হেল্পলাইনে গ্রাহক ঠকানোয় বাংলালিংকের জরিমানা

মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংককে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। হেল্পলাইন কলসেন্টারে গ্রাহক ঠকানোর অভিযোগে অপারেটরটিকে এই জরিমানা করা হয়।

মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংককে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। হেল্পলাইন কলসেন্টারে গ্রাহক ঠকানোর অভিযোগে অপারেটরটিকে এই জরিমানা করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের আহমদ আলী মুন নামের এক গ্রাহকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে রবিবার জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে শুনানি শেষে এর ডেপুটি পরিচালক মো আব্দুল জব্বার বাংলালিংককে জরিমানা করেন।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি মুন তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, ২৭ জানুয়ারি রাত ৮টার দিকে তিনি বাংলালিংক কল সেন্টারে ফোন করেন। এক ঘণ্টা ২৯ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড অপেক্ষা করলেও কল সেন্টার থেকে কেউ ফোন ধরেনি। কোন সেবা না পেলেও অপারেটরটি তার কাছ থেকে ৫৪.৭৯ টাকা কেটে রাখে।

অভিযোগে মুন বলেন, তিনি ও অন্য গ্রাহকরা সেবা পেতে টাকা দিলেও কোন সেবা না দিয়েই তাদের টাকা কেটে রাখা হচ্ছে।

দুই পক্ষের বক্তব্য শোনার পর অধিদপ্তরের ডেপুটি পরিচালক আব্দুল জব্বার মোট জরিমানার ২৫ শতাংশ টাকা অভিযোগকারীকে ক্ষতিপূরণ বাবদ দিতে বাংলালিংককে নির্দেশ দেন।

বাংলালিংক-এর হেড অব কর্পোরেট কমিউনিকেশন আসিফ আহমেদ বলেন, “বাংলালিংক সবসময় গ্রাহকদের সেরা মানের সেবা নিশ্চিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর-এর (ডিএনসিআরপি) কাছ থেকে আমরা ২৫,০০০ টাকা জরিমানার নির্দেশনাটি পেয়েছি।”

তিনি দাবি করেন, “বাংলালিংক ডিএনসিআরপি-এর আদেশের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করে। তবে আমরা বিশ্বাস করি যে, বাংলালিংক গ্রাহক সেবার মানের কোন ব্যত্যয় ঘটায় নাই এবং কোন গ্রাহকের অধিকার ক্ষুন্ন করেনি।”

এর আগে ফেব্রুয়ারি মাসে ইন্টারনেট প্যাকেজ নিয়ে অভিযোগে গ্রামীণফোন ও রবিকেও জরিমানা করেছিল জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

বিজ্ঞাপনে দেওয়া প্রতিশ্রুতি ও বাস্তবতার গরমিল পাওয়ায় রবিকে পাঁচ হাজার টাকা ও গ্রামীণফোনকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা করা হয় তখন।

Click here to read the English version of this news

Comments