সারা বিশ্ব যেন বলতে পারে বাংলাদেশে নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে: মার্কিন কংগ্রেস সদস্য

বৈঠক শেষে জাপা এমপি রানা মোহাম্মদ সোহেল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেছেন, ‘দুই কংগ্রেসম্যানের মধ্যে সিনিয়র একজন আমাদের স্পষ্টভাবে বলেছেন যে তারা বাংলাদেশে এমন একটি নির্বাচন দেখতে চান যাতে পুরো বিশ্ব বলতে পারে নির্বাচনটি নিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।’
এড কেইস ও রিচার্ড ম্যাকরমিক

সফররত মার্কিন কংগ্রেস সদস্য এড কেইস এবং রিচার্ড ম্যাকরমিক আজ বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে এমন একটি নির্বাচন দেখতে চায় যাতে সারা বিশ্ব বলতে পারে দেশে একটি নিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক নির্বাচন হয়েছে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের বাসভবনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিএনপি এবং সংসদে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে দুই মার্কিন কংগ্রেসম্যান এ কথা বলেন।

বৈঠক শেষে জাপা এমপি রানা মোহাম্মদ সোহেল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেছেন, 'দুই কংগ্রেসম্যানের মধ্যে সিনিয়র একজন আমাদের স্পষ্টভাবে বলেছেন যে তারা বাংলাদেশে এমন একটি নির্বাচন দেখতে চান যাতে পুরো বিশ্ব বলতে পারে নির্বাচনটি নিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।'

বৈঠকে জাপার তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল উপস্থিত ছিলেন। প্রতিনিধি দলের অন্য দুই সদস্য হলেন- জাপা সংসদ সদস্য শেরীফা কাদের ও নাজমা আক্তার। বৈঠকে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসও উপস্থিত ছিলেন।

জানতে চাইলে রানা মোহাম্মদ সোহেল বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠান এবং নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেওয়ার বিষয়ে বিএনপি ও অন্য বিরোধী দলের দাবির বিষয়ে মার্কিন কংগ্রেসের দুই সদস্য কিছুই বলেননি।

জাপা এমপি বলেন, মার্কিন কংগ্রেস সদস্যরা আওয়ামী লীগ ও বিএনপির রাজনৈতিক লক্ষ্যের মধ্যে পার্থক্য জানতে চেয়েছেন।

'আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয়েই এই প্রশ্নে সুনির্দিষ্ট বা স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেনি। তারা শুধু উত্তর দিয়েছে তারা কী করেছে আর কী করবে না,' যোগ করেছেন জাপা এমপি।

কংগ্রেসম্যান ম্যাকরমিক জর্জিয়া থেকে রিপাবলিকান পার্টির প্রতিনিধিত্ব করছেন এবং এড কেইস হাওয়াইয়ের ডেমোক্র্যাটিক পার্টির কংগ্রেসম্যান।

ঢাকায় অবস্থানকালে তারা বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করতে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের গুরুত্ব এবং পারস্পরিক স্বার্থের বিষয় নিয়ে সরকারি কর্মকর্তা এবং সুশীল সমাজের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka denounces US 2023 human rights report

Criticising the recently released US State Department's 2023 Human Rights Report, the foreign ministry today said it is apparent that the report mostly relies on assumptions and unsubstantiated allegations

14m ago