ভাগ্যকেই দায় দিলেন ইউনাইটেড কোচ

শেষ দিকে দুটি আত্মঘাতী গোল হজম করে জয় হাতছাড়া রেড ডেভিলরা।

ম্যাচের ২০ মিনিট না যেতেই দুই গোলের ব্যবধানে এগিয়ে গেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সেই লিড তারা ধরে রাখল প্রায় শেষ পর্যন্ত। কিন্তু শেষ দিকে দুটি আত্মঘাতী গোল হজম করে জয় হাতছাড়া করলো দলটি। তাতে সেমি-ফাইনালের পথ কিছুটা হলেও কঠিন হয়ে গেল রেড ডেভিলদের। এমন সুযোগ হাতছাড়া করে ভাগ্যকে দুষলেন ইউনাইটেড কোচ এরিক টেন হাগ।

বৃহস্পতিবার রাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইউরোপা লিগের শেষ আটের প্রথম লেগের ম্যাচে স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে ইউনাইটেড। ম্যাচের ১৪ ও ২১তম মিনিটে মার্সেল সাবিতজারের দেওয়া জোড়া গোলে এগিয়ে যায় দলটি। এরপর ৮৪ত্ম ও যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে দুটি আত্মঘাতী গোল হজম করে তারা।

অথচ পুরো ম্যাচ জুড়ে এদিন দাপট ছিল ইউনাইটেডেরই। চোট পাওয়ায়  ফরাসি ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারানেকে তুলে নেন কোচ। শেষ দিকে আরেক ডিফেন্ডার লিসান্দ্রো মার্তিনেজ প্রতিপক্ষের দুই আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়ের কাঁধে চড়ে মাঠ ছাড়েন। এর আগেই পাঁচ খেলোয়াড় বদল করে ফেলায় ১০ জন নিয়ে খেলতে হয় ইউনাইটেডকে।

রক্ষণভাগের এমন অবস্থায় ইউনাইটেডকে চেপে ধরে সেভিয়া। ৮৪তম মিনিটে হেসুস নাভাসের শটে ইউনাইটেডের ডাচ ডিফেন্ডার তাইরেল মালাসিয়ার পায়ে লেগে জালে প্রবেশ করে। আর  যোগ করা সময়ে ইয়ুসেফ এন-নাসিরির হেড থেকে বল হ্যারি ম্যাগুইয়েরের মাথায় লেগে দিক বদলে ঢুকে যায় জালে।

ম্যাচ শেষে তাই ভাগ্যকেই দায় দিলেন ইউনাইটেড কোচ, 'আমার মনে হয়, ম্যাচ আমাদের মুঠোয় ছিল। তিন বা চার গোল করা উচিত ছিল আমাদের। কিন্তু কয়েকজনের চোটে পড়ার দুর্ভাগ্যজনক মুহূর্ত এলো। এরপর আমরা দুটি আত্মঘাতী গোল হজম করলাম, এটা তো স্রেফ দুর্ভাগ্য। মেনে নিতেই হবে। তবে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণ থাকার সময়ই খেলা শেষ করে দেওয়া শিখতে হবে আমাদের।'

'দুটি গোলই ছিল দুর্ভাগ্যজনক। দুটি গোলেই বল দিক বদলে গেছে। কী আর করা যাবে! কখনও কখনও এরকম বাজে দিন ও দুর্ভাগ্য আসে। আজকের রাতটি আমাদের ছিল না,' যোগ করেন এ কোচ।

ভাগ্যকে দায় দিলেন জোড়া গোলদাতা সাবিতজারও, 'রোলার-কোস্টার ভ্রমণ হলো যেন। আমাদের উচিত ছিল খেলাটা আগেই শেষ করে দেওয়া। শেষ পর্যন্ত ড্র হলো, যা আমাদের কাম্য ছিল না। এরপর সেভিয়ায় গিয়ে কাজ শেষ করতে হবে। আমাদের সুযোগ ছিল, আত্মবিশ্বাসও ছিল এবং খেলা আমরাই নিয়ন্ত্রণ করেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজসকভাবে সহজ দুটি গোল দিয়ে দিয়েছি।'

Comments

The Daily Star  | English

Dos and Don’ts during a heatwave

As people are struggling, the Met office issued a heatwave warning for the country for the next five days

5h ago