‘গ্রামের মানুষকে চিকিৎসা নিতে যেন ঢাকায় আসতে না হয়, সেটি নিয়ে কাজ করব’

দেশে স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়ানোর পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতি রোধে জিরো টলারেন্স মেইনটেইন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।
সামন্ত লাল
স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। ছবি: সংগৃহীত

সারাদেশে স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়ানোর পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতি রোধে জিরো টলারেন্স মেইনটেইন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।

আজ রোববার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সচিব, মহাপরিচালক, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর রোববার প্রথম মন্ত্রণালয়ে আসেন সামন্ত লাল সেন। 

দুপুর ১২টায় তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

মন্ত্রী বলেন, 'স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আমি নতুন লোক নই। প্রধানমন্ত্রী আমাকে গুরুদায়িত্ব দিয়েছেন। দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন। এই নির্দেশনা আমি যেকোনো মূল্যে পালন করব।'

শিগগির তিনি দেশের হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করবেন জানিয়ে বলেন, 'টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়াতে আমার সাধ্যের সবটুকু দিয়ে কাজ করব।'

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতি রোধে কী করবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে সামন্ত লাল সেন বলেন, 'রাতারাতি কোনো কিছুই সম্ভব হয় না। তবে দুর্নীতি রোধে জিরো টলারেন্স মেইনটেইন করব। কোথাও দুর্নীতি হলে শতভাগ নিরপেক্ষ থেকে দ্রুত ব্যবস্থা নেবো। আমি নিজে ব্যবস্থা নিতে না পারলে সেটি সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে জানাবো। এরপর যা করার তিনিই করবেন।'

সরকারি হাসপাতালে সেবা বৃদ্ধি করা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, আমি যেন দেশের হাসপাতালগুলো নিজে পরিদর্শন করে দেখি এবং কার্যকর ব্যবস্থা নেই। আমি খুব দ্রুতই দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেবো।'

তিনি বলেন, 'আমার বিশেষ লক্ষ্য থাকবে গ্রামের হাসপাতালগুলোর প্রতি। গ্রামের মানুষকে চিকিৎসা সেবা নিতে যেন ঢাকায় আসতে না হয়, গ্রাম থেকেই যেন ভালো চিকিৎসা পায় সেটি নিয়ে আমরা কাজ করব।'

এ সময় স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম, বিএসএমএমইউর ভিসি শারফুদ্দিন আহমেদ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহান আরা বানু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে দুপুর ২টায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে ভুটান থেকে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী 'কার্ম ডেমা'র চিকিৎসা ব্যবস্থার খোঁজ নেন ও হাসপাতাল পরিদর্শন করে অন্যান্য রোগীদের সেবা কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন।

Comments