অপরাধ ও বিচার

ক্রসফায়ারের হুমকি, যাত্রীর মালামাল লুটের অভিযোগে বিজিবি সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা

ভারতফেরত বাংলাদেশি এক যাত্রীর মালামাল লুট ও ক্রসফায়ারের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে বেনাপোল বিজিবি আইসিপি ক্যাম্পে কর্মরত সিপাহি মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে।
যশোর
ছবি: স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

ভারতফেরত বাংলাদেশি এক যাত্রীর মালামাল লুট ও ক্রসফায়ারের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে বেনাপোল বিজিবি আইসিপি ক্যাম্পে কর্মরত সিপাহি মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে যশোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরমান হোসেন বাদী মাসুদ আহমেদের (৩০) অভিযোগ গ্রহণ করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন সিআইডিকে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. রহিন বালুজ এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

অভিযোগে বলা হয়, বাদী মাসুদ আহমেদ গত ৯ সেপ্টেম্বর ব্যবসায়িক কাজে বেনাপোল দিয়ে ভারতে যান। ১৬ সেপ্টেম্বর বেনাপোল দিয়ে দেশে ফেরার সময় তার পরিবারের জন্য ১০টি শাড়ি, ১০টি পাঞ্জাবি, ১০টি ফুল প্যান্ট, ২০টি চশমা এবং ৫ হাজার টাকা মূল্যের কসমেটিক সঙ্গে করে আনেন। মালামাল নিয়ে ইমিগ্রেশন, কাস্টমস, বিজিবি চেকপোস্ট চেকিং, স্ক্যানিং ও ক্লিয়ারেন্স কাজ সম্পন্ন করে ইজিবাইকে যশোরের উদ্দেশে রওনা হন।

পথে বেনাপোল চেকপোস্টের সাদিপুর মোড়ে বিজিবির সিপাহি মনিরুজ্জামান মোটরসাইকেলে করে ইজিবাইকের গতিরোধ করেন। তিনি এ সময় বাদীকে মালামালসহ বেনাপোল কোম্পানি ক্যাম্পে নিয়ে যান। বাদীকে বাইরে রেখে ক্যাম্পের ভেতরে মালামাল নেওয়া হয়। বিজিবির সিপাহি মনিরুজ্জামান বাদীকে বলেন, এগুলো নিতে হলে তাকে ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে।

বিষয়টি বাদী ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানাবেন বললে- সিপাহী মনিরুজ্জামান বাদীকে ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে অস্ত্র মামলায় ফাঁসানোর কথা বলেন। তাকে একপর্যায়ে ঢাকায় ফিরে যেতে বাধ্য করেন।

অভিযোগ নিয়ে জানতে চাইলে বিজিবির বেনাপোল কোম্পানির সিপাহি মনিরুজ্জামান বলেন, 'আমি কোনো মালামাল জব্দ করিনি। আমার বিরুদ্ধে করা অভিযোগও সঠিক নয়।'

৪৯ বিজিবির কমান্ডিং অফিসার লে. কমান্ডার সাহেদ মো. মিনহাজ বলেন, আদালতে মামলা করার আগে বাদি আমাদের কাছে অভিযোগ দিতে পারতেন। আমরা বিষয়টি আমলে নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারতাম।

Comments