বিশৃঙ্খলা ও হট্টোগোলে ডিম মেলা ভণ্ডুল

‘ডিম চাই ডিম চাই, ডিম নাই ডিম নাই’

রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ডিম মেলায় বিশৃঙ্খলা ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। হাজার হাজার মানুষ ডিম কিনতে এসে খালি হাতে ফিরে গেছেন। এসময় অনেকেই আয়োজকদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। ফলে ভণ্ডুল হয়ে গেছে ডিম মেলা।

রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ডিম মেলায় বিশৃঙ্খলা ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। হাজার হাজার মানুষ ডিম কিনতে এসে খালি হাতে ফিরে গেছেন। এসময় অনেকেই আয়োজকদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। ফলে ভণ্ডুল হয়ে গেছে ডিম মেলা।

আজ সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত মেলা চলার কথা থাকলেও মেলা শুরু হওয়ার ২০ মিনিটেই বেশিরভাগ ডিম শেষ হয়ে যায়। ডিম না পেয়ে উত্তেজিত জনতা প্যান্ডেল ও ডিমের কেস ভাংচুর করেন। পরে পুলিশ এসে লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও ডিম বিক্রি আর সম্ভব হয়নি। এসময় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটের বাইরে জড়ো হওয়া হাজার হাজার মানুষ ‘ডিম চাই ডিম চাই, ডিম নাই ডিম নাই’, ‘ডিম চোর ডিম চোর, কর্তৃপক্ষ ডিম চোর’ স্লোগান দিতে থাকেন।

ডিম না পেয়ে জনতার বিক্ষোভ। ছবি: একুশ তাপাদার

বিশৃঙ্খলা শুরু হওয়ার পর মেলার আয়োজকদের আর সেখানে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে একজনকে পাওয়া গেলেও তিনি ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি। ডিমের অপ্রতুলতার কথা স্বীকার করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ওই কর্মকর্তা দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “আমরা ভাবিনি ডিম মেলায় এত মানুষের সাড়া পড়বে। এই অভিজ্ঞতা নিয়ে আগামীতে আরও বড় আকারে আয়োজনের চেষ্টা হবে।”

বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল এবং সরকারের প্রাণিসম্পদ অধিদফতর যৌথভাবে ডিম মেলার আয়োজন করেছিল। ঘোষণায় বলা হয়, প্রতিটি ডিম মাত্র তিন টাকায় দেওয়া হবে। একজন সর্বোচ্চ ডিম নিতে পারবেন ৯০টি। অল্প দামে ডিম দেওয়া হবে, মূলত এই আশাতেই হাজারো মানুষ ভিড় জমান।

কম দামে ডিম পাবার আশায় বালতি নিয়েও এসেছিলেন একজন। ছবি: একুশ তাপাদার

মেলায় যাওয়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানান, কম দামে ডিম পাওয়ার আশায় তিনি সকাল ৬টা থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। কিন্তু তার সুযোগ আসার আগেই হট্টগোল বেধে যায়। ফলে শেষ পর্যন্ত খালি হাতে তাকে ফিরতে হয়েছে। এর জন্য আয়োজকদের অব্যবস্থাপনাকেই দায়ী করেছেন তিনি।​

মেলায় গিয়ে দেখা যায়, ডিম নিতে যাওয়া মানুষের সারি কৃষিবিদ ইনস্টিউট থেকে মনিপুরি পাড়া পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছায়। মানুষের ভিড়ে খামার বাড়ি থেকে ফার্মগেট পুলিশ বক্স পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসময় সেখানে থাকা অনেকেই বাইরে থেকে ডিম কিনে নিয়ে গিয়ে পুলিশ ও আয়োজকদের লক্ষ্য করে ছুঁড়তে শুরু করে। লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে অনেক ডিম আবার বিক্ষুব্ধ জনতার ওপরই গিয়ে পড়ে, শুরু হয় চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

আয়োজকদের পক্ষ থেকে মাইকে বলে দেওয়া হয়, আজকে আর ডিম বিক্রি করা হবে না।

Comments