বিপিএল ২০২৩

মানুষের কটু কথা গায়ে মাখেন না উসমান

ম্যাচ শেষে গণমাধ্যমে কথা বলতে এলে মানুষের সমালোচনা নিয়ে হয় প্রশ্ন। জানালেন সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচরণ তার নেই, আর কেউ সরাসরি কটু কথা বললেও তা গায়ে মাখেন না
Usman Khan
২০২৩ সালে বিপিএলও খেলেছিলেন উসমান খান। ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

গেল ২ জানুয়ারি উসমান খানের ছবি দিয়ে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ফেসবুক পেজ থেকে লেখা হয়েছিল 'উসমান আসছে'। কিছুটা অচেনা ক্রিকেটার হওয়ায় এই ছবির নিচে আসতে থাকে আপত্তিকর সব কমেন্ট। খেলোয়াড়ের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলতে থাকেন মানুষ। সেই উসমানই দ্বিতীয় ম্যাচ করে ফেললেন ম্যাচ জেতানো বিস্ফোরক সেঞ্চুরি। সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাড়ি জমানো পাকিস্তানে জন্ম নেওয়া ক্রিকেটার জানালেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচরণ না থাকায় মানুষ তিক্ত কথা তাকে স্পর্শ করতে পারে না।

বিপিএল খেলতে আসার আগে ২৭ পেরুনো উসমানের কেবল ৭টি স্বীকৃত ম্যাচ। করাচির হয়ে দুটি প্রথম শ্রেনী ও ৭টি টি-টোয়েন্টি। ওই ৭ ম্যাচের মধ্যে অবশ্য আছে পিএসএলের কিছু ম্যাচ। যেখানে তাকে ঝলক দেখাতেও দেখা গেছে। তবে তাও নিজেকে খুব একটা আলোয় নেওয়ার মতো প্রোফাইল ছিল না তার।

সোমবার রাতে বিপিএলে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের নায়ক হয়ে নিজেকে বেশ ভালোই তুলে ধরলেন তিনি। মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খুলনার করা ১৭৮ রান উসমানের ঝড়ে ৪ বল আগে পেরিয়ে যায় চট্টগ্রাম।

আজম খানের সেঞ্চুরি ম্লান করে ৫৮ বলে অপরাজিত ১০৩ রানের ইনিংস খেলে ফেলেন উসমান। ১০ চারের সঙ্গে তিনি মেরেছেন ৫ ছক্কা।

ম্যাচ শেষে গণমাধ্যমে কথা বলতে এলে মানুষের সমালোচনা নিয়ে হয় প্রশ্ন। জানালেন সোশ্যাল মিডিয়ায় বিচরণ তার নেই, আর কেউ সরাসরি কটু কথা বললেও তা গায়ে মাখেন না,  'আমার ইন্সটাগ্রাম নেই, ফেসবুক নেই, টুইটার কিছুই নেই। আমি খুব সাধারণ একজন মানুষ।  কাজেই আমাকে নিয়ে কে কোথায় কি লিখে এসব আমি দেখি না। কেউ সামনে সমালোচনা করলে মাথা নিচু করে চলে যাই।'

পাকিস্তানে অনেক ক্রিকেটারের ভিড়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা না দেখে উসমান তিন বছর আগে পাড়ি দেন আমিরাতে। দেশটিতে নাগরিকত্বের সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে আর ৬ মাস পর। এখনো কেবল পাকিস্তানের নাগরিক হওয়ায় কদিন পর শুরু হতে যাওয়া আরব আমিরাত টি-টোয়েন্টি লিগে খেলা হচ্ছে না। তবে ৬ মাস পর তিনি পুরোপুরি সেদেশের ক্রিকেটার হিসেবে পরিচিতি পাবেন, 'আর ৬ মাস আছে তার কোফালিফাইড হওয়ার। আমার পরের মনোযোগ পিএসএল। আবুধাবি টি-টোয়েন্টিতে এবার যেতে পারছি না কারণ কোয়ালিফিকেশন প্রক্রিয়া শেষ হয়নি। ৬ মাস পর সংযুক্ত আরব আমিরাতের হয়ে আন্তর্জাতিক খেলার জন্য সে প্রস্তুত হবো।'

Comments