সুখে নেই লেভানদোভস্কি!

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেভানদোভস্কি। যে ধারায় আগের মৌসুমগুলো খেলেছিলেন, সে ধারায় খেলতে পারলে হয়তো এবার সেঞ্চুরিও পূরণ হয়ে যেত তার। কিন্তু বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার পর সব গেল বদলে। খেলতে হবে কি-না ইউরোপা লিগে। তাতে আর কীভাবে সুখে থাকেন এ পোলিশ তারকা?

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেভানদোভস্কি। যে ধারায় আগের মৌসুমগুলো খেলেছিলেন, সে ধারায় খেলতে পারলে হয়তো এবার সেঞ্চুরিও পূরণ হয়ে যেত তার। কিন্তু বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার পর সব গেল বদলে। খেলতে হবে কি-না ইউরোপা লিগে। তাতে আর কীভাবে সুখে থাকেন এ পোলিশ তারকা?

অথচ বায়ার্ন মিউনিখে স্বপ্নের মতোই সব চলছিল। শেষ পাঁচ মৌসুমেই ছিলেন বুন্ডেসলিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা লেভা। বায়ার্নও উড়ছিল তখন। ২০২০ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগও জিতে নেয় দলটি। কিন্তু এ মৌসুমে হঠাৎ করেই দলবদলের সিদ্ধান্ত নেন লেভা। নতুন ক্লাবে এসে অসুখী হয়ে পড়েছেন এ পোলিশ ফরোয়ার্ড!

বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলতে না পারায় অসুখী হলেও প্রথম মৌসুম সহজ হবে না এমন ধারণা আগেই ছিল লেভার। লা ভ্যানগার্দিয়ার সঙ্গে আলাপকালে বলেছেন, 'অবশ্যই আমি খুশি নই। বার্সেলোনার শেষ ষোলোতে থাকা উচিত ছিল। কিন্তু বার্সেলোনা আসার আগে আমি আগে থেকেই জানতাম যে প্রথম মৌসুমে অবশ্যই যেমনটা হওয়ার কথা তারচেয়ে বেশি কঠিন হতে পারে।'

'আমরা পুনর্গঠনের প্রক্রিয়ার মধ্যে আছি যা সময় নেয়, আমাদের অবশ্যই ধৈর্য ধরতে হবে। আমি নিশ্চিত যে এই বিপত্তিগুলো আমাদের দল হিসেবে গড়ে তুলবে এবং পরের মৌসুমে সবকিছু ভিন্ন হবে। আমরা বিকশিত হচ্ছি। এখানে এসে প্রথম মৌসুমে সবকিছু ঠিকঠাক হবে এমনটা আমি আশা করিনি। আমি এমন একটি প্রক্রিয়াতে জোর দিয়েছি যার জন্য সময় এবং ধৈর্যের প্রয়োজন,' যোগ করেন লেভানদোভস্কি।

এর আগে সবশেষ ২০১০-১১ মৌসুমে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে ইউরোপা লিগে খেলেছিলেন লেভানদোভস্কি। সে মৌসুমে আট ম্যাচ খেলে গোল দিয়েছিলেন মাত্র একটি। এরপর গত এক যুগে খেলতে হয়নি এ লিগে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিয়মিত জাদুকরী ছন্দের ধারা রেখে এখন পর্যন্ত গোল করেছেন ৯১টি।

Comments

The Daily Star  | English
Prof Yunus, 13 others granted bail in graft case

Labour law violation: Bail of Prof Yunus extended till July 4

A Dhaka tribunal today extended bail of Nobel Laureate Prof Muhammad Yunus and three directors of Grameen Telecom till July 4 in a labour law violation case

24m ago