পদ্মা সেতুতে বাইকার-টিকটকার-ইউটিউবারদের ভিড়

পদ্মা সেতুর ওপর মোটরসাইকেল ও ব্যক্তিগত গাড়ি থামিয়ে ছবি ও ভিডিও করছেন মানুষ। অনেকে সেতুতে টিকটিক ভিডিও বানাচ্ছেন। কেউ তুলছেন সেলফি। এমনকি সেতুর রেলিংয়ের ওপর দাঁড়িয়েও ছবি তুলতে দেখা যায় বাইকারদের। সড়ক বিভাজকের ওপর দাড়িয়েও ভিডিও করতে দেখা গেছে টিকটকার-ইউটিউবারদের।
পদ্মা সেতুতে গাড়ি ও মোটরসাইকেল থেকে নেমে ছবি ও ভিডিও করছেন উৎসাহী লোকজন। ছবি: স্টার

পদ্মা সেতুর ওপর মোটরসাইকেল ও ব্যক্তিগত গাড়ি থামিয়ে ছবি ও ভিডিও করছেন মানুষ। অনেকে সেতুতে টিকটিক ভিডিও বানাচ্ছেন। কেউ তুলছেন সেলফি। এমনকি সেতুর রেলিংয়ের ওপর দাঁড়িয়েও ছবি তুলতে দেখা যায় বাইকারদের। সড়ক বিভাজকের ওপর দাড়িয়েও ভিডিও করতে দেখা গেছে টিকটকার-ইউটিউবারদের।

আল হেলাল নামে একজন ইউটিউবার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, ইউটিউবে আমার একটি চ্যানেল আছে। সেখানে ভিডিও আপলোড করি। ভিডিও ভালো হলে বেশি ভিউ পাওয়া যায়। তখন খুব ভালো লাগে। সেতুতে যানবাহন চলাচল শুরু হয়ে গেছে। ভিডিও তৈরি করার জন্য সেতুতে উঠেছি। ভালো ভিউ পাওয়ার জন্য রেলিংয়ে উঠেও ভিডিও করি।

বাইকার জাফর হোসেন জানান, ঢাকার মিরপুর থেকে ১০ জন মোটরসাইকেল নিয়ে পদ্মা সেতুতে উঠেছি। সবাই মিলে ছবি তুলেছি। সবাই মোটরসাইকেলের সঙ্গে দাঁড়িয়ে সেতুতে ছবি তুলেছি। এসব ছবি ফেসবুকসহ বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে আপলোড দেবো। তাছাড়া আমরা দেশের বিভিন্ন সড়ক ঘুরেছি। সেতুটি খুবই চমৎকার। আরামদায়ক যাত্রা হয়েছে।

সেতুতে ভিডিও করছিলেন জারা চৌধুরী নামের এক নারী। তিনি জানান, টিকটকের জন্য ভিডিও তৈরি করতে তিনি সেতু দেখতে এসেছেন।

তিনি বলেন, 'এটি খুবই সুন্দর একটি সেতু। অনেক আগে থেকেই আগ্রহ ছিল সেতু চালু হয়ে গেলে ভিডিও করব।'

পদ্মা সেতুতে যানবাহন দাঁড় করানোয় সেতু কর্তৃপক্ষের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে।
এতে বলা হয়, পদ্মা সেতুর ওপর কোনো যানবাহন দাঁড় করানো এবং যানবাহন থেকে নেমে ছবি তোলা যাবে না। সেতুর ওপর দিয়ে হাঁটা যাবে না। সেতুর ওপর অনুমোদিত গতিসীমা ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার।

Comments