কলকাতায় ওয়েব টিভির আত্মপ্রকাশ

‘হৈচৈ’-এ আসছে অমিতাভ রেজার ‘ওয়েব সিরিজ’

প্রায় পাঁচ শতাধিক বাংলা চলচ্চিত্র, দশ হাজার গান নিয়ে বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য আত্মপ্রকাশ করলো “হৈচৈ” নামে একটি ওয়েব টিভি।
Prasenjit and Swastika
কলকাতায় “হৈচৈ” ওয়েব টিভির আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে অভিনেতা প্রসেনজিৎ ও স্বস্তিকা। ছবি: স্টার

প্রায় পাঁচ শতাধিক বাংলা চলচ্চিত্র, দশ হাজার গান নিয়ে বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য আত্মপ্রকাশ করলো “হৈচৈ” নামে একটি ওয়েব টিভি। প্রথম দিকে কলকাতার চলচ্চিত্র নিয়ে শুরু হলেও আগামী ছয় মাসের মধ্যে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র, গান, নাটক ও রিয়ালিটি শো যুক্ত করা হবে এখানে।

দ্য ডেইলি স্টারকে এসব জানালেন ওয়েব টিভির মালিকানা প্রতিষ্ঠান এসভিএফ-এর কর্ণধার শ্রীকান্ত মেহতা। তিনি বলেন, “সরকারি অনুমোদনের বিষয়টি একটু দীর্ঘস্থায়ী তাই উদ্বোধনের সময় বাংলাদেশি চলচ্চিত্র, গান, নাটক যুক্ত করা সম্ভব হয়নি। তবে আগামী ছয় মাসের মধ্যেই আমরা বাংলাদেশি ঐতিহ্যকে ধারণ করার চেষ্টায় সফল হবো।”

প্রতিষ্ঠানের অপর কর্ণধার মাহেন্দ্র সোনি একধাপ এগিয়ে জানালেন, বাংলাদেশের প্রখ্যাত নির্মাতা অমিতাভ রেজার জন্য ওয়েব সিরিজ তৈরি করা হবে বলে আমরা আশা করতে পারি। ইতোমধ্যেই তিনি কলকাতায় এসে আমাদের সঙ্গে কথা বলে গিয়েছেন। পূজোর পর বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে। মেগা সিরিজ ছাড়াও আগামীতে নাটক, গান এবং রিয়ালিটি শো যুক্ত হবে হৈচৈ ওয়েব টিভিতে।

গত ২০ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেলে হৈচৈ-এর উদ্বোধন উপলক্ষে দিনভর নানা আয়োজনও চলে। বিকেলে দেশ-বিদেশের সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময় করেন হৈচৈ এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান শ্রী ভেঙ্কাটেশ ফিল্মের তিন শীর্ষ কর্মকর্তা।

তারাদের নিয়েই তো এই ওয়েব টিভি। স্বাভাবিকভাবে হৈচৈ-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত টালিগঞ্জের চেনা-তারকারাও। বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাঙালিদের জন্য এমন একটি ব্যবস্থা হওয়ায় খুশি অভিনেতা প্রসেনজিৎ থেকে অঙ্কুশ, রাহুল এবং স্বস্তিকারা।

অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “দেখুন টেলিভিশন সবার জন্য। একই অনুষ্ঠান, চলচ্চিত্র সবার পছন্দ নাও হতে পারে। তাই যার যেমন পছন্দ তেমনই কিছু দেখতে পাওয়ার সুযোগ তৈরি হলো - এটিই তো বিজ্ঞানের সাফল্য। এতে করে চলচ্চিত্রশিল্প আরও লাভবান হবে।”

আমি চাই, বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষীরা সবাই বাংলা চলচ্চিত্র দেখুন, এটি নিয়ে যেন কোনও বিতর্ক না হয়, প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে দ্য ডেইলি স্টারকে জানালেন অভিনেতা অঙ্কুশ।

তাঁর ভাষায়, “হটস্টার যেমন হিন্দিভাষার চলচ্চিত্র, অনুষ্ঠান, গানের জন্য তৈরি করা হয়েছে, তেমন করে ‘হৈচৈ’ বাংলার ভাষার জন্য তৈরি। আর বাংলাদেশকে বাদ দিয়ে তো বাংলা হবেই না। তাই বাংলাদেশকেও রাখতে হবে এখানে।”

অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি বললেন, শুধু নতুন প্রজন্মের জন্যে এই টিভি তা বললে ভুল হবে। এখন তো মোবাইল সেট ছাড়া কিছু ভাবাই যায় না। মোবাইলের স্ক্রিনেই যেন সবকিছু আটকে গিয়েছে – হাসি-আনন্দ-আড্ডা-পড়াশোনা সব। হৈচৈ-এ আগামীতে আমরা বাংলাদেশের চলচ্চিত্রও পাবো এমন আশা করা নিশ্চয় ভুল হবে না।

নাম মাত্র সাবক্রিপশন ফি দিয়ে হাতের মুঠোয় বন্দি পাঁচ ইঞ্চির ফ্রেমে সারা বছর পছন্দের ছবি, গান, মেগা সিরিয়াল দেখার সুযোগ থাকবে বলেও জানান প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তারা।

Comments