লাইভ আপডেট

জিম্বাবুয়েকে অনায়াসে হারাল বাংলাদেশ

তাসকিন-সাইফউদ্দিনের তোপের পর অভিষিক্ত তানজিদের ফিফটির সঙ্গে তাওহিদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে সহজ জয় পেল বাংলাদেশ
ছবি: ফিরজ আহমেদ

জিম্বাবুয়েকে অনায়াসে হারাল বাংলাদেশ

ব্যর্থতার ধারাবাহিকতা ধরে রেখে শুরুতেই ফিরে গিয়েছিলেন ওপেনার লিটন দাস। তবে অপর প্রান্তে তিনটি জীবন পেয়ে তার সদ্ব্যবহার করলেন তানজিদ হাসান। অভিষেকেই পেলেন ফিফটি। তাতেই দারুণ জয় পায় বাংলাদেশ। অধিনায়ক শান্তর সঙ্গে ৫২ রানের জুটির পর তাওহিদ হৃদয়ের সঙ্গে গড়েন অবিচ্ছিন্ন ৬৯ রানের জুটি।

৩৬ বলে ফিফটি তুলে নেওয়া তানজিদ শেষ পর্যন্ত খেলেছেন হার না মানা ৬৭ রানের ইনিংস। ৪৭ বলে ৮টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে এই রান করেন তিনি। তাওহিদ অপরাজিত ৩৩ রানের ক্যামিও খেলেন। ১৮ বলে ৫টি চার ও ১টি ছক্কায় এই রান করেন তিনি। শান্তর ব্যাট থেকে আসে ২১ রান।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১২৪ (গুম্বি ১৭, আরভিন ০, বেনেট ১৬, উইলিয়ামস ০, রাজা ০, মাদান্দে ৪৩, বার্ল ০, জঙ্গুয়ে ২, মাসাকাদজা ৩৪, মুজারাবানি ১, এনগারাভা ২*; শরিফুল ০/৩৭, শেখ মেহেদী ২/১৬, তাসকিন ৩/১৪, সাইফউদ্দিন ৩/১৫, রিশাদ ০/৩৭)।

বাংলাদেশ: ১৫.২ ওভারে ১২৬/২ (তানজিদ ৬৭*, লিটন ১, শান্ত ২১, তাওহিদ ৩৩*; এনগাভারা ০/২৪, মুজারাবানি ১/৩১, রাজা ০/৩১, বেনেট ০/১০, জংবি ১/১৪, এন্ডলভু ০/১৫)।

ফলাফল: বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী।

মাসাকাদজার কনকাশন সাব এন্ডলভু

ওয়েলিংটিন মাসাকাদজার কনকাশন সাব হিসেবে মাঠে নেমেছেন আইনস্লে এন্ডলভু। ব্যাটিংয়ের সময় বল হেলমেটে লেগেছিল মাসাদাকজার।   

আবার জীবন পেলেন তানজিদ

অভিষেক ম্যাচে ফিফটি পাওয়ার পরপরই ফিরতে পারতেন তানজিদ হাসান তামিম। আবারও জীবন পেয়েছেন তিনি। রিচার্ড এনগাভার বলে টপএজ হয়ে আকাশে উঠে গিয়েছিল বল। কিন্তু সেই ক্যাচ ধরতে পারেননি উইকেটরক্ষক ক্লাইভ মাদান্দি। এ সময়ে ৫৬ রানে ব্যাটিং করছিলেন তিনি। এর আগে ব্লেসিং মুজারাবানির করা ইনিংসের চতুর্থ ওভারে দুটি জীবন পেয়েছিলেন তানজিদ।  

অভিষেক ম্যাচে ফিফটি তানজিদের

ফিরতে পারতেন ব্যক্তিগত ৩ রানেই। এরপর ব্যক্তিগত ৪ রানেও একটি ক্যাচ দিয়েছিলেন তানজিদ হাসান। তবে এক ওভারে দুটি জীবন পেয়ে তার শতভাগ সদ্ব্যবহার করেছেন এই তরুণ। এরমধ্যেই তুলে নিয়েছেন ফিফটি। ৩৬ বলে পঞ্চাশ পূরণ করেন তিনি। এ রান করার পথে ৬টি চার ও ২টি ছক্কা মেরেছেন। ১১ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৭৯ রান।  

শান্তর বিদায়ে ভাঙল জুটি

লিটন দাসের বিদায়ের পর তানজিদ হাসান তামিমের সঙ্গে দলের হাল ধরেছিলেন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় উইকেটে ৫২ রানের জুটিও গড়েছিলেন এ দুই ব্যাটার। তবে বল হাতে নিয়ে দ্বিতীয় বলেই শান্তকে আউট করে জুটি ভেঙেছেন লুক জংবি। তার বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দিয়েছেন শন উইলিয়ামসের হাতে। ২৪ বলে ২১ রান করেন শান্ত।  

বাংলাদেশের দলীয় পঞ্চাশ

বৃষ্টির পর খেলা শুরু হওয়ার এক পরই ব্রায়ান বেনেটের বল দারুণ একটি বাউন্ডারি মেরেছেন তাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। তাতে দলীয় ফিফটি পূরণ করেছে বাংলাদেশ। ১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৫২ রান। শান্ত ২০ বলে ১৯ ও তানজিদ ২৯ বলে ২৫ রান নিয়ে উইকেটে আছেন।

বৃষ্টি শেষে খেলা শুরু

দ্বিতীয় দফার বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ ছিল প্রায় ২৬ মিনিটের মতো। এরপর ফের শুরু হয়েছে খেলা। অতিরিক্ত সময় থাকায় কাটা হয়নি কোনো ওভার। প্রথম দফার বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ ছিল প্রায় ৩৪ মিনিটের মতো।

আবার বৃষ্টি, খেলা বন্ধ

বৃষ্টির কারণে প্রায় ৩৪ মিনিটের মতো খেলা থাকার পর ফের শুরু হয়েছিল খেলা। তবে ৪.২ ওভার খেলা হতে আবার নামে বৃষ্টি। কভার দিয়ে এরমধ্যেই ঢাকা হয়েছে পিচ। ৭.২ ওভার খেলা শেষে ১ উইকেটে ৪৪ রান তুলেছে বাংলাদেশ। বৃষ্টি আইনে ১ রান এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ আর খেলা না হলে জিতবে টাইগাররা।

তানজিদ ২৪ বলে ২৮ এবং অধিনায়ক শান্ত ১৭ বলে ১২ রানে ব্যাটিং করছেন।

এক ওভারে দুই জীবন পেলেন তানজিদ

ব্লেসিং মুজারাবানির শর্ট বলে পুল করতে চেয়েছিলেন অভিষিক্ত তানজিদ হাসান তামিম। তবে টাইমিংয়ে হেরফের করে বল ব্যাটার কানায় লেগে উঠে যায় আকাশে। সেই ক্যাচ ধরতে এগিয়ে এলেন দুইজন। উইকেটরক্ষক ক্লাইভ মাদান্দির সঙ্গে এলেন বোলার মুজারাবানিও। একে অপরের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে স্বাভাবিকভাবেই ধরতে পারেননি কেউ।

একই ওভারের শেষ বলে জীবন পান তানজিদ। মুজারাবানির একটি হাফভলি ডেলিভারিতে ড্রাইভ করতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সরাসরি চলে যায় এক্সট্রা কভারে দাঁড়ানো ব্রায়ান বেনেটের হাতে। কিন্তু সহজ সুযোগ লুফে নিতে পারেননি তিনি। এক ওভারেই দুটি জীবন পান এই তরুণ ওপেনার।

বৃষ্টি শেষে খেলা শুরু

হঠাৎ বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ ছিল প্রায় ৩৪ মিনিটের মতো। এরপর ফের শুরু হয়েছে খেলা। এক ঘণ্টা অতিরিক্ত সময় থাকায় কাটা হয়নি কোনো ওভার।

বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ

তিন ওভার ম্যাচ গড়াতেই গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে সাগরিকায়। যে কারণে আপাতত খেলা বন্ধ রয়েছে। এরমধ্যেই কভার দিয়ে ঢাকা হয়েছে পিচ। এ সময়ে ১ উইকেটে ১০ রান করেছে বাংলাদেশ। তানজিদ হাসান ৮ বলে ৩ এবং অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ৭ বলে ৪ রান নিয়ে উইকেটে আছেন।  

শুরুতেই লিটনের বিদায়

সহজ রান তাড়ায় সতর্ক শুরুর চিন্তায় ছিল বাংলাদেশ। প্রথম ওভারে ৫ রান আসার পর দ্বিতীয় ওভারেই উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকরা। গত কদিন ঠিক চেনা ছন্দে না থাকা লিটন দাস আউট হয়ে গেছেন ১ রান করে। ব্লেসিং মুজারাবানির ভেতরে ঢোকা দারুণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড হয়ে যান বাংলাদেশের ওপেনার। ৫ রানে পরে প্রথম উইকেট। 

তাসকিন-সাইফউদ্দিনের তোপে ১২৪ রানে অলআউট জিম্বাবুয়ে

জিম্বাবুয়ে ইনিংস: ২০ ওভারে ১২৪ (গুম্বি ১৭, আরভিন ০, বেনেট ১৬, উইলিয়ামস ০, রাজা ০, মাদান্দে ৪৩, বার্ল ০, জঙ্গুয়ে ২, মাসাকাদজা ৩৪, মুজারাবানি ১, এনগারাভা ২*; শরিফুল ০/৩৭, শেখ মেহেদী ২/১৬, তাসকিন ৩/১৪, সাইফউদ্দিন ৩/১৫, রিশাদ ০/৩৭)।

বাংলাদেশকে ১২৫ রানের লক্ষ্য দিল জিম্বাবুয়ে

ইনিংসের শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে ব্লেসিং মুজারাবানিকে দুর্দান্ত ইয়র্কারে বোল্ড করলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। আরও একটি উইকেট তার পাওয়া হলো না কেবল নো বলের কারণে। ফাইন লেগে ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যাওয়া ওয়েলিংটন মাসাকাদজা অবশ্য শেষ বলে নাজমুল হোসেন শান্তর অসাধারণ থ্রোতে রান আউট হয়ে গেলেন। পুরো ২০ ওভার খেলে ১২৪ রানে গুটিয়ে গেল জিম্বাবুয়ে।

মুজারাবানি ২ বলে ১ করে বিদায় নেওয়ার পর মাসাকাদজার ইনিংস থামল ৩৮ বলে ৩৪ রানে। তার ইনিংসে চার ও ছক্কা সমান দুটি করে।

৪১ রানে ৭ উইকেট খুইয়ে ফেলার বিপর্যয় সামলে জিম্বাবুয়ের একশর নিচে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা দূর করলেন মাসাকাদজা ও ক্লাইভ মাদান্দে। অষ্টম উইকেট জুটিতে তারা যোগ করলেন ৭৫ রান। মাদান্দে খেললেন ৩৯ বলে ৪৩ রানের ইনিংস।

একাদশে ফিরেই ঝলমলে পারফরম্যান্স দেখালেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। ৪ ওভারে ১৫ রান তার শিকার ৩ উইকেট। সমান উইকেট নিলেন ডানহাতি গতি তারকা তাসকিন। তিনি দিলেন স্রেফ ১৪ রান। কম গেলেন না অফ স্পিনার শেখ মেহেদী। একটি মেডেনসহ ১৬ রান খরচায় তিনি নিলেন ২ উইকেট।

তবে হতাশ করলেন বাঁহাতি পেসার শরিফুল ইসলাম ও লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন। দুজনেই সমান ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে উইকেটশূন্য থাকলেন ৩৭ রান খরচায়।

জুটি ভাঙলেন তাসকিন

১৯তম ওভারের প্রথম বলে ওয়েলিংটন মাসাকাদজার ব্যাটে ছক্কা হজমের পর দ্রুত ঘুরে দাঁড়ালেন তাসকিন আহমেদ। চমৎকার ইয়র্কারে বোল্ড করে দিলেন ক্লাইভ মাদান্দেকে। এতে ভাঙল জিম্বাবুয়ের ৬৫ বলে ৭৫ রানের গুরুত্বপূর্ণ অষ্টম উইকেট জুটি।

মাদান্দে সাজঘরে ফিরলেন ৩৯ বলে ৬ চারে ৪৩ রানে। তাকে বিদায় করে তৃতীয় শিকার ধরলেন তাসকিন। ওভার শেষ জিম্বাবুয়ের রান ৮ উইকেটে ১১৮। ক্রিজে ৩২ রান করা মাসাকাদজার সঙ্গী হলেন ব্লেসিং মুজারাবানি।

পাল্টা আক্রমণে জিম্বাবুয়ের একশ

শরিফুল ইসলামের শেষ ওভারে দুটি চারে এলো ১১ রান। পরের ওভারে রিশাদ হোসেনের ওপর চড়াও হলেন জিম্বাবুয়ের ব্যাটাররা। ওই ওভারে দুই চার ও এক ছক্কায় উঠল ১৬ রান। প্রথমভাগের মহাবিপর্যয়ের পর ইনিংসের শেষভাগে পাল্টা আক্রমণে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ পৌঁছাল তিন অঙ্কে।

১৮ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের রান ৭ উইকেটে ১০৯। মাদান্দে ৩৮ বলে ৪৩ ও মাসাকাদজা ৩০ বলে ২৪ রানে ব্যাট করছেন।

 

প্রতিরোধ গড়ে মাদান্দে-মাসাকাদজার জুটিতে পঞ্চাশ

অষ্টম ওভারের পর প্রতিরোধ গড়েছে জিম্বাবুয়ে। আর কোনো উইকেট হারায়নি তারা। বরং ক্লাইভ মাদান্দে ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজার জুটিতে ঘুরে দাঁড়িয়ে লড়াইয়ের পুঁজি পাওয়ার আশায় রয়েছে।

শরিফুল ইসলামের করা ১৭তম ওভারে দুজনের গড়া অষ্টম উইকেট জুটির রান পঞ্চাশ স্পর্শ করে। সেজন্য তাদের লাগে ৫৪ বল।

রিভিউ নিয়ে বাঁচলেন মাদান্দে

মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বল শাফল করে খেলতে চাইলেন ক্লাইভ মাদান্দে। লাইন মিস করায় লাগল তার পায়ে। বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের আবেদনে সাড়া দিয়ে আম্পায়ার দিলেন এলবিডব্লিউয়ের সিদ্ধান্ত। তবে মাদান্দে রিভিউ নেওয়ার পর তা পাল্টে গেল। রিপ্লেতে দেখা যায়, বলের ইমপ্যাক্ট ছিল অফ স্টাম্পের বাইরে।

১৬ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের রান ৭ উইকেটে ৮২ রান। মাদান্দে ৩১ বলে ২৯ ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ২৫ বলে ১১ রানে খেলছেন। অষ্টম উইকেট জুটিতে প্রতিরোধ গড়েছেন দুজন। তাদের জুটির রান ৫৩ বলে ৪১।

ক্যাচ ছাড়লেন মাহমুদউল্লাহ

সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মিছিলে বাঁধ দিয়ে জুটি বেঁধেছেন ক্লাইভ মাদান্দে ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। দ্বাদশ ওভারে তাদেরকে বিচ্ছিন্ন করার সুযোগ এলো। তবে তা হাতছাড়া করলেন মাহমুদউল্লাহ।

লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেনের চতুর্থ বলে মিড অফে ক্যাচ তুললেন মাসাকাদজা। বেশ কঠিন ছিল। দৌড়ে গিয়ে ডাইভ দিয়েও তা লুফে নিতে পারলেন না মাহমুদউল্লাহ। ব্যক্তিগত ৩ রানে জীবন পেলেন মাসাকাদজা।

ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের রান ৭ উইকেটে ৬৪। মাদান্দে ১৯ বলে ১৯ ও মাসাকাদজা ১৩ বলে ৪ রানে খেলছেন। তাদের অবিচ্ছিন্ন অষ্টম উইকেট জুটির রান ২৩।

ইনিংসের মাঝপথে ৫০ রানও হলো না জিম্বাবুয়ের

এক পর্যায়ে, ৪.৫ ওভারে জিম্বাবুয়ের রান ছিল ১ উইকেটে ৩৬। এরপর বাংলাদেশের বোলারদের তোপে তাসের ঘরের মতো পড়তে শুরু করেছে তারা। স্কোরবোর্ডে পরের ৫ রান যোগ করতেই হারিয়ে বসে আরও ৬ উইকেট!

১০ ওভার শেষে ধুঁকতে থাকা সফরকারীদের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৭ উইকেটে ৪৯ রান। নিদারুণ ব্যাটিং ব্যর্থতায় লড়াইয়ের জন্য সতীর্থ বোলারদের ন্যূনতম পুঁজি দেওয়াও এখন তাদের জন্য অনেক দূরের পথ।

অভিজ্ঞ ক্রেইগ আরভিন, সিকান্দার রাজা, শন উইলিয়ামস ও রায়ান বার্লের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি। এদের মধ্যে আরভিন খেলতে পারেন ২ বল। বাকিরা শূন্য হাতে মাঠ ছাড়েন একেবারে প্রথম বলে।

স্বাগতিকদের পক্ষে দুটি করে উইকেট পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও শেখ মেহেদী। ব্যাট করছেন ছয়ে নামা ক্লাইভ মাদান্দে ৮ ও নয়ে নামা ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ১ রানে।

আবারও সাইফউদ্দিন মাতলেন উইকেটের উল্লাসে

উইকেট পতনের মিছিল চলছেই! অষ্টম ওভারে লুক জঙ্গুয়েকে বিদায় করলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। পুল করতে গিয়ে জঙ্গুয়ে ক্যাচ দিলেন মিড অনে তাওহিদ হৃদয়ের হাতে। ৬ বল খেলে তার রান ২।

মাত্র ৪১ রানে জিম্বাবুয়ের সপ্তম উইকেট তুলে নিল বাংলাদেশ। ক্রিজে আছেন ক্লাইভ মাদান্দে ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজা।

টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের সর্বনিম্ন সংগ্রহ ৮২ রান। গত জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কলম্বোতে ১৪.১ ওভারে অলআউট হয়ে গিয়েছিল তারা। সেই বিব্রতকর কীর্তি ভেঙে নতুন করে লেখার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে।

জোড়া শিকার ধরলেন তাসকিন

নিজের প্রথম ওভারে গতির ঝড় তোলা তাসকিন আহমেদ আক্রমণে ফিরে ধরলেন জোড়া শিকার। ডানহাতি পেসার টানা উইকেট নিয়ে জাগালেন হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও।

প্রথম ডেলিভারিতে জায়গা করে খেলতে গিয়ে ইনসাইড এজে বোল্ড হয়ে গেলেন শন উইলিয়ামস। পরের বলে জায়গায় দাঁড়িয়ে ড্রাইভ করে পয়েন্টে রিশাদ হোসেনের তালুবন্দি হলেন রায়ান বার্ল।

দুজনই স্রেফ একটি করে বল মোকাবিলা করে রানের খাতা খুলতে ব্যর্থ হলেন। ৯ বলের মধ্যে ৫ উইকেট হারাল মহাবিপদে পড়া জিম্বাবুয়ে। ৭ ওভার শেষে তাদের রান ৬ উইকেটে ৩৯ রান। ক্রিজে ক্লাইভ মাদান্দের সঙ্গে খেলছেন লুক জঙ্গুয়ে।

টানা তিন বলে তিন উইকেট তুলে নিল বাংলাদেশ

টানা তিন বলে তিন উইকেট! পঞ্চম ওভারের শেষ বল ও ষষ্ঠ ওভারের প্রথম বলের পর দ্বিতীয় বলেও উল্লাসে মাতল বাংলাদেশ। স্বাগতিক বোলারদের জবাব দেওয়ার কোনো উপায় খুঁজে পাচ্ছে না জিম্বাবুয়ে।

ক্রিজে গিয়েই প্যাডেল সুইপ খেলার চেষ্টা করলেন সিকান্দার রাজা। কিন্তু জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক সফল হলেন না। বল তার গ্লাভসে লেগে জমা পড়ল স্লিপে থাকা লিটন দাসের হাতে। রাজা রিভিউ নিলেও মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই বহাল থাকল।

১ বল খেলা রাজার রান শূন্য। পাওয়ার প্লে শেষে উড়তে থাকা বাংলাদেশের বিপক্ষে ভীষণ চাপে জিম্বাবুয়ে। তাদের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৩৮ রান। ক্রিজে শন উইলিয়ামসের সঙ্গী ক্লাইভ মাদান্দে।

রান আউট বেনেট, চাপে জিম্বাবুয়ে

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভার করা শেখ মেহেদী আক্রমণে ফিরলেন পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে। তার প্রথম বলেই সিঙ্গেল নেওয়ার চেষ্টায় রানআউট হয়ে গেলেন ব্রায়ান বেনেট। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের থ্রোতে স্টাম্প ভেঙে দিলেন উইকেটরক্ষক জাকের আলী অনিক।

বেনেটের সংগ্রহ ১৫ বলে ৩ চারে ১৬ রান। ষষ্ঠ ওভারে দলীয় ৩৬ রানেই তৃতীয় উইকেটের পতন হওয়ায় চাপে পড়ল জিম্বাবুয়ে।

ফিরে প্রথম ওভারেই উইকেট নিলেন সাইফউদ্দিন

১৮ মাস পর বাংলাদেশ জাতীয় দলে ফিরে একাদশেও ঢুকে গেলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। পঞ্চম ওভারে আক্রমণে পরিবর্তন এনে তার হাতে তুলে দেওয়া হলো বল। আস্থার প্রতিদান দিয়ে শেষ ডেলিভারিতে উইকেট শিকারের উল্লাসে মাতলেন তিনি।

পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের ওভারের শেষ বলটা ছিল লেগ স্টাম্পের বাইরে। ফ্লিক করে ফাইন লেগে থাকা ফিল্ডার তাসকিন আহমেদের হাতে ক্যাচ দিলেন জয়লর্ড গুম্বি। আগের বলেই ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে দুরূহ ক্যাচ দিয়ে বেঁচে গিয়েছিলেন। এবার শেষরক্ষা হলো না।

৫ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩৬ রান। গুম্বি ফিরলেন ১৪ বলে ১৭ রানে। ক্রিজে ব্রায়ান বেনেটের সঙ্গী শন উইলিয়ামস।

শরিফুলের ওভারে বেনেটের টানা তিন বাউন্ডারি

ক্রেইগ আরভিনের বিদায়ের পর ক্রিজে আসা ব্রায়ান বেনেট চড়াও হলেন শরিফুল ইসলামের ওপর। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম তিন বলেই টানা তিনটি চার মারলেন তিনি। প্রথমটি ড্রাইভ করে, দ্বিতীয়টি র‍্যাম্প শটে এবং শেষটি পাঞ্চ করে।

সব মিলিয়ে এই ওভার থেকে উঠল ১৩ রান। দুই ওভারে খরুচে বোলিংয়ে শরিফুল দিলেন মোট ২০ রান।

৩ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের রান ১ উইকেটে ২৬। জয়লর্ড গুম্বি ১২ ও বেনেট ১৩ রানে খেলছেন। দুজনই সমান ৮ বল করে মোকাবিলা করেছেন।

প্রথম আঘাত হানলেন শেখ মেহেদী

ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারেই সাফল্য পেল বাংলাদেশ দল। নতুন বল হাতে পাওয়া অফ স্পিনার শেখ মেহেদী উপড়ে ফেললেন স্টাম্প। দারুণ আর্ম ডেলিভারিতে বোল্ড করে দিলেন অভিজ্ঞ ওপেনার ক্রেইগ আরভিনকে।

দলীয় ৮ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারাল জিম্বাবুয়ে। ২ বল খেলা আরভিন রানের খাতা খুলতে পারলেন না। শেখ মেহেদীর আগে ম্যাচের প্রথম ওভার করেন বাঁহাতি পেসার শরিফুল ইসলাম। ওই ওভারে দুটি চার মারেন অভিষিক্ত জয়লর্ড গুম্বি।

২ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৩ রান। ক্রিজে গুম্বির সঙ্গী ব্রায়ান বেনেট।

জিম্বাবুয়ের একাদশেও একজন অভিষিক্ত

জিম্বাবুয়েও তাদের একাদশে তিন পেসার ও দুই স্পিনার রেখেছে। জিম্বাবুয়ের একাদশেও একজন অভিষিক্ত আছেন। আগে ওয়ানডে খেলা ওপেনার জয়লর্ড গুম্বি খেলতে যাচ্ছেন তার প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: জয়লর্ড গুম্বি, ক্রেইগ আরভিন, ব্রায়ান বেনেট, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, ক্লাইভ মাদান্দে, লুক জঙ্গুয়ে, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, রায়ান বার্ল, ব্লেসিং মুজারাবানি, রিচার্ড এনগারাভা।

তানজিদের অভিষেক, একাদশে সাইফউদ্দিন

তানজিদ হাসান তামিমকে অভিষেক ম্যাচের ক্যাপ পরিয়ে দেন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এই ম্যাচে বাংলাদেশ তিন পেসারের সঙ্গে খেলাচ্ছে দুজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার। ছয় বিশেষজ্ঞ ব্যাটারের সঙ্গে তিনজন আছেন অলরাউন্ডার।

দীর্ঘদিন পর স্কোয়াডে ফিরে একাদশেও এসেছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলামের সঙ্গে তৃতীয় পেসার তিনি। অফ স্পিনার শেখ মেহেদী আর লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেনকে নিয়ে একাদশে আনা হয়েছে বৈচিত্র্য।

বাংলাদেশ একাদশ: লিটন দাস, তানজিদ হাসান তামিম, নাজমুল হোসেন শান্ত, তাওহিদ হৃদয়, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলি, শেখ মেহেদী, রিশাদ হোসেন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শরিফুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ।

Toss
ছবি: ফিরোজ আহমেদ।

টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। আভাস অনুযায়ী, এই ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি অভিষেক হলো ওপেনার তানজিদ হাসান তামিমের।

মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টিতে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে প্রায় দ্বিগুণ ব্যবধানে এগিয়ে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত ২০ বারের দেখায় বাংলাদেশ জিতেছে ১৩ ম্যাচে। জিম্বাবুয়ের জয় বাকি সাতটিতে।

Comments

The Daily Star  | English

Arson on Setu Bhaban: Andaleeve Partho placed on five-day remand

A Dhaka court today placed two people, including Bangladesh Jatiyo Party (Manzu) Chairman Andaleeve Rahman Partho, on a five-day remand each in a case filed over vandalising and setting Setu Bhaban in Dhaka on fire on July 18

17m ago