হিজাব বিতর্ক

সাংবিধানিক প্রশ্ন থাকায় বৃহত্তর বেঞ্চে যাওয়া প্রয়োজন: কর্নাটক হাইকোর্ট

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকে নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে যে আবেদন করা হয়েছে সেটি বিবেচনার জন্য বৃহত্তর বেঞ্চে যাওয়া প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।
ছবি: রয়টার্স

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকে নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে যে আবেদন করা হয়েছে সেটি বিবেচনার জন্য বৃহত্তর বেঞ্চে যাওয়া প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বুধবার কর্ণাটকের আদালতের শুনানি শেষে একথা জানিয়েছেন বিচারপতি কৃষ্ণ এস দীক্ষিতের একক বেঞ্চ।

হাইকোর্টের বিচারপতি কে এস দীক্ষিত বলেছেন, 'এই বিষয়গুলো সংবিধানে ব্যক্তিগত স্বাধীনতার কিছু দিক নিয়ে প্রশ্নের জন্ম দেয়। যে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নগুলো নিয়ে বিতর্ক হচ্ছে, সেগুলোর ব্যাপকতার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণ, বিষয়টি নিয়ে বৃহত্তর কোনো বেঞ্চ গঠন করা উচিত। এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতি সিদ্ধান্ত নেবেন।'

জানুয়ারিতে উদুপির একটি সরকারি কলেজে হিজাব পরে ক্লাসে যাওয়ায় ৬ শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাস ছেড়ে যেতে বলার পর এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়।

হিজাব পরার ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন তুলে হাইকোর্টে আবেদন করেছেন ৫ শিক্ষার্থী। গতকাল মঙ্গলবার থেকে এই আবেদনের কর্ণাটকের হাইকোর্টে শুনানি শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার চলমান বিতর্কে উত্তেজনা তীব্র হয়ে ওঠায় কর্ণাটকের সব হাইস্কুল ও কলেজ ৩ দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, হিজাব পরা নিয়ে এই বির্তক কর্ণাটকের বাইরে অন্যান্য রাজ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে।

আজ বুধবার বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার কমল পান্ত সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বেঙ্গালুরুর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ২০০ মিটারের মধ্যে কোনো ধরনের জমায়েত বা বিক্ষোভের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন।

এদিকে, হিজাব বিতর্ক নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে বিজেপি ও কংগ্রেসও। আজ কংগ্রেস নেতা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী টুইটে হিজাবের পক্ষে মন্তব্য করেছেন। বিজেপি সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, 'একজন নারী কী পরবে এই সিদ্ধান্ত সে নিজে নেবে। সেটা বিকিনি হোক, জিন্স হোক, ওড়না হোক কিংবা হিজাব। এটা তার অধিকার।

Comments

The Daily Star  | English

Govt bars Matiur from Sonali Bank’s board meeting

The disclosure comes a couple of hours after the finance ministry transferred Matiur to the Internal Resources Division from tthe NBR

1h ago