শখের কাজ শুরু করবেন যেভাবে

শখের কাজ করতে হলে আগে নিজেকে সৃজনশীল হতে হবে।
পছন্দের কাজ শুরু করবেন যেভাবে
ছবি: সংগৃহীত

আপনি কি কখনো এমন একটি ছকে বাঁধা জীবনে আটকা পড়েছেন যা আপনার সত্যিকারের আবেগ এবং আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়? এই শেকল থেকে মুক্ত হয়ে আপনার পছন্দের বা মন মতো কোনো কাজ করতে চান? এমন দিনগুলোর কথা কল্পনা করুন যেখানে সকালে আপনি বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনা নিয়ে কাজে বের হবেন, কারণ যে কাজটি করতে যাচ্ছেন, সেটি আপনার পছন্দ বা শখের কাজ।

আপনি যদি আত্ম-উপলব্ধি ও পূর্ণতার লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করতে প্রস্তুত থাকেন, তাহলে এমন পথ অনুসরণ করুন যা আপনার আবেগ ও স্বপ্নকে পরিপূর্ণতা দিতে পারবে।

শখের কাজ করতে হলে আগে নিজেকে সৃজনশীল হতে হবে। আমরা যখন এমন কোনো কাজ খুঁজে পাই, যা আমাদের আবেগকে তাড়িত করে, তাহলে সম্ভাবনার এক বিশাল দ্বার আমাদের সামনে উন্মোচিত হতে পারে। এই কাজ আমাদের সৃজনশীল সত্তাকে জাগ্রত করতে পারে এবং নিজেকে খোলামেলাভাবে প্রকাশে উৎসাহিত করতে পারে। আঁকাআঁকি, লেখালেখি, বাদ্যযন্ত্র বাজানো কিংবা বাগান করা- ইত্যাদি অনেক কাজই আমাদের আগ্রহের অনুভূতিকে জাগ্রত করতে পারে।

ব্যক্তিগত উন্নতির জন্য কমফোর্ট জোন বা পছন্দের অবস্থান থেকে বের হয়ে আসতে হবে। এটি  আপনাকে বাইরে যেতে, ঝুঁকি নিতে এবং নতুন দক্ষতা রপ্ত করতে উৎসাহিত করবে। রান্না বা নাচ শেখা, বিশেষ কোনো খেলা আয়ত্তে আনা, কিংবা এ ধরণের অন্যান্য প্রচেষ্টাগুলো আপনার ব্যক্তিগত দক্ষতা উন্নতিতে ভূমিকা রাখে। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার শক্তি, দুর্বলতা এবং লক্ষ্য সম্পর্কে গভীর ধারণা অর্জন করতে পারবেন। এসব কাজে শ্রম ব্যয় হলেও এর মাধ্যম নতুন আগ্রহ অনুসন্ধান ও সুপ্ত প্রতিভা আবিষ্কার করা যায়। ফলে নিজেকে আরও ভালোভাবে চিনতে ও বুঝতে পারা যায়, যা আপনাকে আরও আত্মবিশ্বাসী এবং পরিপূর্ণ করে তোলে।

আপনার অবসর সময়ের সর্বোত্তম ব্যবহার করা যেমন খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি কাজ এবং বিশ্রামের মধ্যে ভারসাম্য খুঁজে বের করাটাও ততটাই গুরুত্বপূর্ণ। সবসময়ই উত্তেজনাকর কিছু করতে হবে, এই ধারণা থেকে বেরিয়ে আসুন। এমন কাজে নিজেকে নিয়োজিত রাখুন যার মাধ্যমে আপনি কিছুটা চিত্তবিনোদন পাবেন এবং যা একই সঙ্গে আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে। নিজের যত্নকে অগ্রাধিকার দিন এবং আপনার মন, শরীর এবং আত্মাকে পুনরুজ্জীবিত করে এমন কাজে সময় দিন।

আপনার পছন্দের বিষয়গুলোতে আরও গভীর মনোযোগ দিন। আপনি যত বেশি শিখবেন এবং বুঝতে পারবেন, তত বেশি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন। আপনার ইচ্ছা পূরণের লক্ষ্যে ছোট ছোট পদক্ষেপ নিতে শুরু করুন। হতে পারে অবসরে কোনো শখের কাজ করা, কিংবা আপনার পছন্দমতো কোনো ফ্রিল্যান্স কাজ করা। 

কোনো কাজে হঠাৎ করেই সফল হওয়া যায় না বা হুট করেই বড় কিছু শুরু করাও উচিত নয়। ছোট থেকে শুরু করুন এবং কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখুন, দেখবেন দ্রুতই কাজের গতি বাড়বে। আপনার আবেগ ও পছন্দের কাজের পেছনে সময় দিন এবং এটিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিন। এমনকি যদি অন্য কাজের বাধ্যবাধকতা থাকে, তাহলেও কাজগুলোর জন্য এমনভাবে সময় ভাগ করে নিন, যাতে আপনার নিজের পছন্দের কাজের জন্য সময় থাকে।

আপনাকে কাজ শুরু করতে হবে এবং কাজের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। ব্যস্ততা ও নানা অজুহাতে যদি কাজে বিরতি পড়ে, তাহলে একসময় আর মনোযোগ বা কৌতূহল কাজ করবে না। সঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষায় থাকবেন না। কারণ সঠিক সময় বলতে কিছু নেই। এমন কোনো সময় আসবে না যখন সবকিছু আপনার মনমতো হবে। নিজেকেই সময় তৈরি করে নিতে হবে। এই মুহূর্তে হাতে যা আছে, তা নিয়েই শুরু করতে হবে এবং সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

কোনো কাজে সফলতা পেতে হলে ধারাবাহিকতা ও অধ্যবসায় অত্যাবশ্যক। মনে রাখবেন, আপনার পছন্দের কাজ হলেও এতে সফলতা পেতে হলে পর্যাপ্ত ধৈর্য, উৎসর্গ ও আত্মবিশ্বাস প্রয়োজন। আপনার যাত্রা উপভোগ করুন এবং প্রতিটি মাইলফলক উদযাপন করুন।

অনুবাদ করেছেন আহমেদ হিমেল

Comments

The Daily Star  | English
Road crash deaths during Eid rush 21.1% lower than last year

Road Safety: Maladies every step of the way

The entire road transport sector has long been riddled with multifaceted problems, which are worsening every day amid apathy from the authorities responsible for ensuring road safety.

2h ago