যা রান করেছেন ভুলে গিয়ে শুরুর চিন্তা আরিফুলের

নিজের অভিষেক টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে আরিফুল হক যা রান করেছেন তা না করলে কি হতো ভাবা যায়? দলের হতশ্রী ব্যাটিংয়ে অভিষিক্ত আরিফুলই ছিলেন আশার ঝিলিক। একমাত্র তার ব্যাটেই দেখা গেছে টিকে থাকার নিবেদন। অথচ দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগে আগের সব স্মৃতি থেকে মুছে দিতে চান এই অলরাউন্ডার।
Ariful Haque
ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

নিজের অভিষেক টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে আরিফুল হক যা রান করেছেন তা না করলে কি হতো ভাবা  যায়? দলের হতশ্রী ব্যাটিংয়ে অভিষিক্ত আরিফুলই ছিলেন আশার ঝিলিক। একমাত্র তার ব্যাটেই দেখা গেছে টিকে থাকার নিবেদন। অথচ দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগে আগের সব স্মৃতি থেকে মুছে দিতে চান এই অলরাউন্ডার।

সিলেট টেস্টের প্রথম ইনিংসে দলের ব্যাটিং ভরাডুবির মধ্যে একপ্রান্তে ৪১ রানে অপরাজিত থেকে যান আরিফুল। দ্বিতীয় ইনিংস শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার সময় করেছিলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৮ রান।

দলের বিশাল হারের জন্যে তার অভিষেকের নৈপুণ্য আর আলোচিত হওয়ার অবস্থায় থাকেনি। তবে এই দুই ইনিংস তাকে যোগাচ্ছে আত্মবিশ্বাস, দিচ্ছে আরও বদলে, ‘প্রথম টেস্ট ভালোই গিয়েছে আসলে। আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বোলাররা বাজে বল দেবে না, সেটির জন্য অপেক্ষা করতে হবে। যেটা বোঝা দরকার, সেটি বুঝতে পেরেছি। এই পর্যায়ে খেললে চিন্তা-ভাবনায় যে পরিবর্তন আসে, সেটা আমার হয়েছে। চিন্তা-ভাবনায় পরিবর্তন এসেছে।’

আরিফুল যে কারণে অভিষেকের দুই ইনিংস ভুলে যেতে চান তা খোলাসা করেছেন পরেই। রান পেয়েছেন বটে কিন্তু আসেনি বড় রান। আত্মতৃপ্তি তার নেই,  এবার তেমন চিন্তা থেকেই ছুটবেন বড় রানের দিকে, ‘এখনও ওরকম কিছু করিনি। আমার চিন্তা বড় কিছু করার। সেসবের শতভাগ না পারি, ৯০ ভাগ যেন যেতে পারি। টেস্ট ম্যাচে রান করেছি, ওটা ভুলে যেতে চাচ্ছি। যা খেলেছি, ভুলে যাচ্ছি। সামনে কিভাবে ভালো করা যায়, সেটাই মূল ভাবনা।’

বিপিএল দিয়েই আলোয় আসেন আরিফুল। কিন্তু তিনি দীর্ঘদিন থেকেই ঘরোয়া প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্মার। বড় শট খেলার গুণ আছে, সেই সঙ্গে আছে বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্যও। টেস্টই তাই ছিল স্বপ্নের জায়গা, ‘আমার স্বপ্ন ছিল টেস্ট খেলার। আমি চাই যে দীর্ঘদিন টেস্ট খেলতে বা জাতীয় দলে থাকতে। সব ফরম্যাটেই খেলার ইচ্ছা আছে। আমার চাওয়া হলো, যে ফরম্যাটে যেভাবে দরকার, সেভাবেই খেলব।’

আরিফুলের ব্যাটিং বেশ চলনসই। কিন্তু বোলিংটা এখনো জুতসই করতে পারেননি। দলে জায়গা পাকা রাখতে দুদিকেই নজর দেওয়ার ইচ্ছা তার,  ‘বোলিং নিয়ে কাজ করছি। আসলেও ওটা আমার বোলিংয়ের জন্য মানানসই উইকেট ছিল না (সিলেটে)। আমার বোলিংয়ের উপযোগী উইকেট হলে হয়তো আরও বোলিং করতাম। আমি জানি আরও ভালো করতে হবে। ঘরোয়া ক্রিকেটে, বিপিএলে যদি আরও ভালো করতে পারি, তাহলে জাতীয় দলেও বোলিংয়ের সুযোগ পাব।’

 

Comments

The Daily Star  | English

Heatwaves in April getting longer

Mild to moderate heatwaves, 36 to 40 degrees Celsius, in the month of April have gotten longer over the years, according to a research.

1h ago