মেসি-রোনালদো কি আবার হারানো রাজত্ব ফিরে পাবেন?

বয়সটা ৩৩ পার হয়ে ৩৪ এর কাছাকাছি। কিন্তু তাতে বিন্দু মাত্র ধার কমেনি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। অন্যদিকে ৩১ বছর বয়সী লিওনেল মেসিই দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু তারপরও চলতি বছরে রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান তারকা লুকা মদ্রিচের কাছে খুইয়েছেন নিজেদের ১০ বছরের রাজত্ব। তাতে এ দ্বৈরথের শেষ দেখেছেন অনেকেই। কিন্তু আসলেই কি তাই?

বয়সটা ৩৩ পার হয়ে ৩৪ এর কাছাকাছি। কিন্তু তাতে বিন্দু মাত্র ধার কমেনি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। অন্যদিকে ৩১ বছর বয়সী লিওনেল মেসিই দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু তারপরও চলতি বছরে রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান তারকা লুকা মদ্রিচের কাছে খুইয়েছেন নিজেদের ১০ বছরের রাজত্ব। তাতে এ দ্বৈরথের শেষ দেখেছেন অনেকেই। কিন্তু আসলেই কি তাই?

২০০৭ সালে এসি মিলানের ব্রাজিলিয়ান তারকা কাকা ব্যালন ডি’অর জয় করার পর থেকে শুরু হয় মেসি-রোনালদোর রাজত্ব। যে দেখেছে গত মৌসুম পর্যন্ত। শেষ ১০ বছরে এ পুরষ্কার মেসি ও রোনালদো ভাগ করে নিয়েছেন পাঁচবার করে। কিন্তু মদ্রিচ এ বলয় ভাঙেন। এরপরই আলোচনা, তাহলে এই শুরু নতুন ধারার? কে হবেন ২০১৯ সালের ব্যালন ডি’অর জয়ী?

শুরু থেকেই মেসি-রোনালদোর মধ্যে একটি অনন্য প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হয়েছিল। তা চলছিল এখন পর্যন্ত। যদিও তাতে অনেকটাই জল ঢেলেছেন রোনালদো। রিয়াল ছেড়ে চলতি মৌসুমের শুরুতে যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে। তাই ঘরোয়া পর্যায়ে দ্বৈরথটা অনেকটাই অনুপস্থিত। কিন্তু ঘরোয়া পর্যায়ের ফলাফল সেরা তারকার লড়াইয়ে প্রভাব ফেলে খুব অল্পই। সবার চোখ থাকে ওই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে।

আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে চলতি মৌসুমে দারুণ খেলে যাচ্ছেন মেসি। আসরে দ্বিতীয় সেরা গোলদাতা তিনি। ইনজুরিতে না পরলে হয়তো আরও ভালো কিছু হতে পারতো। অন্যদিকে জুভেন্টাসের হয়ে চলতি মৌসুমে শুরুটা ভালো না হলেও ধীরে ধীরে নিজেকে গুছিয়ে নিয়েছেন রোনালদো। পুরো মৌসুমে এখন পর্যন্ত ১৮ ম্যাচে গোল পেয়েছেন ১০টি। অন্যদিকে মেসি ১৫ ম্যাচে ১৫টি। তাই রাজত্ব ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে ভালো ভাবেই আছেন এ দুই তারকা।

এদিকে মেসি-রোনালদোকে পেছনে ফেলা মদ্রিচ চলতি মৌসুমে একেবারেই বিবর্ণ। যার ফলে প্রায়ই সেরা একাদশেই জায়গা পাচ্ছেন না। যদিও মৌসুমের মূল অংশটাই বাকি রয়েছে। যে কোন সময়ে ছন্দে ফিরতে পারেন এ তারকা। তবে মদ্রিচের চেয়ে ২০১৯ সালের সেরা তারকা হওয়ার লড়াইয়ে মেসি-রোনালদোর প্রতিদ্বন্দ্বী পিএসজির নেইমার- কিলিয়ান এমবাপে যুগল। আছেন অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের আতোঁয়া গ্রিজম্যানও।

গ্রিজম্যান অবশ্য মজা করে কদিন আগে একটা চরম সত্যি কথা বলেছেন। ব্যালন ডি’অর জিততে হলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগটাই গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বকাপ ও উয়েফা কাপ জিতেও চলতি মৌসুমের ব্যালন ডি’অর তালিকায় তৃতীয় স্থানে ছিলেন তিনি। আর শেষ পাঁচটি ব্যালন ডি’অরই যে এসেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ীর হাতেই। তাই বার্সেলোনা-জুভেন্টাস যে কোন দল চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতলেই আবার শুরু হবে তাদের রাজত্ব।

Comments

The Daily Star  | English

Small businesses, daily earners scorched by heatwave

After parking his motorcycle and removing his helmet, a young biker opened a red umbrella and stood on the footpath.

1h ago