৫৭ প্রবাসী বাংলাদেশি ‘সিআইপি’

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৫৭ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে সিআইপি (বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) নির্বাচিত করেছে সরকার।
সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপি। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৫৭ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে সিআইপি (বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) নির্বাচিত করেছে সরকার।

গত বুধবার প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে ২০১৯ সালের জন্য ৩টি আলাদা ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপি তালিকা প্রকাশ করা হয়।

তালিকায় বৈধ চ্যানেলে বাংলাদেশে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী ক্যাটাগরিতে ৪৭ জন, বিদেশে বাংলাদেশি পণ্যের আমদানিকারক ক্যাটাগরিতে ৯ জন এবং বাংলাদেশে শিল্পক্ষেত্রে সরাসরি বিনিয়োগকারী ক্যাটাগরিতে ১ জন প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন।

ওমান থেকে নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপি। ছবি: সংগৃহীত

৩ ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত সিআইপিদের মধ্যে ৩৭ জন মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী। বাকিদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ৩ জন, যুক্তরাজ্য, জাপান, ইতালি, রাশিয়া, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডের ২ জন করে এবং কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, সিংগাপুর, মালদ্বীপ ও কম্বোডিয়ার ১ জন করে প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে সবচেয়ে বেশি ২৬ জন প্রবাসী বাংলাদেশি সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ২ জন নারী রয়েছেন। এরপরেই রয়েছে ওমান। দেশটি থেকে সিআইপি হয়েছেন ৯ জন।

নব নির্বাচিত এই ৫৭ জন সিআইপির মধ্যে সর্বোচ্চ ১৮ জন চট্টগ্রাম জেলার সন্তান।

'বৈধ চ্যানেলে সর্বাধিক বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী' ক্যাটাগরিতে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে সিআইপি হয়েছেন মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান, মোহাম্মদ মাহাবুব আলম, ওমর ফারুক, মোহাম্মদ মনির হোসেন, সাইফুল ইসলাম, ফখরুল ইসলাম, আবুল কালাম, রিপন দত্ত, আবদুল হালিম, ইব্রাহিম ওসমান আফলাতুন, মোহাম্মদ আশফাকুর রহমান, মোহাম্মদ সেলিম, মোহাম্মদ আইয়ুব আলী বাবুল, আবদুল গণি চৌধুরী, মোরশেদুল ইসলাম, মো. ইউনুছ মিয়া চৌধুরী, মোসাম্মৎ জেসমিন আক্তার, নিগার সুলতানা, মোহাম্মদ আবু জাফর চৌধুরী, মতিউর রহমান, মো. ফরিদ আহমেদ, মো. ইজাজ হোসেন, মোহাম্মদ এহসানুর রহমান ও খোরশেদ আলম।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপি। ছবি: সংগৃহীত

আরব আমিরাতের আল হারামাইন পারফিউমস গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান নাসির বিগত বেশ কয়েক বছরের মতো এবারও সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্সে পাঠিয়ে শীর্ষ এনআরবি-সিআইপি হয়েছেন। তিনি বাংলাদেশের এনআরবি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও প্রবাসীদের শীর্ষ সংগঠন এনআরবি-সিআইপি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির দায়িত্বে আছেন।

একই ক্যাটাগরিতে ওমান থেকে সিআইপি হয়েছেন মোহাম্মদ ইয়াসিন চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আশরাফুর রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, মো. তৌহিদুল আলম, মোহাম্মদ বাদশা মিয়া, মোহাম্মদ কবীর আহমেদ, পারভেজ মোহাম্মদ আমানুল্লাহ চৌধুরী, মো. নুরুল আমিন ও আবদুল করিম। এর মধ্যে চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সভাপতি মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী মোট ৬ বার সিআইপি নির্বাচিত হলেন।

এ ছাড়াও, এই ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ কামরুজ্জামান (থাইল্যান্ড), ফারুকী হাসান (কানাডা), মোহাম্মদ আবদুর রহিম (যুক্তরাজ্য), কাজী সারওয়ার হাবীব (জাপান), কল্লোল আহমেদ (যুক্তরাষ্ট্র), এস এম পারভেজ তমাল ( রাশিয়া), মোহাম্মদ আলমগীর জলিল (রাশিয়া),  ইকরাম ফরাজী (যুক্তরাজ্য), মোহাম্মদ আজাদুর রহমান (সিঙ্গাপুর), লুৎফুর রহমান মুন্সী (ইতালি), মো. মঞ্জুরুল হোসেন (অস্ট্রেলিয়া), ইফতেখারুল আলম (যুক্তরাষ্ট্র), আব্দুল আজিজ খান (কাতার), মোহাম্মদ আলম (সৌদি আরব) সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।

বিদেশে বাংলাদেশি পণ্যের সর্বাধিক আমদানিকারক ক্যাটাগরিতে সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদ আকতার হোসেন (মালয়েশিয়া), মোহাম্মদ ওয়াহিদুল ইসলাম (ইউএই), নজরুল ইসলাম (ইতালি), মোহাম্মদ সেলিম (ইউএই), শেখ মঞ্জুর মোরশেদ (জাপান), মারুফা আহমেদ (যুক্তরাষ্ট্র), রফিকুল ইসলাম (মালয়েশিয়া), কিবরিয়া নাইম (থাইল্যান্ড) এবং মোহাম্মদ সোহেল রানা (মালদ্বীপ)।

বাংলাদেশে শিল্পক্ষেত্রে সরাসরি বিনিয়োগকারী ক্যাটাগরিতে একমাত্র হিসেবে সিআইপির মর্যাদা পেয়েছেন কম্বোডিয়া প্রবাসী বাংলাদেশি আবুল খায়ের মিয়া।

আগামী ১৮ ডিসেম্বর ঢাকায় আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসের অনুষ্ঠানে নির্বাচিত প্রবাসী সিআইপিদের সনদ প্রদান করার কথা রয়েছে।

২ বছরের জন্য নির্বাচিত এনআরবি-সিআইপিদের সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে—সরকারের দেওয়া পরিচয়পত্র দিয়ে সচিবালয়ে প্রবেশ, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারি বিভিন্ন নীতিনির্ধারণী কমিটিতে সদস্য হওয়ার  যোগ্যতা, দেশে-বিদেশে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অগ্রাধিকার, জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিবসগুলোতে বিদেশে বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে অতিথি এবং বাংলাদেশে উপস্থিত থাকলে বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান এবং সিটি করপোরেশন কর্তৃক নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ পাবেন।

এ ছাড়াও, এনআরবি সিআইপিরা উড়োজাহাজ, রেল, সড়ক ও জলযানে আসন সংরক্ষণে অগ্রাধিকার পাবেন, বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ ও স্পেশাল হ্যান্ডলিংয়ের সুবিধা পাবেন এবং তারা স্ত্রী, সন্তানসহ চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

প্রবাসী সিআইপিরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মতোই সুযোগ-সুবিধাও পাবেন।

Comments

The Daily Star  | English

Fixed expenses to eat up 40pc of next budget

The government has to spend about 40 percent of the next budget on subsidies, interest payments, and salaries and allowances of government employees, which will limit its ability to spend on social safety net, health and education.

58m ago