মনোনয়ন বাতিল হওয়া নিয়ে যা বললেন কাদের সিদ্দিকী

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষিত হওয়ার পর বলেছেন, এই সরকারের আমলে তিনি নির্বাচন করতে পারবেন না এটা তিনি জানতেন। তবে প্রার্থী হওয়ার জন্য আইনি কাঠামোর মধ্যে যতটুকু সুযোগ আছে সে অনুযায়ী তিনি চেষ্টা চালিয়ে যাবেন।
টাঙ্গাইলের দুটি আসনেই মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর সাংবাদিকদের কাছে নিজের প্রতিক্রিয়া জানান কাদের সিদ্দিকী। ছবি: স্টার

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষিত হওয়ার পর বলেছেন, এই সরকারের আমলে তিনি নির্বাচন করতে পারবেন না এটা তিনি জানতেন। তবে প্রার্থী হওয়ার জন্য আইনি কাঠামোর মধ্যে যতটুকু সুযোগ আছে সে অনুযায়ী তিনি চেষ্টা চালিয়ে যাবেন।

সম্প্রতি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যুক্ত হওয়া এই দলটির নেতা টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতি) ও টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল, সখিপুর) আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু ঋণ খেলাপি হওয়ার কারণ দেখিয়ে আজ তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তা।

খেলাপি ঋণের ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. নাজিম উদ্দিন কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য জানতে চাইলে বলেন, ‘আমার বলার কিছু নেই। এবার দিয়ে তৃতীয় বারের মতো আমি নির্বাচনের বাইরে রয়েছি।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যা হচ্ছে সেটা সরকারের ইচ্ছা অনুযায়ী হচ্ছে।’

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘বিষয়টি আমি জানতাম। যতক্ষণ পর্যন্ত আমার বোনের সরকার থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমাকে ওনারা নির্বাচন করতে দেবেন না। আমার সংগ্রাম হচ্ছে ভোটার যেন ভোট দিতে পারেন। এখন যে কু-শাসন চলছে এটা ভালো না।’

তিনি বলেন, প্রার্থী হতে যেসব শর্ত জুড়ে দেওয়া হচ্ছে সেটা সংবিধান সমর্থন করে না। যিনি প্রার্থী হবেন তার ২৫ বছর বয়স হতে হবে, একজন প্রস্তাবক ও একজন সমর্থক থাকতে হবে। এর বাইরে আর কোনো কিছুর প্রয়োজন নেই।

তিনি মনে করেন, ‘নির্বাচনে বর্তমান সরকার মাত্র ১৯ থেকে ২০টি আসনে জিততে পারবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Small businesses, daily earners scorched by heatwave

After parking his motorcycle and removing his helmet, a young biker opened a red umbrella and stood on the footpath.

1h ago