মানিকগঞ্জ-১

জাপাকে সমর্থন দিয়ে নৌকার প্রার্থী প্রত্যাহার, বড় জয়ের প্রত্যাশা আ. লীগ স্বতন্ত্রের

এ আসন থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালামকে মনোনয়ন দেওয়া হলেও পরে দলের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন তিনি।

জাতীয় পার্টির (জাপা) সঙ্গে সমাঝোতার পর মানিকগঞ্জ-১ আসনে নৌকা প্রার্থী আব্দুসের সালামকে সরিয়ে জাপা প্রার্থী মোহাম্মদ জহিরুল আলম রুবেলকে সমর্থন জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।

এ আসন থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালামকে মনোনয়ন দেওয়া হলেও পরে দলের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন তিনি।

ফলে, এ আসনে অনেকটা সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ। ঈগল প্রতীকে নির্বাচনে লড়ছেন তিনি।

এই আসনে মোট ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অন্য দুই প্রার্থী হলেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট মুভমেন্ট (বিএমএম) মনোনীত প্রার্থী মোনায়েম খান (নোঙ্গর) ও গণফ্রন্টের প্রার্থী মোহাম্মদ শাহজাহান (মাছ)। তবে তারা এখনও নির্বাচনী আলোচনায় উঠে আসতে পারেননি।

নির্বাচনের মাঠে সক্রিয় রয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ। জাপা প্রার্থী মোহাম্মদ জহিরুল আলম রুবেলকেই একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিবেচনা করছেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সর্বোস্তরের নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে আছেন উল্লেখ করে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ জানান ঈগল প্রতীকের এই প্রার্থী।

সালাউদ্দিন মাহমুদ বলেন, 'লাঙ্গল হচ্ছে স্বৈরাচারের প্রতীক। ১৯৯০ সালে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাসদ, কমিউনিস্ট পার্টিসহ সকল গণতান্ত্রিক দল সম্মিলিতভাবে আন্দোলন করে এই স্বৈরাচারের পতন ঘটিয়েছে। এদেশের মানুষ আর লাঙ্গলে ভোট দেবে না। এবারের নির্বাচনে আমার এলাকার ভোটাররা আমাকে ভোট দেবে।'

'৪৩ বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি। নেত্রী আমাকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি মাঠে আছি। ভোটারের উপস্থিতি বাড়াতে সর্বস্তরের জনগনকে সঙ্গে নিয়ে চেষ্টা করছি। সারাদেশে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে এই আসনটি নেত্রীর হাতে তুলে দেব বলে আশা করি,' বলেন তিনি।

এদিকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা 'লাঙ্গল' প্রতীকের প্রচারণায় কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোহাম্মদ জহিরুল আলম রুবেল।

তিনি বলেন, 'আমি মানিকগঞ্জ-১ ও মানিকগঞ্জ-৩ আসনে লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচন করছি। ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিকে যে ২৬টি আসন ছেড়ে দিয়েছে তার মধ্যে মানিকগঞ্জ-১ আসনটিও আছে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী এখানকার নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন এবং তিনি ও আওয়ামী লীগের লোকজন আমার প্রচারণায় কাজ করছেন।'

ঘিওর, দৌলতপুর ও শিবালয় উপজেলা নিয়ে গঠিত মানিকগঞ্জ-১ আসনে ২০১৪ ও ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য হন সাবেক ক্রিকেটার এ এম নাঈমুর রহমান দূর্জয়। আসন্ন নির্বাচনে এই আসনের মোট ভোটার ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৯৯৭ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ২ লাখ ১৭ হাজার ৫০৪ জন, পুরুষ ভোটার ২ লাখ ১৯ হাজার ৪৯১ জন এবং হিজরা ভোটার দুজন।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমাঝোতায় ২৫টি আসন পেয়েছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। সমাঝোতা হওয়া ২৫টি আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের সরিয়ে জাপা প্রার্থীকে সমর্থন দিচ্ছে আওয়ামী লীগ।

Comments

The Daily Star  | English

The ones who stayed for some extra cash

Workers who came to the capital or stayed back to earn some extra cash during the Eid-ul-Azha thronged Gabtoli and nearby areas for buses

2h ago