ফিচার

বিশেষ দিনে উপহার

অনেকেই ভালোবাসার মানুষটিকে উপহার দেয়ার কথা প্ল্যান করে থাকেন। কিন্তু বুঝতে পারেন না কী উপহার দেবেন প্রিয় মানুষটিকে।জেনে নিন ভালোবাসার মানুষের জন্য ভালোবাসা দিবসের কিছু উপহারের নাম। ভালোবেসে দেয়া এসব ছোট উপহারগুলোই তার জন্য খুশির খোরাক হয়ে উঠতে পারে।

১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এদিনে অনেকেই ভালোবাসার মানুষটিকে উপহার দেয়ার কথা প্ল্যান করে থাকেন। কিন্তু বুঝতে পারেন না কী উপহার দেবেন প্রিয় মানুষটিকে। তবে উপহার দেয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয়তার বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। এমন কিছু উপহার বেছে নিতে পারেন যা প্রিয় মানুষটি ব্যবহার করতে পারবে। তাই উপহার কেনার আগে কিছুটা চিন্তা-ভাবনা করে এবং ভালোবাসার মানুষটির পছন্দের বিষয় মাথায় রেখে উপহার বাছাই করা যেতে পারে। তাহলে জেনে নিন ভালোবাসার মানুষের জন্য ভালোবাসা দিবসের কিছু উপহারের নাম। ভালোবেসে দেয়া এসব ছোট উপহারগুলোই তার জন্য খুশির খোরাক হয়ে উঠতে পারে।

ফুল

ফুল ভালোবাসে না এমন মানুষ পৃথিবীতে খুঁজে পাওয়া কঠিন। কম-বেশি সবাই ফুলকে ভালোবাসে। কাজেই ভালোবাসা দিবসে আপনি যাকে ভালোবাসেন তাকে একগুচ্ছ ফুল দিয়েই বরণ করে নিন। তাতে ফুলের মতো ভালোবাসাকেও পবিত্র মনে হবে। তাই ফুল হোক ভালোবাসার মানুষটির জন্য প্রথম উপহার।

চকোলেট

চকলেটও ভালোবাসা দিবসের একটি ভালো উপহার হতে পারে। কাজেই প্রিয় মানুষটির জন্য তার পছন্দমতো এক বাক্স চকলেট কিনে রাখুন। চাইলে ব্র্যান্ডের দামি কোনো চকোলেটও উপহার দিতে পারেন। কনফেকশনারি দোকানগুলোতে বিভিন্ন আকৃতির চকোলেটের বাক্সগুলো ২০০ থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যেই পাওয়া যায়।

কার্ড

ভালোবাসার মানুষটিকে উপহার হিসেবে কার্ডও দিতে পারেন। তাতে ভালোলাগা কোনো মুহূর্তের কথা অথবা মনের কোনো ইচ্ছার কথা লিখে দিতে পারেন। এমনকি মনের না বলা কথাও লিখে জানাতে পারেন। এতে ভালোবাসার মানুষটি আপনাকে আরো গভীরভাবে চিনবে।

বই

শুধু ফুল, চকলেট আর কার্ড নয়, ভালোবাসার মানুষকে তার পছন্দমতো কোনো বইও উপহার দিতে পারেন। কথার ছলেই তার কাছ জেনে নিন কোন ধরনের বই তার পছন্দ।

পোশাক

‘বিশ্ব ভালোবাসা দিবস’ উপলক্ষে বুটিক হাউজগুলোতে পোশাকের নতুন নতুন কালেকশন দেখা যায়। কাজেই উপহার হিসেবে পছন্দের কোনো পোশাকও কিনতে পারেন।

পারফিউম

ভিন্ন রং ও সুবাসের পারফিউম অথবা বডি স্প্রে দিয়েও চমকে দিতে পারেন ভালোবাসার মানুষটিকে।

ফটোফ্রেম

ফটোফ্রেমে নিজেদের যুগল ছবি ফ্রেমে বাঁধিয়ে প্রিয়জনকে উপহার দিন। ছবিটি শুধু স্মৃতি হিসেবেই থাকবে না; বরং ছবিটি সম্পর্ককে আরো মধুর করে তুলবে।

সিরামিকের উপহার

এই দিনে ভালোবাসার মানুষটিকে সিরামিকের মগ, শোপিস কিংবা চাবির রিংও উপহার দিতে পারেন। চাইলে দু’জনার একটি ছবি সিরামিকের প্লেটে প্রিন্ট করিয়েও নিতে পারেন। এটি করতে দাম পড়বে মাত্র ৮০০-১০০০ টাকার মধ্যে।

মোবাইল

ভালোবাসা দিবসের শ্রেষ্ঠ উপহার হতে পারে মোবাইলও। কাজেই তার পছন্দমতো সেট কিনে তাকে উপহার দিন। এর সঙ্গে মোবাইল কভার উপহার দিতেও ভুলবেন না কিন্তু।

গয়না

ভালোবাসার মানুষটিকে ছোট্ট কোনো গয়নাও উপহার দিতে পারেন। চাইলে তাকে আংটি অথবা হাতের ব্রেসলেটও দিতে পারেন। তবে কেনার সময় অবশ্যই ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে যেন মানানসই হয় তা ভেবে কিনবেন।

অন্যান্য

এছাড়া মেকআপ সামগ্রী, সানগ্লাস, হেয়ার স্ট্রেইটনার, ব্যাগ, প্রিয় ব্র্যান্ডের লিপস্টিক, আংটি বা কানের দুল যে কোনো কিছু বেছে নেয়া যেতে পারে উপহার হিসেবে। এই উপহার সামগ্রীগুলোর মধ্যে সানগ্লাসের দাম পড়বে ২৫০ থেকে ১০ হাজার টাকা, মগ ৩শ’ থেকে ১ হাজার টাকা, মেকআপের সামগ্রীর দাম নির্ভর করবে ব্র্যান্ডের ওপর, স্ট্রেইটনার ও কার্লারের দাম পড়বে ১ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। তাছাড়া নকশা করা আয়নাও দিতে পারেন। দাম পড়বে দেড়শ’ থেকে ৮শ’ টাকা। আপনার উপহারের পাশাপাশি উপহারের বক্সটিও যেন আকর্ষণীয় হয়। এসব বক্সের আকার ও ধরনভেদে দাম পড়বে ৫০ থেকে ৫শ’ টাকা।

কোথায় পাবেন

রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে আর্চিস ও আড়ংয়ের শোরুমে পাওয়া যাবে বিভিন্ন উপহার সামগ্রী। এছাড়াও বিভিন্ন গিফট শপ এবং ‘ওয়ান টু নাইনটিনাইন’ শপ থেকেও কিনতে পারবেন আপনার ভালোবাসার উপহার। চাইলে যেতে পারেন দেশী দশ, ইনফিনিটি, এক্সটেসি কিংবা বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক ইত্যাদি শপিং মলগুলোতে। পাশাপাশি নিউমার্কেট, মৌচাক ইত্যাদি মার্কেটে খুঁজলেও হাতের নাগালে সাশ্রয়ী দামে উপহার কিনতে পারবেন। বিদেশি চকলেটের খোঁজে যেতে পারেন গুলশান ডিসিসি মার্কেট, আগোরা, নন্দন, মিনাবাজার, ইউনিমার্ট ইত্যাদি সুপার শপগুলোতে।

Comments

The Daily Star  | English

India by-polls: INDIA bloc wins 10, BJP 2

India's opposition INDIA bloc, which put up a spirited performance in recent parliamentary polls, won 10 seats while BJP got two as votes were counted today for 13 assembly seats where by-elections were held on Wednesday across seven states

22m ago