ফ্যাশন ও সৌন্দর্য
ব্লেন্ডারস চয়েস-দ্য ডেইলি স্টার ওটিটি অ্যাওয়ার্ড

প্রিয় তারকার নজরকাড়া সাজ-পোশাক

চলতি বছর আমাদের বিনোদন অনেকটাই সমৃদ্ধ হয়েছে। গান থেকে শুরু করে সিনেমা, কিংবা ওয়েব সিরিজ থেকে শুরু করে পারসোনাল ব্লগ সবক্ষেত্রেই ছিল সবার দুর্দান্ত ও নজরকাড়া পারফরমেন্স। তাই বলতেই পারি দীর্ঘদিন পর হলেও বাংলাদেশের সিনেমা ও ওয়েব সিরিজ নিয়ে চলচ্চিত্র সমালোচকরা আবারও কথা বলছেন।
ছবি: শেখ মেহেদী মোর্শেদ

চলতি বছর আমাদের বিনোদন অনেকটাই সমৃদ্ধ হয়েছে। গান থেকে শুরু করে সিনেমা, কিংবা ওয়েব সিরিজ থেকে শুরু করে পারসোনাল ব্লগ সবক্ষেত্রেই ছিল সবার দুর্দান্ত ও নজরকাড়া পারফরমেন্স। তাই বলতেই পারি দীর্ঘদিন পর হলেও বাংলাদেশের সিনেমা ও ওয়েব সিরিজ নিয়ে চলচ্চিত্র সমালোচকরা আবারও কথা বলছেন।

চলতি বছরের বাংলা কন্টেন্টগুলো দর্শক বেশ ইতিবাচকভাবে গ্রহণ করেছেন। আর সেই মুহূর্তেই শুরু হলো ব্লেন্ডারস চয়েজ দ্যা ডেইলি স্টার ওটিটি ও ডিজিটাল কন্টেন্ট এওয়ার্ড-২০২১। গত ৩ সেপ্টেম্বরে বঙ্গবন্ধু ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে বসেছিল তারকাদের মিলনমেলা। সেই মিলনমেলার হাজির হওয়া তারকাদের পোশাক ও সাজ নিয়ে এই লেখা।

আরিফিন শুভ
তিনি দেশীয় ফ্যাশনকে প্রাধান্য দিয়েছেন। সাদা কুর্তার সঙ্গে ম্যাচ করে পরেছিলেন ব্লু জিন্স। মাথায় ছিল টুপি ও গলায় সিলভার রঙের মালা। আর চোখে ছিল ব্রাউন রঙের শেডস। বলা যায় প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের ফিউশন ছিলে আরিফিন শুভর স্টাইলে।

অরুণা বিশ্বাস
অরুণা বিশ্বাস ঐতিহ্যকে বেশি প্রাধান্য দিয়েছেন। তিনি জামদামি শাড়ি পরেন। যেখানে ছিল নীল, হলুদ আর সামুদ্রিক সবুজ রঙের মিশেল। কানে পরেছিলেন স্বর্ণের ঝুমকা, আর খোঁপায় বেলি ফুলের গাজরা। এমন সাজে অরুণা হয়ে উঠেছিলেন অনন্য।

শান্তা ইসলাম
শান্তা ইসলাম পিচ পিংক রঙের জামদানি বেছে নেন। তাতেই আলোকিত করে রেড কার্পেট। তবে তার গয়নায় ছিল বৈচিত্র্য। পাফ স্লিভ ব্লাউজের সঙ্গে শাড়ি, গলা ও হাতে ভারি গয়নায় তাকে সবার মাঝে আলাদা করে তুলেছিল।

শিরিন আক্তার শায়লা
জমকালো রেড কার্পেট সন্ধ্যার জন্য শায়লা বেছে নেন মেহের বাই সামিনা সারার একটি ড্রেস। পুরো ড্রেসেই ক্রিস্টাল ও পাথরের স্টোন বসানো। তার থেকেও সুন্দরভাবে ফুটে উঠেছে তার গাড় লাল রঙের লিপস্টিক। রঙ নিয়ে তার পছন্দ প্রশংসা করার মতো।

সৌমিক আহমেদ
অভিনেতা ও ইউটিউবার সৌমিক আহমেদ রেড কার্পেটের জন্য বেছে নেন কালো রঙের শুট। পুরো শুটেই কালো রঙের ক্রিস্টাল অ্যামব্রয়াডারি করে বসানো হয়েছে। এ ড্রেসটি সৌমিক মেহের বাই সামিনা সারা থেকে কাস্টমাইজ করে বানিয়েছেন বলে উল্লেখ করেন। তাই বলাই যায় সৌমিক নিজের স্টাইলেই আলোচনায় ছিলেন।

সোহেল মণ্ডল
সাদা স্ট্রাইপযুক্ত টাক্সেডো শার্ট, কালো টাক্সেডো প্যান্ট, টাই এবং কালো চশমা পরিহিত সোহেল ভিড়ের মধ্যে নজর কেড়েছিলেন। তার পুরো ড্রেস তৈরি করেন ছেলেদের পোশাক প্রস্তুতকারী ব্রান্ড রুল মেকার।

জিনাত সানু স্বাগতা
স্বাগতা প্যাস্টেল কালারের ফ্লোরাল শাড়ি পরেন। তার সঙ্গে মিলিয়ে পরেন মিন্ট গ্রিন রঙের ব্লাউজ। সাজের ক্ষেত্রে স্বাগতা প্রাধান্য দেন কম প্রসাধনী ব্যবহারে বর্তমানের জনপ্রিয় ন্যুড মেকআপ। পুরো সাজকে পূর্ণতা দিতে তিনি কানে ঐতিহ্যবাহী ঝুমকা পরেন।

অর্চিতা স্পর্শিয়া
একেবারে গাঢ় কালো রঙের জাম্পশুটের সঙ্গে কালো হিল পরেন স্পর্শিয়া। কানে পরেন মুক্তার টপ এবং গলায় মুক্তার মালা। একেবারেই কম মেকআপে স্পর্শিয়াকে একদম ক্লাসি, স্যাসি ও ফ্রেশ লাগছিল।

অবন্তী সিথি
পায়ে ব্যথা থাকা সত্ত্বেও সিথি রেড কার্পেট ইভিনিংয়ে উপস্থিত হন এবং তিনি সবাইকে মোহিত করেন। তার পরনে ছিল সাদা রঙের গাউনের মধ্যে ফ্লোরাল ইম্প্রিন্ট। সাধারণ সাজেই তাকে বেশ সুন্দর লাগছিল।

আরমিন মুসা
ক্লাসিক ব্ল্যাককে আরও বেশি রকিং বানান আরমি মুসা। কালোর সঙ্গে হলুদ কম্বিনেশনের শাড়ি ছাড়াও তার কানে পুরনো ডায়নোসর কানের দুল সবার মাঝে অনন্য করে তোলে।

চঞ্চল চৌধুরী
রয়েল ব্লু টাইডাই পাঞ্জাবিতে চঞ্চল চৌধুরীর লুকি ছিল বিনয়ী। চোখে পরেন মোটা ফ্রেমের চশমা। সবমিলিয়ে তাকে অনেক পরিপাটি লাগছিল। কী জানি হয়তো তিনি কোনো চরিত্রের মধ্যে ছিলেন। নন্দিত এই অভিনেতাকে পুরো অনুষ্ঠানজুড়েই বেশ হাসিখুশি ছিলেন।

ইন্তেখাব দিনার
ভারী অ্যামব্রয়ডারি কাজ করা অ্যাশ ব্রাউন পাঞ্জাবিতে দিনারকে বেশ গর্জিয়াস ও রেডকার্পেটের সঙ্গে মানানসই লাগছিল। সঙ্গে পাঞ্জাবিতে তার সাজে দেশীয় আভার স্পষ্ট ছাপ ছিল।

এফ এস নাইম
নাইম ছিলেন পুরোপুরি কালো আবেশে। তিনি তার পোশাকের জন্য ধন্যবাদ দিয়েছেন আর্টিস্ট্রি, বিডি এক্সপ্রেস ও গ্যান্ট চেলসাকে।

চয়নিকা চৌধুরী
লাল কমলা রঙের শাড়িতে ছিল গোল্ডেন পাড়। একেবারেই সাদামাটা গয়নার সঙ্গে কপালে ছোট্ট টিপ। চয়নিকা চৌধুরী আবারও প্রমাণ করলেন সাধারণের মধ্যেই রয়েছে অসাধারণ সৌন্দর্য।

রেহান রাসুল
সাদা প্যান্টের সঙ্গে ব্লু শার্ট, এ যেন পুরনো ফ্যাশনেরই নতুন সংযোজন। রেহান রাসুলের পোশাক ছিল সব তাগা থেকেই।

এলিনা শাম্মী
শাম্মী ছিলেন পুরোপুরি রেট্রো সাজে। কালো শাড়িতে গোল্ডেন ইম্প্রিন্টে তাকে দারুণ লাগছিল। তার কালো চুল ও সুন্দর হাসি যেন মেকআপকে হার মানিয়ে দেয়।

ফারিয়া শাহরিন
সেই কালো ও লালের ক্লাসিক যুগলবন্দী ছিলো ফারিয়ার পোশাক জুড়ে। তাকে দেখতে বেশ সুন্দর লাগছিল। তার শাড়িতে ইম্প্রিট করা ছিলো বড় বড় গোলাপ, যা তারই সৌন্দর্যের রূপক।

রোকসানা আলী হীরা
ব্ল্যাক জাম্পশুটে রোকসানাকে বেশ সুন্দর লাগছিল। এমন ক্লিন লুকে তাকে বেশ মানিয়েছে। সেই সঙ্গে পুরো সন্ধ্যায় নজর কেড়েছিল তার গলার সিলভার নেকলেস।

জিয়াউল রোশান
পুরো অনুষ্ঠানের মধ্যে ফ্যাশনে একটি ভিন্নমাত্রা জুড়ে দেন রোশান। তার টি-শার্ট ও প্যান্ট পরা দেখে মনে হচ্ছিলো- যেন পার্কে হাঁটতে বের হয়েছেন। আরামদায়ক কোনো কিছুও যে ফ্যাশন হতে পারে তারই বহি:প্রকাশ ছিলো রোশানের পোশাকে।

রোজিনা
চিরশ্যামল অভিনেত্রী রোজিনাকে বেশ গর্জিয়াস লেগেছে পুরো সন্ধ্যা জুড়েই। কমলা লাল রঙের শাড়ির সঙ্গে গলায় পরেন ডায়মন্ড নেকলেস। চুলে ছিল খুব সাধারণ একটি খোঁপা। তবে সবচেয়ে নজরকাড়া ছিল তার গাঢ় কমলা রঙের লিপস্টিক।

পিয়া জান্নাতুল
সুপার মডেল পিয়া পরেন আইভোরি সাদা রঙের একটি গাউন। যেটির কাঁধে ও হাতায় ছিল গোল্ডেন সিকুয়েন্সের ভারী এমব্রয়ডারি করা। তার সাজের সঙ্গে পিয়া ন্যুড মেকআপ ও গ্লোসি লিপকে বেশ ভালোভাবেই মানিয়ে নেন।

সাফা কবীর
হাল্টার নেক ব্লাউজ ও পাউডার ব্লু শাড়িতে সাফাকে দেখে সবাই শুধু জিজ্ঞেস করছিলেন কার ডিজাইন করা। উত্তরে সাফা বলেন, বাটারফ্লাই বাই শেগুফতার নাম- যাদের ড্রেস তিনি যেকোনো বড় অনুষ্ঠানেই পরেন।

নাদিয়া ডোরা
নাদিয়া পরেন মকমলের একটি লম্বা ড্রেস। সঙ্গে ন্যুড কালারের স্টিলেটো হিল। তবে তার পায়ের সিলভার নূপুরের উঁকিঝুঁকি সবচেয়ে বেশি নজরকাঁড়া ছিল।

শাহনাজ খুশি
সাদামাটা ও দেশীয় সাজে অনন্য লাগছিলো শাহনাজ খুশিকে। পরনে ছিল ভেজিটেবল ডাই করা শাড়ি, হাতে বানানো দেশীয় গয়না ও দেশীয় লেদারের ব্যাগ। তার সাজসজ্জায় কোনো অতিরঞ্জিত ভাব ছিল না। তাকে বেশ সুন্দর লাগছিল।

শবনম ফারিয়া
ফারিয়া পরেন অ্যাশটোন জামদামি শাড়ি। তাতে ছিল গোলাপি রঙের বর্ডার। দেশীয় লুকে তাকে বেশ সুন্দর লাগছিল। তবে সবচেয়ে ভালো লেগেছে তার কপালের ছোট টিপ।

শহীদুল আলম সাচ্চু
রেট্রো শেডস, বেগুনি ব্লেজারে নীল রঙের ইনার- সঙ্গে জিন্স প্যান্টে শহীদুল আলম সাচ্চুকে দেখে মনে হচ্ছিল তিনি যেন রেড কার্পেটের রেট্রো ট্রিবিউট।

কৌশিক সরকার দাস
সেরা এই পরিচালক পরেছেন কালোর মধ্যে ফুলের ছাপ দেওয়া দেশীয় পাঞ্জাবি। তার স্টাইল অনুযায়ী তাকে সবার মধ্যে অনন্য লাগছিল।

মনোজ কুমার প্রামাণিক
মনোজ কুমারের স্টাইলে ছিল নানা বৈচিত্র্য। কালো রঙের পাঞ্জাবির সঙ্গে তিনি পরেছিলেন প্যাচ ওয়ার্ক ও হ্যান্ড অ্যামব্রয়ডারি করা কোটি।

সামিনা হোসোইন প্রেমা
বিখ্যাত নৃত্যশিল্পী প্রেমা পরেন বোতল গ্রিন রঙের মনিপুরী শাড়ি। সঙ্গে ছিল গোল্ডের গয়না ও চুলে গুজে রেখেছিলেন একটি তাজা সাদা ফুল। এই সাজ যেন তার একান্তই ব্যক্তিগত।

অনুবাদ করেছেন আরউইন আহমেদ মিতু

Comments

The Daily Star  | English

'Why haven't my parents come to see me?'

9-year-old keeps asking while being treated at burn institute

10m ago