দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে তরুণদের পাশে চান সাকিব

বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় দলের তো বটেই দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকাই সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের জনগণ বিশেষ করে তরুণদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় এ ক্রিকেটার। সেই তরুণদের কাছে এক বাণী পৌঁছে দিয়েছেন এ অলরাউন্ডার। দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তরুণদের সক্রিয় অংশগ্রহণ চেয়েছেন তিনি।
Shakib AL Hasan
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় দলের তো বটেই দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকাই সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের জনগণ বিশেষ করে তরুণদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় এ ক্রিকেটার। সেই তরুণদের কাছে এক বাণী পৌঁছে দিয়েছেন এ অলরাউন্ডার। দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তরুণদের সক্রিয় অংশগ্রহণ চেয়েছেন তিনি।

মাঠে যখন উইন্ডিজের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয় তুলে নেওয়ার লড়াইয়ে ব্যস্ত সাকিব, তখনই তার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক ভাইরাল হয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। দুই মিনিটের একটি ভিডিওতে তরুণদের উদ্দেশ্য করে বেশ কিছু উদ্দীপক কথাও বলেছেন তিনি, ‘১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ৭২টি ম্যাচের বেশির ভাগই আমরা হেরেছিলাম। কিন্তু আমরা জিততে চেয়েছিলাম। এটা আমাদের কাছে কেবল খেলা নয়, এটা আমাদের দেশ। তাই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছিলাম। আমি যখন ক্রিজে গিয়ে দাঁড়াই, তখন আমার সঙ্গে থাকে বাংলাদেশ।’

‘আমি যখন শুরু করেছিলাম, তখন আমার বয়স ছিল ১৯। আজ যারা তরুণ, আমি নিশ্চিত জানি প্রত্যেকেরই নিজের মতো করে স্বপ্ন আছে। ব্যক্তির স্বপ্নকে দেশের স্বপ্ন করতে হয়। এগিয়ে আসতে হয়, তৈরি করতে সঠিক পথ। আমি কোনো সুপারম্যান নই। আমি এ দেশেরই একজন সাধারণ সন্তান। তোমরা যারাই এখানে আছো আমি জানি সবাই যার যার মতো আলাদা। কিন্তু একটা বিষয়ে আমরা সবাই এক সেটা হলো আমাদের প্রাণের বাংলাদেশ। এ দেশকে আমরা মা বলি। কিন্তু নিজের মাকে নিয়ে আমরা যেভাবে ভাবী এ দেশকে নিয়ে কি সেভাবে ভাবি।’

‘অথচ দেশ আমাদের নিয়ে ভাবছে। নজর রাখছে ভালো মন্দের। তার ভালো থাকায় আমাদের ভালো থাকা। সবার ভালো থাকাই মানে দেশের ভালো থাকা। দেশকে নিয়ে ভাবার সময় এসেছে আমাদের। দেশ মানে আর কিছু নয়, তুমি, আমি, আমরা। এই আমরাই দেশ। সবাইকে ভালো রাখার। সবাইকে ভালো রাখা ও সবাইকে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার এক দুর্বার যাত্রায় এখন আমরা আছি। বিদ্যুতে, শিক্ষায়, স্বাস্থ্যে, খাদ্যে, নারীর ক্ষমতায়নে, সামাজিক ও মানব উন্নয়নে তো বটেই, অবকাঠামো, যোগাযোগ ও ডিজিটাল উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের উদাহরণ হতে চলেছে।’

‘বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিবারের সবাইকে হারিয়ে দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে আছেন। বাংলাদেশ এখন তার পরিবার। সবাইকে নিয়ে সবার ভালো থাকার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। বিশেষ করে তরুণদের নিয়ে। সবক্ষেত্রে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার নীতি গ্রহণ করেছেন তিনি। সেখানে চাই তোমার সক্রিয় অংশগ্রহণ। এ অগ্রযাত্রা আরও এগিয়ে নিতে প্রয়োজন তোমাকে। আমার বিশ্বাস আমরা দাঁড়ালে হারবে না বাংলাদেশ। কারণ তরুণেরাই আগামীর বাংলাদেশ। এবার তোমার পালা।’

Comments

The Daily Star  | English

Heatwaves in April getting longer

Mild to moderate heatwaves, 36 to 40 degrees Celsius, in the month of April have gotten longer over the years, according to a research.

1h ago