রমজানে ডিমের ডজন ১২০, গরুর মাংস ৬৪০ টাকায় বিক্রি হবে ঢাকার ১৫ পয়েন্টে

প্রতি কেজি খাসির মাংসের দাম পড়বে ৯৫০ টাকা, ড্রেসিং করা ব্রয়লার মুরগির দাম নেওয়া হবে প্রতি কেজি ৩৪০ টাকা
ফাইল ছবি

রমজান উপলক্ষ্যে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে ঢাকার অন্তত ১৫টি পয়েন্টে কম দামে মাংস ও ডিম বিক্রি হবে।

মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ইফতেখার হোসেন আজ মঙ্গলবার জানান, রোজায় 'কম দামে' জনগণের প্রোটিন গ্রহণের সুবিধার্থে এবং সরবরাহ শৃঙ্খলা বজায় রাখতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এই উদ্যোগ নিয়েছে।

গত রোববার অনুষ্ঠিত এক সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর এসব মাংস ও ডিম বিক্রি করবে।

যোগাযোগ করা হলে অধিদপ্তরের প্রশাসন পরিচালক ডা. মোহাম্মদ রেয়াজুল হক জানান, তারা প্রাথমিকভাবে পণ্যের দাম নির্ধারণ করেছেন।

তিনি বলেন, 'প্রতিটি ডিম ১০ টাকায় বিক্রি হবে। গরুর মাংসের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে প্রতি কেজি ৬৪০ টাকা এবং সর্বনিম্ন আধা কেজি কেনা যাবে। একজন সর্বোচ্চ ২ প্যাকেট কিনতে পারবেন। প্রতি কেজি খাসির মাংসের দাম পড়বে ৯৫০ টাকা।'

তিনি আরও বলেন, 'ড্রেসিং করা ব্রয়লার মুরগির দাম নেওয়া হবে প্রতি কেজি ৩৪০ টাকা, যা বাজারে বিক্রি হয় ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকায়।'

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিটি ডিমের বর্তমান দাম ১১ টাকা ২৫ পয়সা, গরুর মাংস ৭৫০ টাকা কেজি, খাসির মাংস ১ হাজার ১০০ টাকা কেজি এবং প্রতি কেজি জীবন্ত ব্রয়লার ২৬০ টাকা কেজি।

বিক্রির জন্য পয়েন্ট এখনো চূড়ান্ত করা হয়নি জানিয়ে মোহাম্মদ রেয়াজুল হক বলেন, 'প্রাথমিকভাবে রাজধানীতে ১৫টি পয়েন্ট নির্ধারণ করা হয়েছে। এটা বাড়িয়ে ২০টি পয়েন্ট করা হতে পারে।'

গত বছরের প্রথম থেকে ২৮ রমজান পর্যন্ত একই ধরনের উদ্যোগ নিয়েছিল মন্ত্রণালয়। নথি থেকে দেখা যায়, গরুর মাংস ৫৫০ টাকা কেজি, খাসির মাংস ৮০০ টাকা কেজি, ড্রেসিং করা ব্রয়লার মুরগি ২০০ টাকা কেজি এবং প্রতিটি ডিম বিক্রি করা হয়েছে সাড়ে ৭ টাকায়।

Comments

The Daily Star  | English

Garment export grows in non-traditional markets 

Garment shipment to non-traditional markets grew 11.69 percent year-on-year to $5.46 billion in July-January of the current fiscal year

5h ago