দুর্ঘটনা ও অগ্নিকাণ্ড

চট্টগ্রামে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ট্রাফিক সার্জেন্ট নিহত

'প্রিয় সন্তানের মুখ দেখার জন্য অধীর আগ্রহে ছিলেন মুজাহিদ। সন্তানের মুখ দেখার আগেই সড়ক দুর্ঘটনায় নির্মমভাবে প্রাণ হারাতে হলো তাকে।’
মোহাম্মদ মুজাহিদ চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রামে দ্রুতগামী প্রাইভেটকারের ধাক্কায় মোটরসাইকেলে থাকা এক ট্রাফিক সার্জেন্ট নিহত হয়েছেন। তার নাম মোহাম্মদ মুজাহিদ চৌধুরী। তিনি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) বন্দর ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত ছিলেন।

গতকাল সোমবার রাত ১১টার দিকে বন্দরের আউটার রিং রোড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করেছেন সিএমপির বন্দর ট্রাফিক জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি জানান, পতেঙ্গা এলাকায় ডিউটি শেষ করে মোটরসাইকেলে করে ফৌজদারহাট যাওয়ার সময় দ্রুতগামী একটি প্রাইভেটকার পেছন থেকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই মুজাহিদ নিহত হন।

মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, 'পতেঙ্গা এলাকায় ডিউটি ছিল মুজাহিদের। আরেক সার্জেন্ট ও ১ কনস্টেবলের সঙ্গে আলাদা আলাদা বাইকে করে তারা ফৌজদারহাটের দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ওয়াই জংশন এলাকায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে দ্রুতগামী একটি প্রাইভেটকার তাকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দিলে সড়কে ছিটকে পড়েন মুজাহিদ। এরপর মুজাহিদকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পাহাড়তলি থানার পুলিশ প্রাইভেটকারটির চালককে আটক করেছে।'

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, মুজাহিদের স্ত্রী ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। আগামী মাসেই তিনি সন্তান প্রসব করবেন বলে চিকিৎসক সম্ভাব্য তারিখ জানিয়েছেন।

'প্রিয় সন্তানের মুখ দেখার জন্য অধীর আগ্রহে ছিলেন মুজাহিদ। সন্তানের মুখ দেখার আগেই সড়ক দুর্ঘটনায় নির্মমভাবে প্রাণ হারাতে হলো তাকে। আমি জানি না তার স্ত্রীকে কী বলে সান্ত্বনা দেবো', যোগ করেন তিনি।

এর আগে ২০১৯ সালের ১৭ অক্টোবর বন্দর জোনের আরেক ট্রাফিক সার্জেন্ট বকশী মোহাম্মদ আবদুল্লাহ (৩০) কর্মরত অবস্থায় কাভার্ড ভ্যানের চাপায় একই সড়কে নিহত হন।

Comments