সিইসি জানেন ইভিএম কেনো প্রয়োজন

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের কথা ভাবছে, যাতে করে ভোটের আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরে রাখার কোনো সুযোগ না থাকে।
cec
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা। ফাইল ছবি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের কথা ভাবছে, যাতে করে ভোটের আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরে রাখার কোনো সুযোগ না থাকে।

গতকাল (৮ মার্চ) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে নির্বাচন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ইসি ভোটের দিন সকালে ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স নিয়ে কেন্দ্রে যেতে পারে না।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)-এর এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৩০ ডিসেম্বরের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যে ৫০টি আসন তাদের গবেষণার আওতায় ছিলো, তার মধ্যে ৩৩টি আসনের একাধিক কেন্দ্রে আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরে রাখা হয়েছিলো।

‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যালোচনা’ শীর্ষক ওই গবেষণা প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ভোটের দিন ৩০টি আসনের বিভিন্ন কেন্দ্র দখল করে প্রকাশ্যে ব্যালটে সিল মারা হয়েছিলো।

নির্বাচনী পরিবেশ অবনতির দিকে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করে সিইসি বলেন, “নির্বাচন সুষ্ঠু করতে কমিশনকে আচরণবিধি তৈরি করতে হয়, নির্বাচনে আইন প্রণয়ন করতে হয়, কঠোর পদক্ষেপ নিতে হয়। তারপরও সামাল দেওয়া যায় না। এ অবস্থা থেকে উত্তরণ দরকার।”

এসময় তিনি সকল নির্বাচন কর্মকর্তাকে পেশাদারিত্বের সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।

সিইসি বলেন, “নির্বাচনে যিনি হেরে যাবেন তার কাছে নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না। যিনি জিতে যাবেন তার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। এই হেরে যাওয়া ও জিতে যাওয়ার মধ্যে আপনাদের (নির্বাচন কর্মকর্তাদের) যেন কোনো গাফিলতি না থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।”

Comments

The Daily Star  | English

No insurance assets will be usable for owners’ personal loans

Insurers shall not assist company directors, shareholders, their families or other related individuals in obtaining loans from financial institutions by using company assets as collateral, according to a draft amendment to Insurance Act 2010.

Now