ফুটবল

মাদ্রিদে বাড়ি খুঁজতে গিয়েছেন এমবাপের মা

আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না এলেও এমবাপে যে রিয়াল মাদ্রিদে যাচ্ছেন তা ক্রমেই নিশ্চিত হতে পারছে ভক্ত-সমর্থকরা

এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি কোনো পক্ষই। তবে কিলিয়ান এমবাপে যে রিয়াল মাদ্রিদে যাচ্ছেন তা এক প্রকার নিশ্চিতই বলা চলে। এরমধ্যেই আবার এমবাপের মা এবং এজেন্ট ফাইজা লামারি মাদ্রিদে বাড়ি খুঁজতে গিয়েছেন। এমন সংবাদই প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম রেলেভো।

সংবাদে বলা হয়েছে, এমবাপের মার সঙ্গে তার দলের অন্যান্য সদস্যরা মাদ্রিদে গিয়েছেন। সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ের জন্য পছন্দসই বাড়ি খুঁজতেই স্পেনের রাজধানীতে আসেন তারা। যা একই সঙ্গে হবে নিরাপদও। স্পেনের মাঝেমধ্যেই আক্রমণের শিকার হন খেলোয়াড়রা। সে কারণে আগেভাগে সময় নিয়ে সঠিক সম্পত্তি খুঁজে পেতেই এই সফর তাদের।

অনেক বছর থেকেই এমবাপেকে পেতে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছে রিয়াল। শেষ পর্যন্ত তাকে পেতে যাচ্ছে তারা। প্রায় প্রতি মৌসুমেই তাকে পাওয়ার গুঞ্জন ওঠে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে দেখা যায় পিএসজিতেই। তবে এবার সত্যি সত্যি রিয়ালের সঙ্গে এমবাপের চুক্তি হয়ে গিয়েছে বলে দাবি করেছে মাদ্রিদ ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম মার্কা সহ বেশ কিছু স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম।

মার্কার সেই প্রতিবেদনে জানা যায়, এমবাপের সঙ্গে এরমধ্যেই চুক্তির বিষয়টি শেষ করেছে রিয়াল। আর এই চুক্তিটা হয়েছে পাঁচ বছরের জন্য। তবে মৌসুম শেষে পিএসজি ছাড়ার পরই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে বলে জানিয়েছে মার্কা। রিয়ালে মৌসুম প্রতি এমবাপের বেতন হবে ২০ মিলিয়ন ইউরো। এছাড়া সাইনিং বোনাস ও অন্যান্য বোনাস সহ প্রায় ১০০ মিলিয়ন ইউরো আয় করবেন এই ফরাসি তারকা।

এর আগে ২০২২ সালে এমবাপের রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার বিষয়টি পাকা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু তাকে আটকে রাখে পিএসজি। এর জন্য ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁক্রোর দ্বারস্থ হন পিএসজি সভাপতি নাসের আল খেলাইফি। প্রেসিডেন্টের অনুরোধে প্যারিসে থেকে যান। তবে এবার আর তাকে ধরে রাখতে পারছেন না খেলাইফি।

এদিকে দুদিন আগেও ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করেছেন এমবাপে। কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানির ফ্রান্স সফর উপলক্ষে মঙ্গলবার নিজের সরকারি বাসভবনে নৈশভোজের আয়োজন করেন ম্যাক্রোঁ। সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয় এমবাপেকেও। তবে সেখানে এবারও এমন কোনো চেষ্টা করেছেন কি-না তা জানা যায়নি।

Comments

The Daily Star  | English

The taste of Royal Tehari House: A Nilkhet heritage

Nestled among the busy bookshops of Nilkhet, Royal Tehari House is a shop that offers students a delectable treat without burning a hole in their pockets.

28m ago