ফিরে দেখা-২০২১: বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই শেষ হতে চললো আরও একটি বছর। ভালো-মন্দ মিলিয়ে নানা ঘটনায় আলোচিত ছিল ২০২১ সাল। দেশের অভ্যন্তরে যা-ই ঘটুক না কেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের জন্য বছরটা মন্দ যায়নি। এসেছে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কার ও পদক। বছর শেষে পুরনো অর্জনগুলোর দিকে একবার ফিরে তাকানো যাক।
ছবি: স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই শেষ হতে চললো আরও একটি বছর। ভালো-মন্দ মিলিয়ে নানা ঘটনায় আলোচিত ছিল ২০২১ সাল। দেশের অভ্যন্তরে যা-ই ঘটুক না কেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের জন্য বছরটা মন্দ যায়নি। এসেছে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কার ও পদক। বছর শেষে পুরনো অর্জনগুলোর দিকে একবার ফিরে তাকানো যাক।

বাংলাদেশি গবেষক ড. অঞ্জন দত্ত। ছবি: সংগৃহীত

নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনায় দ. এশিয়ার প্রথম আন্তর্জাতিক পুরস্কার পান ড. অঞ্জন দত্ত

নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য প্রফেসর ওয়াই পি অ্যাব্রল স্মৃতি পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশি গবেষক ড. অঞ্জন দত্ত। নেপালের মহেশ প্রধানের সঙ্গে যৌথভাবে তিনি এই পুরস্কার পান।

ইন্টারন্যাশনাল নাইট্রোজেন ইনিশিয়েটিভ (আইএনআই-২০২১) এর অষ্টম ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের অংশ হিসেবে গত ৩ জুন ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত এক বিশেষ অনুষ্ঠানে এই পুরস্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়। গ্লোবাল পার্টনারশিপ অন নিউট্রিয়েন্ট ম্যানেজমেন্টের (জিপিএনএম) প্রতিষ্ঠাতা স্থপতি ও সমন্বয়কারী হিসেবে নিজেদের কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তারা এই পুরস্কার পেয়েছেন।

কানে প্রদর্শনের পর স্ট্যান্ডিং ওভেশন (দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন ও হাততালি) পায় ‘রেহানা মারিয়ম নূর’। ছবি: সংগৃহীত

কান চলচ্চিত্র উৎসবে রেহানা মারিয়ম নূর

করোনা মহামারির মধ্যে থমকে গিয়েছিল দেশের চলচ্চিত্র শিল্প। তবে এর মধ্যেই ইতিহাস গড়ে নেয় বাংলাদেশের সিনেমা 'রেহানা মারিয়ম নূর'। এতদিন কান চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সাফল্য ছিল প্যারালাল বিভাগ 'ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট'-এ মনোনয়ন ও পুরস্কার পাওয়া। এবার তাকেও ছাড়িয়ে যায় 'রেহানা মরিয়ম নূর'।

২০০২ সালে কানের প্যারালাল বিভাগ 'ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট'-এ মনোনয়ন পেয়ে সমালোচক পুরস্কারও জিতেছিল তারেক মাসুদের 'মাটির ময়না'। তবে ৭৪তম কান চলচ্চিত্র আসরে প্যারালাল নয়, অফিসিয়াল বিভাগ 'আঁ সার্তেইন রিগার্দ'-এ স্থান পায় আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত ও আজমেরী হক বাঁধন অভিনীত এই সিনেমা। গত ৭ জুলাই কানে প্রদর্শনের পর সিনেমাটি স্ট্যান্ডিং ওভেশন (দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন ও হাততালি) পায়।

কিশোয়ার চৌধুরী (বামে)। ছবি: সংগৃহীত

মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার গ্র্যান্ড ফিনালে তৃতীয় কিশোয়ার

রান্না বিষয়ক জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো মাস্টারশেফ অস্ট্রেলিয়ার গ্র্যান্ড ফিনালেতে তৃতীয় হন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কিশোয়ার চৌধুরী। গত ১৩ জুলাই প্রতিযোগিতার ১৩তম আসরে প্রথম হন ভারতীয় বংশোদ্ভূত জাস্টিন নারায়ণ এবং দ্বিতীয় হন আরেক প্রতিযোগী পেট ক্যাম্পবেল। চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় জাস্টিন নারায়ণ ১২৫, পেট ক্যাম্পবেল ১২৪ এবং কিশোয়ার চৌধুরী ১১৪ পয়েন্ট অর্জন করেন।

সাবেক ঘরোয়া রাঁধুনি কিশোয়ার প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী খাবার 'পান্তা ভাত' পরিবেশন করেন। যেটি ওই শো-তে 'স্মোকড রাইস ওয়াটার' হিসেবে উপস্থাপন করা হয়।

মো. মারুফ হাসান, তাহমিদ হামীম চৌধুরী ও আদনান সাদিক। ছবি: সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে ৩ ব্রোঞ্জ পদক

প্রত্যাশা ঠিক মতো পূরণ না হলেও করোনা মহামারির দুঃসময়ে স্বস্তির খবর শোনায় বাংলাদেশের তরুণ শিক্ষার্থীরা। আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াড (আইএমও) থেকে এবার ৩টি ব্রোঞ্জপদক ও দুটি সম্মানজনক স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা।

গত ২৩ জুলাই আইএমও তাদের ওয়েবসাইটে পরীক্ষার ফল ঘোষণা করে। এ বছর ব্রোঞ্জপদক পেয়েছে ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজের শিক্ষার্থী মো. মারুফ হাসান এবং ঢাকার নটরডেম কলেজের তাহমিদ হামীম চৌধুরী ও আদনান সাদিক। এ ছাড়া, সম্মানজনক স্বীকৃতি পেয়েছে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নুজহাত আহমেদ এবং আনন্দমোহন কলেজের তাহজিব হোসেন খান।

ড. ফেরদৌসী কাদরী। ছবি: সংগৃহীত

ড. ফেরদৌসী কাদরীর হাতে র‌্যামন ম্যাগসেসে পুরস্কার

এ বছর এশিয়ার নোবেল খ্যাত র‌্যামন ম্যাগসেসে ২০২১ পুরস্কার পেয়েছেন আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরী। গত ৩১ আগস্ট ফিলিপাইন থেকে এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়।

'সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ, ইমিউনোলোজি, টিকার উন্নয়ন ও ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ওপর ড. ফেরদৌসীর অবদান আছে' উল্লেখ করে র‌্যামন ম্যাগসেসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে জানানো হয়—নিরাপদ পানি, স্যানিটেশন, শিক্ষা ও চিকিৎসার কম সুযোগ-সুবিধার কারণে এশিয়া ও আফ্রিকার দেশগুলোর প্রধান রোগ কলেরা ও টাইফয়েড। ড. ফেরদৌসী রোগ দুটি নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।

মাকসুদা আক্তার প্রিয়তি। ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাজ্যের 'টপ মডেল' মাকসুদা আক্তার প্রিয়তি

আইরিশ মডেল ও অভিনেত্রী হলেও বাংলাদেশে জন্ম মাকসুদা আক্তার প্রিয়তির। একেরপর এক আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করে দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন তিনি। এ বছর প্রিয়তি যুক্তরাজ্যের 'টপ মডেল-২০২১' প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর লন্ডনের দ্য রয়েল হর্সগার্ডস হোটেল অ্যান্ড ওয়ান হোয়াইট হলে এই প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত আসর অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়া, এ বছর ৭৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে অর্জনের খাতায় লেখা থাকবে প্রিয়তির নামও। এবারের কান চলচ্চিত্র উৎসবের একটি আলাদা প্যাভিলিয়ন থেকে মাকসুদা আক্তার প্রিয়তির হাতে উঠেছে টপ মডেলের অ্যাওয়ার্ড। এর আগে, তিনি মিস অয়ারল্যান্ড ও মিস আর্থ ইন্টারন্যাশনাল টাইটেলও জিতেছেন।

বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) ও ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামছুন্নাহার বেগম। ছবি: সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেল বিনা ও বিনা'র বিজ্ঞানী

এ বছর আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) ও ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামছুন্নাহার বেগম। মিউটেশন ব্রিডিংয়ে অবদানের জন্য 'অসাধারণ সফলতা' ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে বিনা। এ ছাড়া, প্ল্যান্ট মিউটেশন ব্রিডিং ও রিলেটেড বায়োটেকনোলজিতে অবদানের জন্য বিনা'র উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. শামছুন্নাহার বেগম 'উইমেন ইন প্ল্যান্ট মিউটেশন ব্রিডিং অ্যাওয়ার্ড' পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় আইএইএ'র প্রধান কার্যালয়ে সংস্থাটির মহাপরিচালক রাফায়েল মারিয়ানো গ্রসি অস্ট্রিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ আব্দুল মুহিতের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার হস্তান্তর করেন।

ফায়রুজ ফাইজা বিথার। ছবি: সংগৃহীত

গেটস ফাউন্ডেশনের পুরস্কার পেলেন ফাইরুজ

বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের ২০২১ সালের 'গোলকিপার্স গ্লোবাল গোল চেঞ্জমেকার' পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশি তরুণী ফায়রুজ ফাইজা বিথার। গত ২১ সেপ্টেম্বর এ পুরস্কারের ঘোষণা দেয় গেটস ফাউন্ডেশন। ফাইরুজ অনলাইন প্ল্যাটফর্ম মনের স্কুলের সহপ্রতিষ্ঠাতা। স্কুলটি প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য ছিল মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং সারা দেশে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা সমানভাবে নিশ্চিত করা।

গেটস ফাউন্ডেশন জানায়, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বা নেতৃত্ব দিয়ে সামাজিক পরিবর্তনকে অনুপ্রাণিত করার স্বীকৃতিস্বরূপ চেঞ্জমেকার অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে (এসডিজি) সহায়তা করছে এমন ব্যক্তিদের বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এ পুরস্কার দেয়।

শাহানা হানিফ। ছবি: সংগৃহীত

নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে জয়ী শাহানা হানিফ

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নারী শাহানা হানিফ। গত ২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ব্রুকলিনে বাংলাদেশিসহ স্প্যানিশ, জুইশ অধ্যুষিত কেনসিংটন, পার্ক স্লোপ এবং সেন্ট্রাল ব্রুকলিন নিয়ে গঠিত কাউন্সিল ডিসট্রিক্ট-৩৯ থেকে জয়ী হন শাহানা হানিফ।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শাহানা হানিফের পৈত্রিক নিবাস চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায়। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের অন্যতম উপদেষ্টা মোহাম্মদ হানিফের জ্যেষ্ঠ কন্যা শাহানা হানিফ দীর্ঘদিন ধরে ব্রুকলিনের রাজনীতিতে সক্রিয়। মাঠের রাজনীতিতে তিনি প্রগতিশীল যুব প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে পরিচিত।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম। ছবি: সংগৃহীত

'ফ্রি প্রেস অ্যাওয়ার্ড' পেলেন সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম

সাহসী সাংবাদিকতার জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছেন প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলাম, যিনি বাংলাদেশে করোনাকালে স্বাস্থ্য খাতের অনিয়ম তুলে ধরতে গিয়ে নিগ্রহ, নির্যাতন ও মামলার শিকার হয়েছেন। গত ৩ নভেম্বর নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামভিত্তিক সংস্থা ফ্রি প্রেস আনলিমিটেড তাকে এ বছরের 'ফ্রি প্রেস অ্যাওয়ার্ড-২০২১' দিয়েছে।

তিনি পুরস্কারটি পেয়েছেন সেরা অদম্য সাংবাদিক বা মোস্ট রেজিলিয়েন্ট জার্নালিস্ট শ্রেণিতে। মুক্ত সাংবাদিকতার জন্য লড়াই করা সাংবাদিকদের এই পুরস্কার দেওয়া হয়। গত বছর একই পুরস্কার পেয়েছিলেন এ বছর শান্তিতে নোবেল পাওয়া ফিলিপাইনের সাংবাদিক মারিয়া রেসা।

স্থপতি মেরিনা তাবাসসুম। ছবি: সংগৃহীত

স্থপতি মেরিনার হাতে আন্তর্জাতিক সন পদক

জলবায়ু ও শরণার্থীদের জন্য স্বল্প খরচে অস্থায়ী বাড়ির নকশা নির্মাণের জন্য যুক্তরাজ্যের মর্যাদাপূর্ণ সন পদক-২০২১ জিতে নিয়েছেন বাংলাদেশের স্থপতি মেরিনা তাবাসসুম। একজন স্থপতিকে তার কাজের মূল্যায়ন ও স্বীকৃতিস্বরূপ প্রতিবছর এ পুরস্কারে ভূষিত করে লন্ডনের স্যার জন সন জাদুঘর কর্তৃপক্ষ। গত ১৭ নভেম্বর তাকে এ পুরস্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়।

ঢাকার দক্ষিণখানে অবস্থিত বায়তুর রউফ মসজিদের অসাধারণ স্থাপত্য কৌশল ও নকশার জন্য ২০১৬ সালে আগা খান স্থাপত্য পুরষ্কার পেয়েছিলেন মেরিনা তাবাসসুম। তিনি ১৯৬৯ সালে রাজধানী ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা একজন চিকিৎসক ছিলেন। ১৯৯৫ সালে মেরিনা স্থাপত্য বিদ্যায় স্নাতক সম্পন্ন করেন।

বিজ্ঞানী ফারহানা সুলতানা। ছবি: সংগৃহীত

পাট থেকে প্যাড: ইনোভেশন পিচ প্রতিযোগিতায় প্রথম ফারহানা সুলতানা

পাটের সেলুলোজভিত্তিক স্যানিটারি প্যাড তৈরির যন্ত্র উদ্ভাবনের প্রস্তাবের জন্য চতুর্থ ইনোভেশন পিচ প্রতিযোগিতায় গ্র্যান্ড পুরষ্কার জিতেছেন আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর'বি) সহকারী বিজ্ঞানী ফারহানা সুলতানা।

গত ২৩ নভেম্বর আইসিডিডিআর'বির অফিসিয়াল ফেসবুকে পেজে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। একইসঙ্গে তিনি ২০২২ সালে অনুষ্ঠেয় পঞ্চম ইনোভেশন পিচ প্রতিযোগিতায় বিচারক হবেন। আমেরিকান সোসাইটি ফর ট্রপিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড হাইজিন (এএসটিএমএইচ) এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

লেবার পার্টির সাবরিন ফারুকী এবং লিবারেল পার্টির সাজেদা আক্তার সানজিদা। ছবি: সংগৃহীত

অস্ট্রেলিয়ায় কাউন্সিলর নির্বাচিত ২ বাংলাদেশি নারী

প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ২ নারী। তারা হলেন, লেবার পার্টির সাবরিন ফারুকী এবং লিবারেল পার্টির সাজেদা আক্তার সানজিদা।

এ বছর অস্ট্রেলিয়ায় কাউন্সিলর নির্বাচনে ৩০ জন বাংলাদেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাদের মধ্যে ৪ জন প্রার্থী ছিলেন নারী। গত ৪ ডিসেম্বর নিউসাউথ ওয়েলস রাজ্যের ১২৪টি শহরে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

বডিবিল্ডার মাকসুদা আক্তার। ছবি: সংগৃহীত

বডিবিল্ডিংয়ে মাকসুদার আন্তর্জাতিক পদক

প্রথমবার আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েই পদক জিতে নেন বাংলাদেশের নারী বডিবিল্ডার মাকসুদা আক্তার। গত ৫ ডিসেম্বর ভারতের মুম্বাইয়ে আইএইচএফএফ অলিম্পিয়া অ্যামেচার বডিবিল্ডিং চ্যাম্পিয়নশিপে তৃতীয় রানার্সআপ হন তিনি।

এই প্রতিযোগিতায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৩০ জন বডিবিল্ডার অংশ নেন। এতে 'ওমেন ফিজিক' শ্রেণিতে অংশ নেন বাংলাদেশের মাকসুদা।

ড. মুহাম্মদ ইউনূস। ছবি: সংগৃহীত

'চ্যাম্পিয়ন অব গ্লোবাল চেঞ্জ' পুরস্কার পেলেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস

জাতিসংঘ ফাউন্ডেশনের এ বছরের 'চ্যাম্পিয়ন অব গ্লোবাল চেঞ্জ' পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস। বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার মহাপরিচালক এনগোজি ওকনজো-ইওয়েইলার সঙ্গে যৌথভাবে তিনি এ পুরস্কার পান।

ইউনূস সেন্টারের পাঠানো বিবৃতিতে জানানো হয়, গত ৯ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। মানুষের মর্যাদা, সমতা ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় অসামান্য নেতৃত্ব ও উদ্ভাবনের স্বীকৃতিস্বরূপ ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

টিম ‘মহাকাশ’। ছবি: সংগৃহীত

টিম 'মহাকাশ'র নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ জয়

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র আয়োজিত 'নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ' প্রতিযোগিতায় 'বেস্ট মিশন কনসেপ্ট' ক্যাটাগরিতে বিজয়ী হয়েছে বাংলাদেশের টিম 'মহাকাশ'। গত ১১ ডিসেম্বর এই প্রতিযোগিতায় ফল ঘোষণা করা হয়। এতে ১৬২টি দেশ থেকে ২৮ হাজারের বেশি প্রতিযোগী অংশ নেন।

টিম 'মহাকাশ'-এ ছিলেন বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির বার্নিতা বসাক ত্রিশা ও মো. মোমেনুল হক এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সুমিত চন্দ, সামির ইমতিয়াজ, শিশির কেয়ারী ও আলভি রওনক।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.34 and Tk 0.70 a unit from March, which according to experts will have a domino effect on the prices of essentials ahead of Ramadan.

6h ago