এই কীর্তিতে বাবর আজমই প্রথম

ছেলেদের ক্রিকেটে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুইবার পুরস্কারটি জিতে অনন্য কীর্তি গড়লেন এ পাকিস্তানি।
ছবি: সংগৃহীত

ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অসাধারণ পারফর্ম করার পুরস্কার পেয়েছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। আইসিসির মার্চ মাসের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। ছেলেদের ক্রিকেটে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুইবার পুরস্কারটি জিতে অনন্য কীর্তি গড়লেন এ পাকিস্তানি।

গত বছরের জানুয়ারি থেকে মাস সেরা ক্রিকেটারের স্বীকৃতি দেওয়া শুরু করে আইসিসি। প্রথম তিন মাসে ভারতীয় ক্রিকেটাররা সেরা স্বীকৃতি পান। তবে এপ্রিলে এসে সে বলয় ভাঙেন বাবর। প্রথমবারের মতো হন মাস সেরা। এরপর একাধিকবার এ কীর্তি গড়াতেও প্রথম পাকিস্তানি অধিনায়ক। তবে মেয়েদের ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের হিদার নাইটের চলতি বছরের শুরুতে জিতেছিলেন দ্বিতীয়বারের মতো মাস সেরার পুরস্কার।

বেনো-কাদির টেস্ট সিরিজে উসমান খাওয়াজা ও আব্দুল্লাহ শফিকের পর তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন বাবর। পাঁচ ইনিংসে ব্যাট করে দুটি হাফসেঞ্চুরি ও একটি সেঞ্চুরিতে ৭৮ গড়ে তিনি করেন ৩৯৮ রান। তবে ওই সিরিজে ১৯৬ রানের একটি ম্যাচ বাঁচানো ইনিংসই এগিয়ে দেয় তাকে।

এরপর ওয়ানডে সিরিজেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বজায় রাখেন বাবর। প্রথম ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার পরের দুই ম্যাচে টানা দুটি সেঞ্চুরি হাঁকান। সেই দুই সেঞ্চুরিতে দুটি ম্যাচ জিতে ওয়ানডে সিরিজ নিজেদের করে নেয় পাকিস্তান। মূলত সেটারই পুরস্কার পেয়েছেন বাবর।

বাবরের পুরস্কার নিয়ে ভোটিং প্যানেলের সদস্য ড্যারেন গঙ্গা বলেন, 'বাবর আজম এই পুরস্কার শুধু পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ব্যাট হাতে দারুণ ইনিংস খেলার জন্যই পাচ্ছেন না, বরং এক ফরম্যাট থেকে আরেক ফরম্যাটে তার মানিয়ে নেওয়ার দারুণ ক্ষমতা তিনি দেখিয়েছেন টেস্টের পর ওয়ানডে সিরিজেও পারফর্ম করে। বিশেষ করে একজন অধিনায়ক হিসেবে ২৪ বছর পর অস্ট্রেলিয়াকে স্বাগত জানানোর চাপ একজন ব্যাটার ও অধিনায়ক হিসেবে খুব ভালোভাবে সামলেছেন তিনি।'

এছাড়া মার্চ মাসে মেয়েদের বিভাগে সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন সবশেষ নারী বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার র‍্যাচেল হেইন্স। আসরে ৮ ম্যাচে ৬১.২৮ গড়ে ৪২৯ রান করেন তিনি। প্রথম ম্যাচেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন ১৩০ রানের দারুণ এক ইনিংস।

আইসিসির ভোটিং একাডেমি ও ক্রিকেট সমর্থকদের যৌথ ভোটে নির্বাচন করা হয় মাসের সেরা ক্রিকেটার। ভোটিং একাডেমিতে থাকেন জ্যেষ্ঠ ক্রীড়া সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকাররা। ই-মেইলে ভোট দেন তারা। তবে আইসিসির নিবন্ধিত সমর্থকরাও ভোট দিতে পারেন আইসিসির ওয়েবসাইটে। সেরার বিবেচনায় সমর্থকদের ভোট নেওয়ার হয় শতকরা ১০ ভাগ।

Comments

The Daily Star  | English

Dozens injured in midnight mayhem at JU

Police fire tear gas, pellets at quota reform protesters after BCL attack on sit-in; journalists, teacher among ‘critically injured’

2h ago