৯ মাসে বিদেশি ঋণের ব্যবহার বেড়েছে ৫৭ শতাংশ

চলতি অর্থবছরে বৈদেশিক ঋণের ব্যবহার ও প্রতিশ্রুতি বেড়ছে। অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে ঋণের ব্যবহার আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৫৭ শতাংশ বেড়েছে। একই সময়ে ঋণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি বেড়েছে ৩৭ শতাংশ।

চলতি অর্থবছরে বৈদেশিক ঋণ সহায়তার ব্যবহার ও প্রতিশ্রুতি বেড়ছে। অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে ঋণ সহায়তার ব্যবহার আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৫৭ শতাংশ বেড়েছে। একই সময়ে ঋণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি বেড়েছে ৩৭ শতাংশ।

চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে মার্চ পর্যন্ত সরকারের মন্ত্রণালয়গুলো বিদেশি উৎস্য থেকে আসা ঋণ সহায়তার ৬ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার ব্যবহার করতে পেরেছে যা আগের অর্থবছরে ছিল ৪ দশমিক ৩৮ বিলিয়ন ডলার। এই সময়ে ঋণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে ৫ দশমিক ৪৩ বিলিয়ন ডলার, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৩ দশমিক ৩৯ বিলিয়ন ডলার।

উন্নয়ন সহযোগী দেশ বা বহুজাতিক সংস্থার সঙ্গে যখন সরকারের ঋণ বা অনুদান চুক্তি সই হয় তখন তাকে প্রতিশ্রুতি হিসেবে ধরা হয়।

এ ব্যাপারে অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়নে এখনো যথেষ্ট দক্ষতা না বাড়লেও কোভিডেকালীন বাজেট সহযোগিতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বৈদেশিক ঋণের ব্যবহার বাড়ায় বেশি অর্থ ছাড় করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, এই সময়ে পুরোনো ঋণের আসল ও সুদ পরিশোধও বাড়িয়েছে সরকার। গত ৯ মাসে পরিশোধ করা হয়েছে ১ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার যার মধ্যে আসলই ১ দশমিক ১৮ বিলিয়ন ডলার। গত অর্থবছরে এর পরিমাণ ছিল ১ দশমিক ৪৫ বিলিয়ন ডলার।

Comments

The Daily Star  | English

US sanction on Aziz not under visa policy: foreign minister

Bangladesh embassy in Washington was informed about the sanction, he says

2h ago