তিন তারকার বেতন কেটে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার অনুমতি দিল আফগান বোর্ড

জাতীয় দলের চুক্তিতে থাকতে না চাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে প্রবল চাপে পড়েছিলেন তিন আফগান ক্রিকেটার মুজিব উর রহমান, ফজল হক ফারুকি আর নাবীন উল হক। তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার ছাড়পত্র আটকে রেখেছিল আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।
Mujeeb Ur Rahman, Fazalhaq Farooqi and Naveen Ul Haq

জাতীয় দলের চুক্তিতে থাকতে না চাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে প্রবল চাপে পড়েছিলেন তিন আফগান ক্রিকেটার মুজিব উর রহমান, ফজল হক ফারুকি আর নাবীন উল হক। তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার ছাড়পত্র আটকে রেখেছিল আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। তবে এবার তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার ছাড় দিচ্ছে তারা, তবে সেজন্য তাদের বেতন কাটা যাবে। সেই সঙ্গে তাদের চূড়ান্ত সতর্কতাও দেওয়া হচ্ছে। 

এর আগে তিন আফগান ক্রিকেটারকে আগামী দুই বছর ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় আফগান বোর্ড।

নতুন বছরের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে না থাকার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন এই তিনজন। জাতীয় দলের প্রতি নিবেদন নিয়ে প্রশ্ন উঠায় তিনজনের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নেয় এসিবি। ফজল হক ফারুকি আর নাবীন উল হক ক্ষমা চেয়ে পরে জাতীয় দলের খেলাতেও ফেরেন। মুজিব ছিলেন বিগ ব্যাশ লিগে। সেখানে এক পর্যায়ে এসিবির আপত্তিতে তার ম্যাচ খেলা আটকে যায়।

সোমবার এই তিন তারকার ব্যাপারে নতুন সিদ্ধান্ত নেয় আফগান বোর্ড। বিবৃতিতে তারা জানায়, 'প্রত্যেক খেলোয়াড় চূড়ান্ত সতর্কতা পাচ্ছেন এবং একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ বেতন তাদের কাটা যাবে।'

একইসঙ্গে তাদের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখা হবে কিনা সেটা পারফরম্যান্স নিখুঁতভাবে পর্যবেক্ষণ করে তবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, ' তাদের পারফরম্যান্স মূল্যায়নের ভিত্তিতে এসিবি তাদের কেন্দ্রীয় চুক্তি অনুমোদন দিতে পারে।'

এসিবি চেয়ারম্যান মিরওয়াইস আশরাফ বলেন জাতীয় দলে তাদের অবদানের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, 'এই খেলোয়াড়রা কোন সংশয় ছাড়াই দলের সাফল্যে অবদান রেখেছেন। নিজেদের সেরাটা দিয়ে জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। আমরা আশা করব তারা যেন আগামীতে এই ধরণের অপ্রত্যাশিত কিছু না করেন। দেশকে সুন্দরভাবে প্রতিনিধিত্ব করেন।'

Comments

The Daily Star  | English

Lifting curfew depends on this Friday

The government may decide to reopen the educational institutions and lift the curfew in most places after Friday as the last weekend saw large-scale violence over the quota-reform protest.

12h ago