মিরপুর টেস্ট

১৭২ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৮ উইকেটে ১৪৯ রান নিয়ে প্রথম দিনের চা-বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে ৪ উইকেট পড়ে উঠেছিল ৮০ রান, দ্বিতীয় সেশনে আরও ৬৯ রান যোগ করতে পড়েছে ৪ উইকেট।
Nurul Hasan Sohan
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

দ্রুত প্রথম চার উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছিল মুশফিকুর রহিম আর শাহাদাত হোসেন দিপুর জুটিতে। লাঞ্চের পর মুশফিক অদ্ভুতভাবে 'অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড' হলে ফের নামে ধস। তাতে দুইশোর আগেই গুটিয়ে গেছে স্বাগতিকদের ইনিংস।

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চা-বিরতির পর ১৭২ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে ৪ উইকেট পড়ে উঠেছিল ৮০ রান, দ্বিতীয় সেশনে আরও ৬৯ রান যোগ করতে পড়ে ৪ উইকেট। শেষ সেশনে আরও ২৩ রান যোগ করে থামে বাংলাদেশ।

চা-বিরতির পর ৮ উইকেটে ১৪৯ রান নিয়ে নেমে বেশিদূর এগুনো যায়নি। তাইজুল ইসলামকে এলবিডব্লিউতে ফেরান গ্লেন ফিলিপস। টিম সাউদির বলে কিপারের হাতে ক্যাচ দেন শরিফুল ইসলাম।   

বাংলাদেশের ব্যাটারদের বাজে দিনে সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা মুশফিকের আউট। ৪১তম ওভারে কাইল জেমিসনের বলে ডিফেন্স করে পরে হাত দিয়ে আটকে দেন তিনি। বিস্ময়কর এই ভুলে অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড আউট হয়ে ফিরতে হয় তাকে।

শাহাদাতের সঙ্গে ৫৭ রানের জুটি ভাঙার পর উল্টো স্রোতে হাঁটে বাংলাদেশের ইনিংস। খানিক পর থিতু থাকা আরেক ব্যাটার শাহাদাত (১০২ বলে ৩১) গ্লেন ফিলিপসের বলে কিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিলে নড়বড়ে হয়ে যায় পরিস্থিতি।

কিপার ব্যাটার নুরুল হাসান সোহান এসে নিজের দলে থাকা নিয়েই প্রশ্ন তুলে যান। টেস্টে আরও একবার উইকেট ছুঁড়ে তিনি বিদায় নেন ১৬ বলে ৭ করে। মেহেদী হাসান মিরাজও থিতু হয়েছিলেন। দারুণ এক ডেলিভারিতে তাকে স্লিপে ক্যাচ বানান মিচেল স্যান্টনার। সফরকারীদের হয়ে ৬৫ রানে ৩ উইকেট পান তিনি। ফিলিপস ৩১ রানে দিয়েই তুলেন ৩ উইকেট।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে গিয়ে প্রথম ঘন্টাতেই ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ। এজাজ প্যাটেল আর স্যান্টনারের ঘূর্ণি তোপে দিশেহারা হয়ে যায় পরিস্থিতি। 

Comments