তিস্তার পানি প্রত্যাহারে ‘ভারতের সর্বনাশা চক্রান্ত’ বন্ধের দাবি

তিস্তার উজানে গজলডোবায় বাঁধ দিয়ে পানি সরিয়ে নেওয়ার কারণে আমাদের উত্তরবঙ্গ মরুভূমির পথে। ভারতের পানি আগ্রাসনের কারণে আমাদের প্রাণ-প্রকৃতি-প্রতিবেশ আজ বিপন্ন। 
রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে ‘তিস্তা বাঁচাও আন্দোলন’-এর উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: স্টার

তিস্তার উজানে গজলডোবায় বাঁধ দিয়ে পানি সরিয়ে নেওয়ার কারণে আমাদের উত্তরবঙ্গ মরুভূমির পথে। ভারতের পানি আগ্রাসনের কারণে আমাদের প্রাণ-প্রকৃতি-প্রতিবেশ আজ বিপন্ন। 

প্রমত্তা তিস্তা ধু-ধু বালুচরে পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার মৎস্যজীবী ও মাঝি বেকার হয়ে পথে বসেছেন। তিস্তায় পানি না থাকায় কৃষি উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এরমধ্যে আবার ভারত নতুন দুটি খাল খনন করে তিস্তার পানি প্রত্যাহারের পাঁয়তারা করছে, যা সর্বনাশা চক্রান্ত।

আজ শনিবার সকাল ১১টায় 'তিস্তা বাঁচাও আন্দোলন'-এর উদ্যোগে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। ‌

সমাবেশে বক্তারা আরও বলেন, ভারত আন্তর্জাতিক নদী আইন লঙ্ঘন করে একতরফাভাবে তিস্তাসহ অভিন্ন ৫৪ নদীর পানি প্রত্যাহার করছে। ভারতের জলপাইগুড়ি ও কোচবিহারে নতুন খাল খনন করে পানি প্রত্যাহারের যে ব্যবস্থা নিয়েছে, তা বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলার জন্য ভয়ানক বিপদ ডেকে আনবে।

ভারতের এই নতুন খাল খননের মাধ্যমে তিস্তার পানি প্রত্যাহারের সর্বনাশা চক্রান্ত বন্ধ ও তিস্তাসহ অভিন্ন ৫৪ নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে সরকারের কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান বক্তারা।

সংগঠনের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট পলাশ কান্তি নাগের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন অধ্যাপক মোজাহার আলী, অধ্যাপক আব্দুস সোবহান, মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর হোসেন চাঁদ, সাংবাদিক বাবলু নাগ, শ্রমিক নেতা সবুজ রায়, মসিউর রহমান এবং নারীনেত্রী সানজিদা আক্তারসহ অন্যরা।

 

Comments

The Daily Star  | English

Diagnose dengue with ease at home

People who suspect that they have dengue may soon breathe a little easier as they will not have to take on the hassle of a hospital visit to confirm or dispel the fear.

18m ago