নিজ নামে স্মার্টফোন আনছে গুগল

অ্যাপলের আইফোনের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে নতুন স্মার্টফোন বাজারে আনছে গুগল। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম সারা বিশ্বের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয়। উচ্চমানের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর মধ্যে প্রতি পাঁচজনে চারজন অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করেন। এর আগে স্যামসাং, এলজি ও হুয়াওয়ের সঙ্গে যৌথভাবে ‘নেক্সাস’ ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বাজারে এনেছে গুগল। তবে এখন আর শুধু সফটওয়্যারে সীমাবদ্ধ না থেকে যন্ত্রাংশ তৈরিতেও মন দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

অ্যাপলের আইফোনের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে নতুন স্মার্টফোন বাজারে আনছে গুগল। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম সারা বিশ্বের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে জনপ্রিয়। উচ্চমানের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর মধ্যে প্রতি পাঁচজনে চারজন অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করেন। এর আগে স্যামসাং, এলজি ও হুয়াওয়ের সঙ্গে যৌথভাবে ‘নেক্সাস’ ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বাজারে এনেছে গুগল। তবে এখন আর শুধু সফটওয়্যারে সীমাবদ্ধ না থেকে যন্ত্রাংশ তৈরিতেও মন দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।
গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম জনপ্রিয় হলেও মুনাফার দিক দিয়ে অনেক এগিয়ে আছে অ্যাপল। অন্যদিকে বিভিন্ন স্মার্টফোনে একই অ্যান্ড্রয়েডের বিভিন্ন সংস্করণ ব্যবহৃত হয় এবং সেগুলো হালনাগাদ করতে কখনো কয়েক মাস পর্যন্ত লেগে যায়। গুগলের নিজস্ব মুঠোফোন বাজারে এলে এই সমস্যাটা কমে আসবে বলে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন।
প্রযুক্তি পর্যালোচক বেন উড বলেন, ‘অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেমটা ধীরে ধীরে ভেঙে যাচ্ছে বলে শঙ্কিত গুগল। তাই প্রতিষ্ঠানটি চাইছে একে অ্যাপলের মতো আরও নিয়ন্ত্রিত প্ল্যাটফর্ম হিসেবে দাঁড় করাতে।’ চলতি বছরের শেষের দিকে বাজারে আসতে পারে গুগলের স্মার্টফোন। এর নকশা, নির্মাণশৈলী এবং সফটওয়্যারের উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছে গুগল।
মূলত ইন্টারনেট সফটওয়্যারের জন্যই প্রযুক্তির জগতে বেশি পরিচিত গুগল। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নিজস্ব ট্যাবলেট কম্পিউটার, ল্যাপটপ এবং অন্যান্য যন্ত্র বাজারে এনে যন্ত্র-প্রীতির কথাও জানান দিচ্ছে গুগল। এই বছরের শুরুতে গুগল তার দলে ভিড়িয়েছে মুঠোফোন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মটোরোলার সাবেক প্রেসিডেন্ট রিক অস্টারলোকে। উদ্দেশ্য হার্ডওয়্যারের বাজারে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে নতুন একটি হার্ডওয়্যার বিভাগ খোলা।
তবে, সফটওয়্যারের পাশাপাশি হার্ডওয়্যার তৈরির নতুন এই উদ্যোগকে সবাই যে ভালো চোখে দেখবে এমনটি নয়। ইউরোপীয় কমিশন গত এপ্রিল মাসে অভিযোগ তুলেছিল, অ্যান্ড্রয়েড এবং গুগল প্লেস্টোরের সাফল্যকে কাজে লাগিয়ে নিজের সার্চ ইঞ্জিন এবং ক্রোম ব্রাউজারকে লাভজনক করতে চাইছে গুগল। ধারণা করা হচ্ছে, গুগলকে জরিমানাও করতে পারে কমিশন। নতুন মুঠোফোন বাজারে আনার পরিকল্পনা ইউরোপীয় ইউনিয়নের সেই অভিযোগকে আরও উসকে দেবে বলেই ধারণা সবার। দেব দুলাল গুহ, সূত্র: দ্য টেলিগ্রাফ

Comments

The Daily Star  | English

Consumers brace for price shocks

Consumers are bracing for multiple price shocks ahead of Ramadan that usually marks a period of high household spending.

2h ago