সৌন্দর্য যখন মুভি ফ্রেমে

বিউটি পার্লার সবসময় মানুষকে আরেকটু সাজিয়ে তুলতে, আরেকটু আকর্ষণীয় করে তুলতে সাহায্য করেছে। নারী-পুরুষ সবাই দ্বারস্থ হতে বাধ্য হয় বর্তমানে বিউটি পার্লারের। কেমন হবে বলুন তো যদি কখনো ত্বক, কখনো চুল- সবসময় নিজেকে একটু বেশি ফিটফাট করতে সাহায্য করা বিউটি পার্লারগুলো হয়ে ওঠে সিনেমার বিষয়বস্তু? চলুন জেনে আসি এখন পর্যন্ত নির্মিত বিউটি পার্লার আর এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিয়ে তৈরি মুভিগুলোর নাম।

বিউটি পার্লার সবসময় মানুষকে আরেকটু সাজিয়ে তুলতে, আরেকটু আকর্ষণীয় করে তুলতে সাহায্য করেছে। নারী-পুরুষ সবাই দ্বারস্থ হতে বাধ্য হয় বর্তমানে বিউটি পার্লারের। কেমন হবে বলুন তো যদি কখনো ত্বক, কখনো চুল- সবসময় নিজেকে একটু বেশি ফিটফাট করতে সাহায্য করা বিউটি পার্লারগুলো হয়ে ওঠে সিনেমার বিষয়বস্তু? চলুন জেনে আসি এখন পর্যন্ত নির্মিত বিউটি পার্লার আর এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিয়ে তৈরি মুভিগুলোর নাম।

বিউটি পার্লার

১৯৯৭ সালে পাকিস্তানে নির্মিত এই চলচ্চিত্রে দেখানো হয় একটি বিউটি পার্লার আর এর তিনজন নারী ও একজন তৃতীয় লিঙ্গের অধিকারীকে। নিজেদের লিঙ্গগত পার্থক্য এবং একে অপরের প্রতি মনোভাব- এই সবকিছু মিলিয়ে এগিয়ে চলে চলচ্চিত্রের গল্প। মেহরিন জাব্বার পরিচালিত এই চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেছেন সানিয়া সাইদ, কুনাল মুমতাজ, নাদিল জামিলের মতো আরো অনেক তারকা।

পিঙ্কি বিউটি পার্লার

ভারতে বর্ণবাদ বেশ পরিচিত একটি ব্যাপার। মানুষের ত্বকের রঙ দেখে সে কেমন, তার কেমন হওয়া উচিত, মানুষ তাকে নিয়ে কী ভাববে- এমন হাজারটা ব্যাপার চলে আসে আমাদের মাথায়। আর পিঙ্কি বিউটি পার্লারের গল্পটাও এমন একটি ব্যাপার নিয়ে। ঘটনার শুরু হয় দুই বোন ও তাদের বিউটি পার্লার নিয়ে। একদিন বিউটি পার্লারে একটা লাশ পাওয়া যায়। আর সেই লাশ কী করে এলো, কীভাবে এলো সেটা জানতে গিয়েই ধীরে ধীরে ঘটনার ভেতরে প্রবেশ করে পুলিশ। বিউটি পার্লারে আসা নানারকম মানুষ সম্পর্কে, তাদের জীবন সম্পর্কে জানতে পারে। ২০১৬ সালে মুক্তি পায় অক্ষয় সিং পরিচালিত এই চলচ্চিত্রটি।

বিউটি শপ

২০০৫ সালে হলিউডে নির্মিত হয় এই চলচ্চিত্রটি। ওপরের চলচ্চিত্রগুলোর মতো এটাও বিউটি পার্লার নিয়ে তৈরি। তবে পার্থক্যটা হচ্ছে, বাকি চলচ্চিত্রগুলোর চেয়ে একেবারেই ভিন্ন ঘরানার এই মুভিটি। কমেডি এই মুভিটি নির্মাণ করেন বিল উডক্রাফট। বারবারশপ মুভিটির পরবর্তী মুভি হিসেবে আসে এটি। এতে অভিনয় করেন অ্যালিসিয়া সিলভারস্টোন, কুইন লতিফা, অ্যান্ডি ম্যাকডাউয়েল, মিনা সুভারিসহ আরো অনেকে। কাজ ছেড়ে দেয়ার পর নিজেই একটা বিউটি শপ দিয়ে দেন এক নারী। তারপর প্রতিযোগিতা করেন সাবেক বসের সঙ্গে। এভাবেই গড়ে ওঠে বিউটি শপ মুভিটির গল্প।

বারবারশপ

বিউটি শপ মুভিটি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে যে মুভির নামটা চলে এসেছিল সেটি হচ্ছে বারবারশপ। এটিও কমেডি মুভি। ২০০২ সালে টিম স্টোরির পরিচালনায় নির্মিত হয় মুভিটি। গল্পটা ক্যালভিন প্ল্যামার জুনিয়রের। এক শীতকালে ক্যালভিন বুঝতে পারে, তার বাবার কাছ থেকে পাওয়া বারবারশপটা আর চালানো সম্ভব হচ্ছে না। হুট করে ধনী হওয়ার স্বপ্নে কাউকে কিছু না জানিয়েই দোকান বিক্রি করে দেয় সে। দোকানটা কিনে নেয় লেস্টার ওয়ালেস নামে একজন ধনী ও লোভী ব্যক্তি। যার ইচ্ছে ছিল দোকানকে স্ট্রিল ক্লাব বানানোর। সবটা ভালোই চলছিল। কিন্তু একটা দিন কাটিয়েই বুঝে যায় ক্যালভিন যে, দোকানের চালু থাকাটা খুব দরকার। ফলে লেস্টারের কাছে টাকা ফেরত দিয়ে দোকান ফিরে চায় সে। কিন্তু লেস্টার বিশাল একটা অঙ্ক হেঁকে বসে ক্যালভিনের কাছ থেকে বিনিময়ে। মুভিটিতে অভিনয় করেন আইস কিউব, অ্যান্থনি অ্যান্ডারসন, মাইকেল এলিসহ আরো অনেকে।

হলিউড বিউটি স্যালুন

হলিউড বিউটি স্যালুন মূলত একটি ডকুমেন্টারি ফিল্ম। এখানে দেখানো হয় এক বিউটি পার্লারের ভেতরে থাকা মানসিক সাহায্য প্রদানকারী সংস্থার কথা। যেখানে সবাই নিজেদের সাহায্য করে, চুল ঠিক করে দেয়, সাজায়, জীবনের গল্প শোনায়।

ডিং জিয়াং গু নিয়াং (বিউটি পার্লার গার্লস)

সাধারণত মুভি বলতেই আমরা হলিউড, বলিউড কিংবা আমাদের দেখের মুভি বুঝি। মাঝেসাঝে চাইনিজ আর কোরিয়ান মুভিও দেখা হয়। তবে এগুলোর বাইরে যদি বিউটি পার্লার নিয়ে কোন মুভি দেখতে চান তাহলে দেখে নিন ডিং জিয়াং গু নিয়াং। হংকংয়ে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেন হুই শি, ইউয়েন কাউসহ আরো অনেকে। ১৯৫৭ সালে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেন নির্মাতা চুন শিয়াং লো এবং ই ঝি রেন।

স্যালুন ক্রাসোতি

১৯৮৫ সালের এই চলচ্চিত্রটির গল্প গড়ে ওঠে ওফেলিয়া আর মারিয়াকে নিয়ে। দুজনেই হেয়ারড্রেসার হিসেবে কাজ করে। নিজেদের পারিবারিক সমস্যা আর ভালোবাসার সম্পর্ক নিয়ে এগিয়ে যায় মুভি। মুভিটি নির্মাণ করেন আলেকজান্ডার প্যানক্রাতোভ চিরোনি।

Comments