ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি, সহজ ঋণ সুবিধা

দেশে গাড়ি বিক্রি বাড়ছে

মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি ও সহজ ঋণ সুবিধার কারণে দেশে গাড়ি বিক্রির হার বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যাংক ও গাড়ি শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।
car sales
রাজধানীর একটি গাড়ি বিক্রয় কেন্দ্র। ছবি: স্টার

মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি ও সহজ ঋণ সুবিধার কারণে দেশে গাড়ি বিক্রির হার বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যাংক ও গাড়ি শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের একটি বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২০১৬ সালে দেশে গাড়ি বিক্রি হয়েছিলো ১,৪১৩ কোটি টাকার, যা এর আগের বছরের তুলনায় ২২.৩৬ শতাংশ বেশি। এদিকে, গত বছর গাড়ি ঋণ গ্রহণকারীর সংখ্যা ১৭.৫২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪,৭০২ জনে।

ব্যাংক কর্মকর্তাদের মতে, গত দুই বছরে গাড়ি ঋণের সুদের হার কমায় মানুষের মধ্যে গাড়ি কেনার প্রবণতা বেড়েছে। আগে এই ধরণের ঋণে সুদ দিতে হতো ১৫ থেকে ১৬ শতাংশ। এখন এর হার কমে ১০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমএ হালিম চৌধুরী বলেন, মধ্যবিত্তের ক্রয় ক্ষমতা যথেষ্ট বেড়েছে বলে গাড়ির চাহিদাও বেড়েছে।

পূবালী ব্যাংকের অন্যান্য ব্যবসার পাশাপাশি রয়েছে কাস্টমার ফিন্যান্সিং যার একটি বড় অংশ দেওয়া হয় অটোমোবাইল খাতে। গত জুনে এ ব্যাংক থেকে ৫৬ কোটি টাকা গাড়ি ঋণ হিসেবে দেওয়া হয়েছে।

তাঁর মতে, অন্যান্য ঋণের তুলনায় গাড়ি ঋণের টাকা আদায়ের হার বেশি। গত মাসে ব্যাংকটির গাড়ি ঋণের ৪৯ কোটি টাকা আদায় করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বেসরকারি চাকরিজীবী, বিশেষ করে ব্যাংকিং খাতে কর্মরত ব্যক্তিরা গাড়ি বিক্রির এই হার বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছেন। এছাড়াও, ব্যাংকের মধ্যম সারির কর্মকর্তাদের গাড়ি দেওয়া হয়।

রিকন্ডিশন্ড গাড়ির আমদানিকারক ও পরিবেশকদের সংগঠন (বারভিদা)-র মতে, দেশে এ বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত নিবন্ধনকৃত প্রাইভেট কারের সংখ্যা সাড়ে তিন লাখ।

সংগঠনটির দেওয়া তথ্য মতে, প্রতি বছর গড়ে ১৫,০০০ প্রাইভেট কার আমদানি করা হয়। বর্তমানে দেশে গাড়ির বাজার রয়েছে ৪,০০০ কোটি টাকা থেকে ৫,০০০ কোটি টাকার। প্রতি বছর এর হার শতকরা ১৫-২০ শতাংশ হারে বাড়ছে।

মধ্যবিত্ত পরিবারের সংখ্যা বাড়ার কারণে গাড়ির এই বাজার সৃষ্টি হয়েছে। বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের এক গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিবছর ২০ লাখ বাংলাদেশি মধ্যবিত্ত এবং উচ্চবিত্তের তালিকায় যোগ হচ্ছেন।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসেবে গত বছর দেশে মাথাপিছু আয়ের পরিমাণ ছিলো ১,৬০২ ডলার, যা এক দশক আগেও ছিলো ৫০০ ডলার। ক্রমবর্ধমান নগরায়ণ ও মধ্যবিত্তের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে গাড়ি ঋণের নতুন চাহিদা তৈরি হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, ৩৬টির বেশি প্রাইভেট বাণিজ্যিক ব্যাংকের গাড়ি ঋণের হার গত তিন বছরে বেড়েছে গড়ে ৪৪.২৫ হারে।

Click here to read the English version of this news

Comments

The Daily Star  | English

Sundarbans: Bangladesh's shield against cyclones

The coastline of Bangladesh has been hammered by cyclones over and over since time immemorial

26m ago