'টানা ১০ জয়ের চেয়ে একটি হার বেশি শিক্ষা দেয়'

নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল আগেই। তারপরও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে আরবি লাইপজিগের বিপক্ষে ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ ছিল রিয়াল মাদ্রিদের জন্য। কিন্তু লড়াইটাও সে অর্থে জমিয়ে করতে পারেনি দলটি। তাতে অনেকেই খেলোয়াড়দের মনোযোগের অভাব দেখছেন। এ বিষয়টি না মানলেও হার থেকে ভালো শিক্ষা পেয়েছেন তা মেনে নিয়েছেন কোচ কার্লো আনচেলত্তি।

নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল আগেই। তারপরও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে আরবি লাইপজিগের বিপক্ষে ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ ছিল রিয়াল মাদ্রিদের জন্য। কিন্তু লড়াইটাও সে অর্থে জমিয়ে করতে পারেনি দলটি। তাতে অনেকেই খেলোয়াড়দের মনোযোগের অভাব দেখছেন। এ বিষয়টি না মানলেও হার থেকে ভালো শিক্ষা পেয়েছেন তা মেনে নিয়েছেন কোচ কার্লো আনচেলত্তি।

মঙ্গলবার রাতে রেডবুল অ্যারেনায় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের 'এফ' গ্রুপের ম্যাচে লাইপজিগের কাছে ৩-২ গোলে হারে রিয়াল মাদ্রিদ। যা চলতি মৌসুমে তাদের প্রথম হার। ম্যাচের ২০ মিনিট না যেতেই দুই গোলের ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে দলটি। এরপর প্রথমার্ধের শেষ দিকে ভিনিসিয়ুস জুনিয়র একটি গোল শোধ করলেও ৮১তম মিনিটে টিমো ভের্নারের গোল জয় নিশ্চিত হয়ে যায় জার্মান ক্লাবটির। যদিও যোগ করা সময়ে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান কমান রদ্রিগো।

হারের ব্যবধানটা নুন্যতম হলেও ম্যাচের চিত্র তেমন ছিল না রিয়ালের। গোলের জন্য তেমন মরিয়া হয়ে খেলতে দেখা যায়নি ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নদের। তাতে প্রশ্ন উঠেছে খেলোয়াড়দের নিবেদন নিয়ে। বিশ্বকাপের সামনে চোটে পড়ার ঝুঁকি এড়াতেই হয়তো তেড়েফুঁড়ে খেলার তাগিদ কম ছিল বলেই মনে করেছেন অনেকেই।

এমনটা অবশ্য মানতে নারাজ কোচ আনচেলত্তি, 'না, এমনটা ছিল না, আমরা খুব বেশি রিলাক্স ছিলাম। তবে মনোভাবের অভাব দেখিনি। একটি সেট পিসে পরিস্থিতি বদলে যায় এবং তারপর ম্যাচটি কঠিন হয়ে যায়। এরপর তারা দারুণভাবে পাল্টা লড়াই করেছে। আমরা ম্যাচে ফিরতে পেরেছি, কিন্তু তাও হওয়ার কথা ছিল না।'

তবে এ ম্যাচ থেকে যে ভালো শিক্ষা পেয়েছেন বলে জানান রিয়াল কোচ, 'আমরা কিছু পয়েন্ট হারিয়েছি এটা ব্যথা দেয় কারণ আমরা জিততে চেয়েছিলাম। তবে আমরা এখনও গ্রুপে প্রথম হতে পারি। কখনো কখনো টানা ১০টি জয়ের চেয়ে একটি হার থেকে আপনি বেশি শিক্ষা নিতে পারেন।'

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

1h ago