হংকংয়ে মায়ামির হয়ে মেসি না খেলায় বিপাকে আর্জেন্টিনা!

বাতিল হয়ে গেছে আর্জেন্টিনার চীন সফর

নাইজেরিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচটি বাতিল হওয়ার পর এবার আইভরিকোস্টের বিপক্ষে ম্যাচটিও বাদ হয়েছে আর্জেন্টিনার। ফলে চীন সফরই বাতিল হয়েছে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বেইজিং ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

বিজ্ঞপ্তিতে বেইজিং ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বলেছে, 'লিওনেল মেসি যে ম্যাচটিতে অংশ নেবেন সেই ম্যাচটি আয়োজনের জন্য বেইজিং এই মুহূর্তে পরিকল্পনা করছে না।'

হংকংয়ে ইন্টার মায়ামির প্রদর্শনী ম্যাচে লিওনেল মেসি না খেলার কারণে অনেক কাণ্ডই ঘটেছে। সেই ঘটনার প্রভাব খেলাধুলার সীমাকে ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস। যে কারণে আর্জেন্টিনার দুটি প্রীতি ম্যাচ বাতিল করেছে স্থানীয় ফুটবল কর্তৃপক্ষ।

আগামী জুনে কোপা আমেরিকার শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে মাঠে নামবে আর্জেন্টিনা। সেই আসরের আগে নিজেদের ঝালিয়ে নিতে ম্যাচটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ তাদের জন্য। এখন চীন সফর বাতিল হওয়ায় কোপা আমেরিকার আগে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ নাও মিলতে পারে তাদের। তাতে কিছুটা হলেও বিপাকে পড়ল আর্জেন্টিনা। যদিও ম্যাচদুটি সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

চীনে আগামী ১৮ ও ২৬ মার্চে আন্তর্জাতিক বিরতির সময় ম্যাচ দুটি খেলার কথা ছিল মেসির নেতৃত্বাধীন আর্জেন্টিনার। কিন্তু হংকংয়ে মেসির না খেলার কারণে শুক্রবার নাইজেরিয়ার সঙ্গে ম্যাচটি বাতিলের কথা জানায় হাংজু ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। এক দিন পর আইভরিকোস্টের বিপক্ষেও ম্যাচটি বাতিলের কথা জানায় বেইজিং ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

হংকং একাদশের বিপক্ষে মেসির মায়ামির ম্যাচটি দেখতে স্টেডিয়াম সেদিন ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। কিন্তু চোটের কারণে মাঠেই নামেননি মেসি। তাতে ফুঁসে ওঠে সমর্থকরা। মেসি বেঞ্চে থাকায় তাকে এবং মায়ামির সহ-মালিক ডেভিড বেকহ্যামকে ব্যঙ্গ করেন তারা।

আর এই পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হয় জাপানে গিয়ে ভিসেল কোবের বিপক্ষে মেসি মাঠে নামায়। সেই ম্যাচে ৩০ মিনিটের জন্য মাঠে ছিলেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। তাতে আরও ক্ষেপে যায় হংকংয়ের সমর্থকরা। বিতর্কের কারণে সমর্থকদের টিকিট মূল্যের ৫০ শতাংশ ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে হংকং ম্যাচের আয়োজক ট্যাটলার এশিয়া।

Comments