নিউইয়র্কে মুক্তিযুদ্ধ উৎসব

বাংলাদেশি আমেরিকান আর্টিস্ট ফোরামের শিল্পীরা বিশালাকৃতির ক্যানভাসে ফুটিয়ে তোলেন বঙ্গবন্ধুর মুখ এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে।
নিউইয়র্কে মুক্তিযুদ্ধ উৎসব
প্রামাণ্যচিত্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। ছবি: সংগৃহীত

ঐতিহাসিক ৭ মার্চের প্রেক্ষাপটে রচিত কবি নির্মলেন্দু গুণের অসামান্য কবিতা 'স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো' অবলম্বনে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্রের উদ্বোধনী প্রদর্শনীকে ঘিরে নিউইয়র্কে হয়ে গেল বর্ণাঢ্য মুক্তিযুদ্ধ উৎসব।

স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার বিকেলে জ্যামাইকা পারফর্মিং আর্টস সেন্টারে প্রবাসী সংগঠন ডায়াসপোরা আয়োজিত উৎসব শুরু হয়েছিল এক ক্যানভাসে যৌথ চিত্রকর্মের মধ্য দিয়ে । 

বাংলাদেশি আমেরিকান আর্টিস্ট ফোরামের শিল্পীরা বিশালাকৃতির ক্যানভাসে ফুটিয়ে তোলেন বঙ্গবন্ধুর মুখ এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে।

একই সময়ে শুরু হয় শিল্পী আখতার আহমেদ রাশার মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য প্রদর্শনী।

দুটি পর্বই উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের চিত্রশিল্পী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের সাবেক অধ্যাপক মতলুব আলী।

এসময় মুক্তিযোদ্ধা ও শিল্পী তাজুল ইমাম, সাপ্তাহিক ঠিকানার প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান, বাংলাদেশি আমেরিকান আর্টিস্ট ফোরামের সভাপতি আর্থার আজাদ, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ চৌধুরী, ভাস্কর আখতার আহমেদ রাশা, ডায়াসপোরার পক্ষে প্রতাপ দাস ও এজাজ আলম উপস্থিত ছিলেন।    

সন্ধ্যায় শামীম আল আমিনের পরিচালনা ও প্রতাপ দাসের প্রযোজনায় নির্মিত 'স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো' প্রামাণ্যচিত্রে প্রদর্শনীর পর্দা ওঠে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পারফর্মিং আর্টস-বিপার শিল্পীদের যৌথ নৃত্যের মধ্য দিয়ে ।

এরপর শিল্পী সীতেশ ধর, মৃদুল আহমেদ আর জারিন মাইশার ভিন্নধর্মী পরিবেশনায় উঠে আসে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতা 'সৃষ্টি সুখের উল্লাসে'।

উদ্বোধনী বক্তব্যে নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুল ইসলা মনি বলেন, 'জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ঐতিহাসিক ৭ মার্চের সেই ভাষণই মূলত বাঙালি জাতিকে মুক্তিযুদ্ধের দিকে নিয়ে যায়। পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম শ্রেষ্ঠ ভাষণ হিসেবে এই ভাষণটিকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ প্রামাণ্য ঐহিত্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।'

৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণের উপর ভিত্তি করে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্রে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদ, কবি নির্মলেন্দু গুণ, কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, ইতিহাসবিদ অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন এবং মুক্তিযোদ্ধা ও লেখক হারুন হাবীব।

আবৃত্তি করেছেন খ্যাতিমান অভিনেতা ও রাজনীতিবিদ আসাদুজ্জামান নূর, নেপথ্য কণ্ঠ দিয়েছেন আবৃত্তি শিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, সঙ্গীতায়োজন করেছেন বাপ্পা মজুমদার।

অভিনেতা ও নির্মাতা তৌকির আহমেদ, নেপালি আন্তর্জাতিক পুরস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা দীপক রনিয়ার এবং সাপ্তাহিক বাঙালির সম্পাদক কৌশিক আহমেদ অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন।

মুক্ত আলোচনায় আরও অংশ নেন নির্মাতা শামীম আল আমিন ও প্রযোজক প্রতাপ দাস। এ সময় সঙ্গীতজ্ঞ মুত্তালিব বিশ্বাস, লেখক আবেদীন কাদের, মুক্তিযোদ্ধা ফকির রহমান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা ড. প্রদীপ কর, চিত্র শিল্পী বাশিরুল হক, অভিনেত্রী লুৎফুন নাহার লতা, শিরীন বকুলসহ অনেক বিশিষ্টজন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন এজাজ আলম আর সাবিনা নীরু।

অনুষ্ঠান শেষ হয় মুক্তিযুদ্ধের সময়কার জাগরণের গান দিয়ে।

লেখক:  নিউইয়র্কপ্রবাসী চিত্রশিল্পী

Comments

The Daily Star  | English

AL to go tough to quell infighting

Over the first six months of this year, there were on average more than two incidents of infighting every day in Awami League. These conflicts accounted for 94 percent of the total 440 incidents of political violence during the same period.

6h ago