বাণিজ্য

ফুড গ্রেইন লাইসেন্স ছাড়া কেউ ধান-চালের ব্যবসা করতে পারবে না: খাদ্যমন্ত্রী

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, ‘সরকারের অগ্রাধিকার এখন দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করে সাধারণ মানুষকে শান্তিতে রাখা।’
সাধন চন্দ্র মজুমদার, বাংলাদেশের খাদ্য, বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতি, বাংলাদেশের খাদ্যমন্ত্রী, অর্থনৈতিক সংকট, খাদ্য সংকট,
‘অবৈধ মজুত বিরোধী কার্যক্রম গতিশীল করতে করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। ছবি: সংগৃহীত

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, ফুড গ্রেইন লাইসেন্স ছাড়া কেউ ধান-চালের ব্যবসা করতে পারবে না। লাইসেন্স ছাড়া কেউ অবৈধ মজুত করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন খাদ্যমন্ত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে আট বিভাগের প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে 'অবৈধ মজুত বিরোধী কার্যক্রম গতিশীল করতে করণীয়' শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, 'সরকারের অগ্রাধিকার এখন দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করে সাধারণ মানুষকে শান্তিতে রাখা। সবাই আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করলে শিগগির দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে আসবে।'

তিনি বলেন, 'ইতোমধ্যে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় অবৈধ মজুত ধরা পড়েছে। অভিযানে জরিমানা করা হয়েছে এবং সেই চাল দ্রুত বিক্রি করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।'

এই অভিযান চলমান রাখতে ও সফল করতে বিভাগীয় কমিশনারদের নির্দেশনা দেন খাদ্যমন্ত্রী।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, 'ক্যাপাসিটির বেশি কেউ মজুত করছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে। পাক্ষিক রিপোর্ট দিচ্ছেন কিনা সেটাও দেখতে হবে। প্রয়োজনে ক্রাশ প্রোগ্রাম হাতে নিতে হবে। তবে এতে সাধারণ কৃষক বা গৃহস্থ যেন হয়রানির শিকার না হন সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।'

Comments