আমরা সবাই মেসিকে দলে চাই: দিবালা

লিওনেল মেসি না থাকায় দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাটা পাওলো দিবালার উপরই বর্তেছে। আর তা দারুণ ভাবেই পালন করে যাচ্ছেন এ তরুণ। কিন্তু মেসিকে আবারও জাতীয় দলের জার্সিতে দেখতে চান এ জুভেন্টাস তারকা। মেক্সিকো বিপক্ষে মাঠে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে নিজের ইচ্ছার কথাই জানিয়েছেন তিনি।

লিওনেল মেসি না থাকায় দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাটা পাওলো দিবালার উপরই বর্তেছে। আর তা দারুণ ভাবেই পালন করে যাচ্ছেন এ তরুণ।  কিন্তু মেসিকে আবারও জাতীয় দলের জার্সিতে দেখতে চান এ জুভেন্টাস তারকা। মেক্সিকো বিপক্ষে মাঠে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে নিজের ইচ্ছার কথাই জানিয়েছেন তিনি।

রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ ফ্রান্সের বিপক্ষে ৩-৪ গোলে হারের পর আর জাতীয় দলের হয়ে খেলেননি মেসি। জাতীয় দলে আবার ফিরবেন কি না এ নিয়ে অনেক ধোঁয়াশা তৈরি হচ্ছে। যদিও এ নিয়ে মেসি কোন কথা বলেননি।

মেসিকে আর্জেন্টিনা দলে কতটা প্রয়োজন, সে আকুতিই যেন ঝরে দিবালার কণ্ঠে, ‘আমরা সবাই আবার তাকে (মেসি) দলে চাই। আমরা জানি তিনি দলের জন্য কি। কিন্তু দিনশেষে এটা (ফিরে আসার সিদ্ধান্ত) কোন খেলোয়াড়ের হাতে নেই।’

বিশ্বকাপের পর ক্লাব ফুটবল নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন মেসি। তবে তাকে ছাড়া খুব একটা খারাপ করছে না আর্জেন্টিনা। নতুন কোচ লিওনেল স্কালোনির অধীনে শেষ পাঁচ ম্যাচের তিনটিতেই জয় পেয়েছে দল। গত শনিবার মেক্সিকোর বিপক্ষে ২-০ গোললের জয় পায় দলটি। আগামীকাল আবার তাদের বিপক্ষে নামছে তারা।

এদিকে মেসির মতো সের্জিও আগুয়েরো, গঞ্জালো হিগুয়েইন, আনহেল দি মারিয়ার মতো সিনিয়র খেলোয়াড়রাও এখনও জাতীয় দলের হয়ে খেলেননি। মেসির অবর্তমানে দিবালাই প্লেমেকারের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তার সঙ্গে লাউতুরো মার্তিনেজ, মাউরো ইকার্দি, লিওনেন্দ্রো পারেদেস, গিও লো সেলসোর মতো তরুণরা প্রতিনিধিত্ব করছেন জাতীয় দলে।

তাই তরুণ এ দলটির উপর ভক্তদের সমর্থন চাইলেন দিবালা, ‘আমরা সবাই তরুণ। সবে মাত্র শুরু করেছি। আমাদের জনগণের সমর্থন প্রয়োজন। আমরা জানি না সামনে কি ঘটতে যাচ্ছে।’ তবে জাতীয় দলের জার্সিতে এখন পর্যন্ত ১৬টি ম্যাচ খেলে ফেললেও এখনও গোলের দেখা পাননি দিবালা।

Comments

The Daily Star  | English
Civil society in Bangladesh

Our civil society needs to do more to challenge power structures

Over the last year, human rights defenders, demonstrators, and dissenters have been met with harassment, physical aggression, detainment, and maltreatment by the authorities.

8h ago