বিদায় নেন ৪৭ করে। এরপর জহুরুল ইসলামকে নিয়ে অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ঝলক দেখান মুমিনুল।

অবিচ্ছিন্ন জুটিতে তারা যোগ করেছেন ১৩৫ রান। ১৫২ বলে ১৪ চার, ১ ছক্কায় মুমিনুল অপরাজিত আছেন ১০৩ রানে। ১০৬ বলে ৫০ রানে ব্যাট করছেন জহুরুল।

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka traffic still light as offices, banks, courts reopen

After five days of Eid and Pahela Baishakh vacation, offices, courts, banks, and stock markets opened today

1h ago