সৌরভ জানেন না কোহলির মাথায় কী চলছে

বিরাট কোহলি মাঠে নামা মানেই ছিল যেন রানের ফোয়ারা! 

বিরাট কোহলি মাঠে নামা মানেই ছিল যেন রানের ফোয়ারা! কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বিস্ময়করভাবে রানখরায় ভুগছেন তিনি। ২০১৯ সালের নভেম্বরের পর কোনো সেঞ্চুরির দেখা পাননি। চলমান আইপিএলেও তাকে সংগ্রাম করতে হচ্ছে রানের জন্য। ভারত ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলিও বুঝতে পারছেন না কী হয়েছে কোহলির। তবে তার বিশ্বাস, শিগগিরই ফর্মে ফিরবেন সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটার।

আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ভারতের সাবেক অধিনায়ক কোহলি। সব মিলিয়ে ২১৬ ম্যাচে ৩৬.৪৩ গড়ে তার রান ৬৪১১। ৫ সেঞ্চুরির সঙ্গে ৪২ ফিফটি করেছেন তিনি। কিন্তু চলতি আসরে নিজের সামর্থ্যের প্রতি সুবিচার করতে পারছেন না কোহলি। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে ৯ ম্যাচে ১৬ গড়ে মাত্র ১২৮ রান করেছেন তিনি। নেই পঞ্চাশোর্ধ্ব কোনো ইনিংস। এমনকি টানা দুই ইনিংসে শূন্য রানে তিনি ফিরেছেন সাজঘরে। তার সবশেষ পাঁচটি ইনিংস যথাক্রমে ১, ১২, ০, ০ ও ৯।

কোহলির মতো ফর্মহীনতায় ভুগছেন রোহিত শর্মা। ভারতের তিন সংস্করণের ক্রিকেটের বর্তমান অধিনায়কও এবারের আইপিএলে স্বাদ পাননি কোনো হাফসেঞ্চুরির। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জার্সিতে ৮ ম্যাচে ১৯.১৩ গড়ে তার সংগ্রহ মোটে ১৫৩ রান। অথচ আইপিএলের সর্বকালের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। মোট ২২১ ম্যাচে ৩০.৬৬ গড়ে তিনি করেছেন ৫৭৬৪ রান।

কোহলি ও রোহিতকে নিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম নিউজ এইটিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অবশ্য আশার বাণী শুনিয়েছেন সৌরভ। ভারতের কিংবদন্তি সাবেক অধিনায়ক বলেছেন, 'তারা (কোহলি ও রোহিত) দুর্দান্ত খেলোয়াড় এবং আমি নিশ্চিত যে তারা ফর্মে ফিরে আসবে। আশা করি, তারা দ্রুতই রান করা শুরু করবে।'

ছন্দে ফিরতে ৩৩ বছর বয়সী কোহলিকে নানা রকমের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। কিছুদিন আগে ভারতের সাবেক প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী যেমন তাকে ক্রিকেট থেকে সাময়িক বিরতি নেওয়ার উপদেশ দিয়েছিলেন। কারণ, তার দৃষ্টিতে, অতিরিক্ত ক্রিকেট খেলে ফেলেছেন কোহলি। তবে বিসিসিআই প্রধান সৌরভ সে পথে হাঁটেননি। তিনি আস্থা রাখছেন কোহলির ওপর, 'আমি জানি না কোহলির মাথায় কী চলছে। কিন্তু আমি নিশ্চিত যে সে ফর্ম খুঁজে পাবে এবং গুরুত্বপূর্ণ কিছু রান করবে। সে অসাধারণ একজন খেলোয়াড়।'

Comments

The Daily Star  | English

PM's comment ignites protests across campuses

Hundreds of students from several public universities, including Dhaka University, took to the streets around midnight to protest what they said was a "disparaging comment" by Prime Minister Sheikh Hasina earlier in the evening

6h ago