নির্দিষ্ট সময়ে বকেয়া পরিশোধ, অন্যথায় কঠোর শাস্তি

১০ মাসের বেশি সময় পার হলো শেষ হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের গত আসর। অথচ এখনও পুরো বকেয়া টাকা বুঝে পায়নি কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের খেলোয়াড়রা। তাদের বকেয়া বুঝিয়ে দেওয়ার আগেই চলতি বছরের প্রিমিয়ার লিগ শুরু করতে যাচ্ছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)। দল বাছাই প্রক্রিয়ার প্লেয়ার্স ড্রাফট ১৮ ফেব্রুয়ারি আর লিগ শুরু হচ্ছে ১ মার্চ। তবে আগামীতে নতুন করে সমস্যা সৃষ্টি না লক্ষ্যে নিয়ম না মানা ক্লাবগুলোকে কঠোর শাস্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সিসিডিএম।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

১০ মাসের বেশি সময় পার হলো শেষ হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের গত আসর। অথচ এখনও পুরো বকেয়া টাকা বুঝে পায়নি কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের খেলোয়াড়রা। তাদের বকেয়া বুঝিয়ে দেওয়ার আগেই চলতি বছরের প্রিমিয়ার লিগ শুরু করতে যাচ্ছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)। দল বাছাই প্রক্রিয়ার প্লেয়ার্স ড্রাফট ১৮ ফেব্রুয়ারি আর লিগ শুরু হচ্ছে ১ মার্চ। তবে আগামীতে নতুন করে সমস্যা সৃষ্টি না লক্ষ্যে নিয়ম না মানা ক্লাবগুলোকে কঠোর শাস্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সিসিডিএম।

খেলোয়াড়দের বকেয়া টাকা সময় মতো পরিশোধ না করার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। সমস্যাটি বেশ পুরনো। তবে প্লেয়ার্স ড্রাফট প্রক্রিয়ার শুরু হওয়ার পরও হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে বাইলজে কিছু পরিবর্তন আনছে বলেই জানালেন সিসিডিএম ইনচার্জ তৌহিদ মাহমুদ, ‘আগামী ড্রাফটে আমরা একটি নতুন নিয়ম আনতে যাচ্ছি। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ক্লাব যদি খেলোয়াড়দের বকেয়া শোধ করতে না পারে তাহলে বিসিবি পরিমাণ অনুযায়ী সে দলের পয়েন্ট কাটতে পারবে এবং চাইলে সে দলকে টুর্নামেন্ট থেকে সাসপেন্ডও করতে পারবে। আগামী সভাতে আমরা এটা নিয়ে আলোচনা করব এবং একটি লিখিত নিয়ম চালু করব।’

নতুন নিয়ম চালুর আগেই ক্লাব গোছানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে ক্লাবগুলো। এর মধ্যে ক্লাবগুলো নিজেদের রিটেইন লিস্ট পাঠিয়ে দিয়েছে সিসিডিএমকে। ১৪ ফেব্রুয়ারি ছিল এর শেষ তারিখ। প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা নতুন দুটি দল উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাব ও বিকেএসপি ছাড়া বাকী সব দলই ৩ জন করে খেলোয়াড় রিটেইন করেছে।

তবে উত্তরা ও বিকেএসপির জন্য ড্রাফটের শুরুতে খেলোয়াড় নেওয়ার ব্যবস্থা রাখছে তারা। আর সেটা হওয়ার কথা শনিবারই। তাই ১২টি দলের মোট ৩৬জন ক্রিকেটার বাদে বাকী খেলোয়াড়দের নিয়ে আগামী সোমবার অনুষ্ঠিত হবে প্লেয়ার্স ড্রাফট। তালিকায় প্রায় ২৫০ মতো খেলোয়াড়ের নাম থাকছে।

অন্যান্য বারের মতো এবার কোন আইকন খেলোয়াড় থাকছে না। মোট সাতটি ক্যাটাগরি থাকছে। এ প্লাস গ্রেডের খেলোয়াড় পাচ্ছেন ২৫-৩৫ লাখ টাকা। এ গ্রেড ২০-২৫ লাখের এর মধ্যে, বি প্লাস রেখেছি ১৫-১৮ লাখ এভাবে ডি পর্যন্ত থাকছে সাড়ে ৩ লাখ টাকা। এ প্লাসে টাকার পরিধিটি বড় (২৫-৩৫ লাখ) হওয়ায় মাশরাফি বিন মুর্তজা, লিটন কুমার দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, ইমরুল কায়েসদের মূল্যটা জানিয়ে দেবে সিসিডিএমই। আর খেলোয়াড়দের সংখ্যাটাও কম নয়। নয়জন খেলোয়াড় আছেন এ প্লাসে।

জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে একমাত্র মাশরাফি ও ইমরুলকেই রিটেইন করেছে ক্লাবগুলো। কারণ নিউজিল্যান্ডে টেস্ট সিরিজে খেলছেন না তারা। আর সিরিজ থাকায় পুরো আসর খেলতে পারছেন না বাকী খেলোয়াড়রা। মুশফিক, তামিম ও সাকিবসহ আরও বেশ কিছু নাম রয়েছে এ তালিকায়। আর এ কারণেই জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের রিটেইন করতে চায়নি ক্লাবগুলি।

Comments

The Daily Star  | English

Settle disputes through dialogue, say 'no' to wars, says PM at UNESCAP meet

Prime Minister Sheikh Hasina today called for speaking out against all forms of aggression and atrocities, and to say 'no' to wars

9m ago