২৪ ঘণ্টাই চলবে বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্ত-বাণিজ্য

ভারত-বাংলাদেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম স্থলসীমান্ত বন্দর বেনাপোল-পেট্রাপোল দিয়ে আজ (১ আগস্ট) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ২৪ ঘণ্টার আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে।
Benapole Landport
১ আগস্ট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ২৪ ঘণ্টার আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে ভারত-বাংলাদেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম স্থলসীমান্ত বন্দর বেনাপোল-পেট্রাপোল দিয়ে। ছবি: স্টার

ভারত-বাংলাদেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম স্থলসীমান্ত বন্দর বেনাপোল-পেট্রাপোল দিয়ে আজ (১ আগস্ট) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ২৪ ঘণ্টার আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে।

এখন থেকে বাংলাদেশের ছুটির দিন শুক্রবার এবং ভারতের ছুটির দিন রবিবারসহ বছরের ৩৬৫ দিন এই সীমান্ত দিয়ে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য অব্যাহত থাকবে।

গতকাল (৩১ জুলাই) পর্যন্তও সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত মাত্র ১২ ঘণ্টা সময় পণ্যবাহী ট্রাক দুই দেশে আসা-যাওয়া করতো। ফলে উভয় দেশের পণ্য খালাসের জন্য হাজার হাজার ট্রাক লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতো। এতে পণ্য নষ্ট হওয়া ছাড়াও পার্কিংয়ের জন্যে অতিরিক্ত খরচ করতে হতো ব্যবসায়ীদের। আর তাই আমদানি-রফতানি হওয়া পণ্যে অতিরিক্ত টাকা গুণতে হতো সাধারণ ক্রেতাদেরও। নতুন ব্যবস্থাপনা চালু হওয়ায় সবপক্ষই কমবেশি লাভবান হবেন।

এদিকে আজ বাণিজ্য শুরু হওয়ার প্রথম দিন সকাল থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ১৮০টি পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে ঢুকেছে। বিপরীতে বাংলাদেশ থেকে ভারতের প্রবেশ করেছে ৪৫টি ট্রাক। এর মধ্যে যেমন নিত্যপ্রয়োজনীয় কাঁচাপণ্য রয়েছে, তেমনি রয়েছে কেমিক্যাল, পাথর, ফার্মাসিউটিক্যাল এবং গার্মেন্টস পণ্যও।

২৪ ঘণ্টার বাণিজ্য ব্যবস্থাপনার জন্যে সীমান্তের দুই দিকেই উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন লাইট বসানো হয়েছে। যাতে রাতেও নির্বিঘ্নে বাণিজ্য চালানো সম্ভব হবে। এছাড়াও, কাস্টমসের অতিরিক্ত কর্মী নিযুক্ত করার সঙ্গে সীমান্তের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে।

ভারতের দিক থেকে সীমান্তে পার্কিংয়ের অনেক বেশি পরিমাণ জায়গা থাকলেও বাংলাদেশের বেনাপোল সীমান্তে পর্যাপ্ত পার্কিং ও পণ্য নামানোর ব্যবস্থাপনা এখনও আধুনিক নয় বলে অভিযোগ করে নতুন এই ব্যবস্থাপনায় পুরোপুরি সুফল না পাওয়ার কথা জানান পেট্রাপোলের সিঅ্যান্ডএফের নেতা কার্তিক চক্রবর্তী।

তিনি বলেন, “অবশ্যই এই উদ্যোগে আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে ইতিবাচক হাওয়া বইবে। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত না ওপারে (বাংলাদেশে) পার্কিংয়ের জায়গা না বাড়ানো হবে, ততো সময় পর্যন্ত পুরোপুরি এই ব্যবস্থাপনার সুফল পাবেন না আমদানি-রফতানিকারকরা।”

পেট্রাপোলের অতিরিক্ত কাস্টমস কর্মকর্তা রাহুল মাহাতো বলেন, “প্রথম দিকে কিছু অসুবিধা হতেই পারে। কিন্তু আস্তে আস্তে ২৪ ঘণ্টার আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে পুরোপুরি সুফল পাওয়া যাবে।”

দিনরাত বাণিজ্য শুরুর ফলে দুই দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বৃদ্ধি পাবে বলেও মনে করেন ওই শুল্ক কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত, গড়ে প্রতিদিন এই সীমান্ত দিয়ে ৩৫০টি ট্রাক ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে, বিপরীতে বাংলাদেশ থেকে আসে ১৫০ থেকে ২০০টি ট্রাক। কিন্তু সীমান্তে পণ্য খালাসের সিরিয়াল না পেয়ে ওই হিসাবের বাইরেও প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই হাজার ট্রাক পণ্য নিয়ে সীমান্তের উভয় পাশেই দাঁড়িয়ে থাকতো রোজ। আর সে কারণেই বেশ কিছু দিন ধরে ব্যস্ততম এই স্থলসীমান্ত দিয়ে উভয় দেশের ব্যবসায়ীরাই পণ্য আমদানি-রফতানি করতে চাইতেন না। তবে ২৪ ঘণ্টার সীমান্ত বাণিজ্য শুরু হওয়ায় তাঁরা আশার বুক বাঁধছেন।

টেলিফোনে কথা হয় কলকাতার শীর্ষস্থানীয় আমদানি-রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানের মালিক অতুল চন্দ্র দাসের সঙ্গে। তাঁর মন্তব্য, “অনেক দেরি হলো এই ছোট্ট সিদ্ধান্তটি নিতে। ভারত-বাংলাদেশের স্থলপথে যতো ব্যবসা হয়, বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্ত এর মধ্যে শীর্ষে। বহু আগেই এই সীমান্ত দিয়ে ২৪ ঘণ্টার বাণিজ্য শুরু করা উচিৎ ছিল।”

Comments

The Daily Star  | English

Cattle sales yet to gain momentum

Till this evening, a number of sacrificial animals, especially bulls, were present at all 16 cattle markets in Dhaka, but customer turnout was notably low until 5:00pm

2h ago