ডিবিসি নিউজের সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৮

রাজধানীর তালতলা এলাকায় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসি নিউজের ক্রাইম রিপোর্টার সাইফুল ইসলাম জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদ আহমেদ।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

রাজধানীর তালতলা এলাকায় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন বেসরকারি টেলিভিশন ডিবিসি নিউজের ক্রাইম রিপোর্টার সাইফুল ইসলাম জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদ আহমেদ।

এ ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- মো. কাওছার ভূইয়া (৪২), মো. হাফিজ (২৮), মো. মহসিন ভূইয়া (২৫), মো. সুমন মিয়া (২৬), মো. মাসুম বিল্লা (২৫), মো. মাহবুব হোসেন (২৪), মো. আসিফ আকবর (২৭) ও মো. মাকসুদুল্লাহ (২৮)।

শেরেবাংলা নগর থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া দ্য ডেইলি স্টারকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, 'মারধরের ঘটনায় সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম ৮ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত চার-পাঁচজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। মামলার পর ওই ৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অজ্ঞাত আসামিদেরও খুঁজে বের করতে চেষ্টা চলছে।'

মামলার বিবরণ অনুযায়ী, আজ দুপুর দেড়টায় রাজধানীর তালতলা এলাকায় ভিক্টর ট্রেডিং করপোরেশনে মেডিকেলের যন্ত্রাংশ কেনাকাটায় অনিয়ম ও দুর্নীতির সংবাদ সংগ্রহ করতে যান ডিবিসি নিউজের ক্রাইম রিপোর্টার সাইফুল ইসলাম জুয়েল ও ভিডিওগ্রাফার আজাদ আহমেদ।

সেসময় ওই প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী কাওছার ভুইয়া ও তার সহযোগীরা  এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা।

মামলায় সাইফুল ইসলাম জুয়েল জানান, ওই প্রতিষ্ঠানের অফিসরুমের দরজা খুলে দেন মাসুম। কাজ শুরু করলে সুমন তাদের বাধা দেন ও তর্কে জড়ান।

একপর্যায়ে ১২-১৩ জন সেখানে এসে রুমের দরজা বন্ধ করে তাদের সঙ্গে থাকা ভিডিও ক্যামেরা, মোবাইল, মাইক্রোফোন, মানিব্যাগ ও পরিচয়পত্র ছিনিয়ে নেয় এবং প্রচন্ড মারধর করে।

তাদেরকে সেখানে প্রায় ২ ঘণ্টা আটকে রেখে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দুজন সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। 

Comments

The Daily Star  | English
Depositors money in merged banks

Depositors’ money in merged banks will remain completely safe: BB

Accountholders of merged banks will be able to maintain their respective accounts as before

3h ago