কনে না পেয়ে প্রকৌশলীর রোবটকে বিয়ে

বিয়ে করা যেন দিনে দিনে জটিল হয়ে পড়ছে এই নাগরিক জীবনে। ঐতিহ্য অনুযায়ী, সন্তানদের মা-বাবা অথবা অভিভাবকরাই বর-কনে খুঁজে নেন। কিন্তু, তেমন কপাল সবার না-ই হতে পারে।
robot-web-1
বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে রোবট ‘স্ত্রী’-কে কোলে তুলে নিলেন চীনা প্রকৌশলী ঝেং জিয়াজিয়া। ছবি: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট

বিয়ে করা যেন দিনে দিনে জটিল হয়ে পড়ছে এই নাগরিক জীবনে। ঐতিহ্য অনুযায়ী, সন্তানদের মা-বাবা অথবা অভিভাবকরাই বর-কনে খুঁজে নেন। কিন্তু, তেমন কপাল সবার না-ই হতে পারে।

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় চাকুরিজীবী মানুষগুলো জীবনসঙ্গী নিয়ে যতটা না ভাবার সুযোগ পান তার চেয়ে বেশি ভাবতে চান পেশাগত জীবনের উন্নতি নিয়ে। এ অবস্থায় যুতসই সঙ্গী খোঁজার দায়িত্বটাকে মনে হয় যেন বোঝার ওপর শাকের আঁটি।

এমনই একজন হতভাগার নাম ঝেং জিয়াজিয়া। একত্রিশ বছর বয়সী চীনা নাগরিক ঝেং পেশায় একজন প্রকৌশলী। পাত্র হিসেবে যখন মেয়ে পক্ষের অভিভাবকরা ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ারদের প্রাধান্য দেন তখন বিয়ের বাজারে তাঁর জন্য কনে পাওয়া খুব কষ্টকর হওয়ার কথা নয়। কিন্তু, বিধি বাম। কনে খুঁজে খুঁজে ক্লান্ত এই প্রকৌশলীকে গত শুক্রবার বিয়ে করতে হলো একটি রোবটকে।

এক প্রতিবেদনে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট আজ জানায়, কনে খুঁজে ব্যর্থ এই প্রকৌশলী রোবটটি তৈরি করেন এবং হতাশায় হাল ছেড়ে দিয়ে সেই ‘রোবটি’-কেই ৩১ মার্চ ‘বিয়ে’ করেন তিনি।

ঘটনাটি ঘটেছে চীনের ঝেজিয়াং প্রদেশের হাংঝু শহরে। গত বছর আর্টিফিশাল ইন্টেলিজেন্স বিশেষজ্ঞ ঝেং নিজেই এই ‘নারী’ রোবটটি ডিজাইন করেন। এর নাম রাখেন ‘ইনজিং’। মজার ব্যাপার হলো, অল্প অল্প করে চীনা ভাষা পড়তে ও বলতে পারে এই রোবটটি।

ঝেংয়ের এক বন্ধুর বরাত দিয়ে পত্রিকাটি আরও জানায়, কোন কনে খুঁজে না পেয়ে ঝেং ভীষণভাবে হতাশ হয়ে পড়ে।

এখন সে তাঁর রোবট ‘স্ত্রী’-কে আপগ্রেড করবে যাতে সে হাঁটতে পারে এবং ঘরের কাজে তাঁকে সহযোগিতা করতে পারে।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students terrified over attack on foreigners in Kyrgyzstan

Mobs attacked medical students, including Bangladeshis and Indians, in Kyrgyzstani capital Bishkek on Friday and now they are staying indoors fearing further attacks

4h ago