ঢাকা-১৮

শীতের রোদে অলস সময় কাটাচ্ছেন নির্বাচনী কর্মকর্তারা

ভোট কক্ষগুলোতে নির্বাচনী কর্মকর্তারা এক রকম অলস সময়ই পার করছেন। কারণ ভোটার নেই।
ভোটারের দেখা নেই। শীতের রোদে অলস সময় কাটাচ্ছেন নির্বাচনী কর্মকর্তারা। উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে দুপুর ১২টায় তোলা ছবি। ছবি: মামুনুর রশিদ/স্টার

কেন্দ্রের বাইরে প্রার্থীদের নির্বাচনী ক্যাম্পগুলোতে কর্মী-সমর্থকদের মোটামুটি জমায়েত আছে। শীতের রোদে চেয়ার নিয়ে গোল হয়ে বসে গল্প করতেও দেখা গেল কাউকে কাউকে। কিন্তু কেন্দ্রের ভেতরের চিত্র এর পুরোটা বিপরীত।

ভোট কক্ষগুলোতে নির্বাচনী কর্মকর্তারা এক রকম অলস সময়ই পার করছেন। কারণ ভোটার নেই।

আজ রোববার সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকা-১৮ আসনের বিভিন্ন এলাকার অন্তত ১৬টি কেন্দ্র ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

এসব কেন্দ্রের পোলিং এজেন্টদের দেওয়া তথ্য অনুসারে, দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৪ ঘণ্টায় ভোটগ্রহণের হার ১-২ শতাংশের মধ্যে।

দুপুর ১২টায় উত্তরা হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৫ নম্বর কেন্দ্রের (নারী) প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সুলতান উদ্দীন ডেইলি স্টারকে জানান, এই সময়ের ভেতর তার চারটি বুথে মোট ৩৩টি ভোট পড়েছে। এই কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬৪৯।

অন্যদিকে ৬ নম্বর কেন্দ্রে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ২৪টি ভোট পড়ার কথা জানিয়েছেন প্রিসিডিং কর্মকর্তা মো. শাহজালাল। এই নারী কেন্দ্রে মোট ভোটারের সংখ্যা ২২৭৩।

এই কেন্দ্রেই সাড়ে ১১টার দিকে ভোট দেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী শেরীফা কাদের। ভোটার উপস্থিতির বিষয়ে টের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, 'মেয়েরা হয়তো বাড়িতে রান্নার কাজে ব্যস্ত আছে। দুপুরের পর নিশ্চয় ভোটারের সংখ্যা বাড়বে।'

ঢাকায় জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেওয়া এই আসনে লাঙ্গলে আর প্রার্থী শেরীফা কাদেরের বাইরে কেটলি প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে আছেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. খসরু চৌধুরী এবং ট্রাক প্রতীকে মাঠে আছেন দলের এই কমিটির মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক প্রার্থী এস এম তোফাজ্জল হোসেন।

এর আগে সকাল ৮টা থেকে রাজউক উত্তরা মডেল কলেজে চারটি কেন্দ্র ঘুরেও দেখা গেছে, ভোটার উপস্থিতি একেবারেই কম।

সেখানকার প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা জানান, কেন্দ্রগুলোতে সকাল ১০টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টায় ভোটগ্রহণের হার ছিল এক শতাংশের কিছু বেশি।

অভ্যন্তরীণ সূত্র জানায়, এবার আসন ভাগাভাগি নিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাপার আলোচনা দীর্ঘায়িত হয় শেরীফা কাদেরকে ঘিরেই। ক্ষমতাসীন দল ঢাকায় কোনো আসনে জাপাকে ছাড় দিতে রাজি ছিল না। বিপরীতে একটি আসন না পেয়ে ভোট থাকার চূড়ান্ত ঘোষণা দিতেও রাজি ছিল না জাপা। পরে ঢাকা-১৮ শেরীফা কাদেরকে ছেড়ে দেওয়ার পর ভোটে থাকার চূড়ান্ত ঘোষণা দেয় জাপা।

এমন অবস্থায় আওয়ামী লীগের কোনো পক্ষের সমর্থন না পেয়ে শেরীফা কাদের খানিকটা বেকায়দায় পড়লও আজ জয়ের ব্যপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। ভোটের পরিবেশ নিয়েও কোনও অভিযোগ শোনা যায়নি তাঁর মুখ থেকে জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগের কিছুটা সমর্থন তিনি পাচ্ছেন।

কেন্দ্রের বাইরে লাঙল, কেটলি ও ট্রাক প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের 'সহাবস্থানও' ছিল চোখে পড়ার মতো।

উত্তরা, তুরাগ, উত্তরখান, দক্ষিণখান, বিমানবন্দর ও খিলক্ষেত এলাকায় বিস্তৃত এই আসনে ২১৭ কেন্দ্রে মোট ভোটারের সংখ্য ৫৮৮৬০৮ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Traffic jam, delay in train schedule mar Eid journey

With people starting to leave the capital ahead of the Eid-ul-Azha, many endured sufferings today due to a snarl-up on a major highway and delayed departure of at least 10 trains

52m ago