রোমাঞ্চকর ম্যাচে আল ইসলাম চমক

কাইরন পোলার্ডের ঝড়ে শুরুতে বিপর্যস্ত ঢাকার বড় সংগ্রহের পর সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন রাইলি রুশো। তার তাণ্ডবে বিশাল রান তাড়াতেও অনায়াসে জেতার পথে ছিল রংপুর রাইডার্স। সেখান থেকে অবিশ্বাস্য বোলিং করে ম্যাচ জিতিয়েছেন এমন এক জন, এই ম্যাচে নামার আগে যার নাম শোনেনি কেউ। আল ইসলাম হ্যাটট্রিক করে জিতিয়েছেন ঢাকা ডায়নামাইটসকে।
AL ISLAM
অভিষেকেই চমক অফ স্পিনার আল-ইসলামের। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

কাইরন পোলার্ডের ঝড়ে শুরুতে বিপর্যস্ত ঢাকার বড় সংগ্রহের পর সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন রাইলি রুশো। তার তাণ্ডবে বিশাল রান তাড়াতেও অনায়াসে জেতার পথে ছিল রংপুর রাইডার্স। সেখান থেকে অবিশ্বাস্য বোলিং করে ম্যাচ জিতিয়েছেন এমন এক জন, এই ম্যাচে নামার আগে যার নাম শোনেনি কেউ। আল ইসলাম হ্যাটট্রিক করে জিতিয়েছেন ঢাকা ডায়নামাইটসকে।

শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গ্যালারি ছিল ভরপুর। দুই হেভিওয়েট দলের লড়াইয়ে মাঠের খেলাও হয়েছে জম্পেশ। ঢাকার ১৮৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করে একদম শেষ পর্যন্ত ম্যাচে থেকে রংপুর রাইডার্স হেরেছে মাত্র ২ রানে। 

১৮৪ রানের লক্ষ্যে শুরুতেই ক্রিস গেইলকে হারায় রংপুর। শুভাগত হোমের বলে ছক্কা মারতে গিয়ে পোলার্ডের অবিশ্বাস্য ক্যাচে বিদায় নেন তিনি। টেকেননি  আরেক ওপেনার মেহেদী মারুফও। তবে এরপরই ঘুরে দাঁড়ায় রংপুরের ইনিংস। মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে ১২১ রানের জুটি গড়েন রুশো। ৪৪ বলে ৮ চার আর ৪ ছক্কায় ৮৩ করে শেষ হয় রুশোর ইনিংস। রুশোকে আউট করেই আলোতে আসা শুরু আল ইসলামের। আনকারো এই অফ স্পিনার ম্যাচের বাকিটায় যে বনে যাবেন নায়ক ঘুণাক্ষরেও টের পাওয়া যায়নি। 

রুশোর আউটের পর ছন্দ হারায় রংপুর। ক্রিজে এসে ফ্রুতই ফিরে যান রবি বোপারা।  ইনিংসের আটারোতম ওভারেই চমক দেখান আল ইসলাম। ৩৫ বলে ৪৯ করা মিঠুনকে ফিরিয়ে শুরু হয় তার চমক। মিঠুনকে সরাসরি বোল্ড করে দেওয়ার পরের দুই বলে মাশরাফি মর্তুজা ও ফরহাদ রেজাকে আউট করে আসরের প্রথম হ্যাটট্রিক করেন আল ইসলাম। 

এর আগে টস হেরে ব্যাটিং পাওয়া ঢাকাকে শুরুতেই চেপে ধরেছিল রংপুর। আগের দুই ম্যাচের হিরো হজরতুল্লাহ জাজাইকে শুরুতেই ফেরান সোহাগ গাজী, নারিনকে তুলে নেন মাশরাফি। ছোট ঝড় তুলে গাজীর বলে ফেরেন রনি তালুকদার। এক পর্যায়ে ৬৪ রানেই ৪ উইকেট খুইয়ে বসে সাকিব আল হাসানের দল। সাকিব আর পোলার্ডের জুটিতে সেখান থেকেই ঘুরে দাঁড়ানো শুরু ঢাকার। রয়েসয়ে খেলে সাকিব ৩৭ বলে ৩৬ করলেও পোলার্ড তুলেন ঝড়। মাত্র ২৬ বলে ৫ চার আর ৪ ছক্কায় করেন ৬২। তার তান্ডবেই চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করাতে পেরেছিল ঢাকা। সেই ভিত পেয়ে পরে যেখানে নায়ক বনলেন আল ইসলাম। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ঢাকা ডায়নাইমাটস: ২০ ওভারে ১৮৩/৯ (জাজাই ১, নারাইন ৮, রনি ১৮, সাকিব ৩৬, মিজানুর ১৫, পোলার্ড ৬২, রাসেল ২৩, শুভাগত ৩, সোহান ৪, রুবেল ১*; মাশরাফি ৪-০-২২-১, সোহাগ ৩-০-২৮-২, শফিউল ৪-০-৩৫-৩, অপু ২-০-৩৪-০, রেজা ৩-০-৩২-১, হাওয়েল ৪-০-২৫-২)।

রংপুর রাইডার্স: ২০ ওভারে ১৮১/৯ (মারুফ ১০, গেইল ৮, রুশো ৮৩, মিঠুন ৪৯, বোপারা ৩, হাওয়েল ১৩, মাশরাফি ০, ফরহাদ ০, সোহাগ ০, শফিউল ১০*, নাজমুল ১*; রাসেল ৩-০-২৬-১, রুবেল ৩-০-২৬-০, শুভাগত ২-০-২৭-১, সাকিব ৪-০-৩৫-১, নারাইন ৪-০-৪০-২, আল ইসলাম ৪-০-২৬-৪)।

Comments

The Daily Star  | English

Heatwaves in April getting longer

Mild to moderate heatwaves, 36 to 40 degrees Celsius, in the month of April have gotten longer over the years, according to a research.

16m ago