সুইমিং পুলের পানিতে মূত্র থাকার কথা আর গোপন রইল না!

এতদিন সবার অগোচরে ঘটছিল এই ঘটনা। তবে এটা যে ঘটছিল সে ব্যাপারে অনেকই প্রায় নিশ্চিত ছিলেন। সম্প্রতি এক গবেষণায় এ ব্যাপারে প্রমাণও পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আর সেটা হলো সুইমিং পুলে সাঁতার কাটতে নেমে এর স্বচ্ছ পানিতে অনেকেই মূত্র ত্যাগ করছেন।
ছবি: এএফপি

এতদিন সবার অগোচরে ঘটছিল এই ঘটনা। তবে এটা যে ঘটছিল সে ব্যাপারে অনেকই প্রায় নিশ্চিত ছিলেন। সম্প্রতি এক গবেষণায় এ ব্যাপারে প্রমাণও পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আর সেটা হলো সুইমিং পুলে সাঁতার কাটতে নেমে এর স্বচ্ছ পানিতে অনেকেই মূত্র ত্যাগ করছেন।

তবে প্রমাণ সাইজের একটি সুইমিং পুলে ঠিক কত পরিমাণ মূত্র থাকতে পারে? নতুন এক গবেষণায় এর উত্তর মিলেছে। গবেষকরা বলছেন একটি পাবলিক পুলের পানিতে এর পরিমাণ ৭৫ লিটার পর্যন্ত হতে পারে।

সাধারণ মানুষ তো বটেই এমন কাণ্ড করতে বাদ যান না পেশাদার সাঁতারুরাও। সম্প্রতি বেশ কয়েকজন অলিম্পিক সাঁতারু স্বীকার করেছেন যে তাঁরা পুলে মূত্র ত্যাগ করেছেন।

মূত্রের পরিমাণ জানতে পুলের পানিতে রাসায়নিক সুইটনার, অ্যাসিসালফেম পটাশিয়াম (এসিই) এর মাত্রা বের করেছেন বিজ্ঞানীরা। এই রাসায়নিক পদার্থগুলো খাবারের মাধ্যমে শরীরে প্রবেশ করে মূত্রের মাধ্যমে বেরিয়ে যায়।

কানাডার দুটি পাবলিক পুলে তিন সপ্তাহ গবেষণা চালিয়ে বিজ্ঞানীরা দেখেছেন আট লাখ ৩০ হাজার লিটার পানির পুলে (অলিম্পিক পুলের তিন ভাগের এক ভাগ) সাঁতারুরা ৭৫ লিটার মূত্র ত্যাগ করেছেন। আর এর অর্ধেক আকারের পুলে পাওয়া যায় ৩০ লিটার মূত্র।

গবেষক দলের প্রধান আলবার্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েট লিন্ডসে ব্ল্যাকস্টক বলেন, “এই গবেষণায় আমরা প্রমাণ পেয়েছি লোকজন পাবলিক পুল ও গরম পানির টাবে মূত্র ত্যাগ করে থাকেন।”

Comments