করোনা: খুলনায় আজ মারা গেলেন আরও ১৫ জন

খুলনার পৃথক তিনটি হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে সাত জন, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছয় জন ও খুলনা জেনারেল হাসপাতালে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।
khulna_corona_4july21.jpg
ল্যাব বন্ধ থাকায় তিন দিন আগে নমুনা দিয়েও রিপোর্ট পাননি খুলনা শহরের বাসিন্দা শাহরিয়ার। সনদ না থাকায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ভর্তি নিচ্ছে না। ছবিটি গতকাল শনিবার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের সামনে থেকে তোলা। ছবি: দীপঙ্কর রায়/স্টার

খুলনার পৃথক তিনটি হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে সাত জন, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছয় জন ও খুলনা জেনারেল হাসপাতালে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ রোববার সকালে খুমেক হাসপাতালের আওতাভুক্ত করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পারসন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ছয় জন করোনায় আক্রান্ত ছিলেন, বাকি একজনের উপসর্গ ছিল।

তিনি আরও বলেন, সকাল পর্যন্ত ১৩০ শয্যার বিপরীতে ১৯৭ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। এর মধ্যে রেড জোনে ১০২ জন, ইয়ালো জোনে ৫৫ জন, এইচডিইউতে ২০ জন ও আইসিইউতে ২০ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৪০ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৫ জন।

গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী গাজী মিজানুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছয় মৃত্যু হয়েছে। বর্তমানে হাসপাতালের ১২০ শয্যার করোনা ইউনিটে ১১৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে আইসিইউতে আট জন এবং এইচডিইউতে ১০ জন চিকিৎসাধীন। ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন করে ২৩ জন ভর্তি হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২২ জন।

খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। বর্তমানে ৭০ শয্যার হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৬৫ জন। এ ছাড়া, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন করে ১৫ জন ভর্তি হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৮ জন।

khulna_corona1_4july21.jpg
ভর্তি হবেন বলে গতকাল ভোর ৫টায় খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে আসেন খুলনার ফুলতলার বাসিন্দা পপি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের কারণে তাকে হাসপাতালের সামনে পাঁচ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। ছবিটি গতকাল শনিবার সকালে তোলা। ছবি: দীপঙ্কর রায়/স্টার

গতকাল খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ৪৫ শয্যা বিশিষ্ট করোনা ইউনিট চালু হয়েছে। হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রকাশ চন্দ্র দেবনাথ ডেইলি স্টারকে জানান, আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত সেখানে ২৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে আইসিইউতে ছয় জন চিকিৎসাধীন। তবে কেউ মারা যাননি।

খুলনা মেডিকেল কলেজের (খুমেক) আরটি পিসিআর ল্যাব ‘দূষিত’ হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ রয়েছে করোনার নমুনা পরীক্ষা। গতকাল বিকেল থেকে ল্যাব চালু হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। খুমেকের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানিয়েছেন, দ্রুত ল্যাব চালুর চেষ্টা চলছে।

Comments

The Daily Star  | English

‘Will implement Teesta project with help from India’

Prime Minister Sheikh Hasina has said her government will implement the Teesta project with assistance from India and it has got assurances from the neighbouring country in this regard.

1h ago